মেলায় ফ্রি আর ছাড়ের ছড়াছড়ি

মো. শফিকুল ইসলাম
মো. শফিকুল ইসলাম মো. শফিকুল ইসলাম , নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৫:২৭ পিএম, ১৬ জানুয়ারি ২০১৮

একটি কিনলে ১০টি ফ্রি। পণ্যের সঙ্গে পণ্য ফ্রি। নগদ পাঁচ থেকে ৫০ শতাংশ পর্যন্ত মূল্যছাড়। এছাড়া বিভিন্ন নামে নানা অফার দিয়ে ক্রেতা-দর্শনার্থীদের আকৃষ্ট করছে দোকানিরা। ছাড় আর অফার পেয়ে ক্রেতার মুখেও হাসি।

উৎসবের আমেজ নিয়ে বছরের প্রথম দিন শুরু হয়েছে ২৩তম ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা। দেশি-বিদেশি ক্রেতা, দর্শক ও উদ্যোক্তাদের মিলনমেলায় পরিণত হয়েছে এটি। প্রথম দিকে কিছুটা কম থাকলেও এখন ক্রেতা-দর্শনার্থীর পদচারণায় মুখর মেলা প্রাঙ্গণ।

মেলা ঘুরে দেখা গেছে, ক্রেতাদের সবচেয়ে বেশি আগ্রহ গৃহস্থালি পণ্যের প্রতি। প্লাস্টিকের তৈরি গৃহস্থালি পণ্যের পাশাপাশি রয়েছে প্রেসার কুকার, জুস মেকার, জুস ব্লেন্ডার, ওভেন, রাইস কুকারসহ নানা ধরনের তৈজসপত্র ও ইলেক্ট্রনিক পণ্য। এছাড়া ব্লেজার, ঘর সাজানোর বিভিন্ন উপকরণ, খাদ্যপণ্য ও শিশুদের খেলনা সামগ্রী রয়েছে ক্রেতাদের পছন্দের শীর্ষে।

mala

যুগের সঙ্গে তাল মিলিয়ে রান্নার কাজ সহজ ও সুন্দরভাবে পরিবেশনের জন্য বাণিজ্য মেলায় মানানসই সব গৃহস্থালি পণ্যের পসরা সাজিয়েছে দেশি-বিদেশি নানা প্রতিষ্ঠান। সৌখিন জিনিসপত্রের পাশাপাশি নিত্য ব্যবহারের তৈজসপত্র রয়েছে এসব প্রতিষ্ঠানের স্টলে। পণ্যভেদে রয়েছে বিশেষ অফার। ফ্রিসহ ৫০ শতাংশ পর্যন্ত নগদ মূল্যছাড়ও রয়েছে।

দেশের শীর্ষস্থানীয় শিল্পপ্রতিষ্ঠান আরএফএল গ্রুপের ব্র্যান্ড টপার বাণিজ্য মেলায় মাইক্রোওয়েভ ওভেন, রাইস কুকার, ব্লেন্ডার, ইলেক্ট্রিক কেটলি, ইলেক্ট্রিক আয়রন, ইন্ডাকশন কুকার, ইনফ্রারেড কুকার, নন-স্টিক কুকার, নন-স্টিক ফ্রাইপ্যান, হাড়ি-পাতিল, ঢাকনাসহ রান্নার জন্য ব্যবহৃত বিভিন্ন সামগ্রী বিক্রি করছে। সব পণ্যে ১০ শতাংশ ছাড় দিচ্ছে প্রতিষ্ঠানটি। মেলার ৪৬ নম্বর প্রিমিয়ার প্যাভিলিয়ন থেকে ক্রেতারা টপারের পণ্য কিনলে এ সুবিধা পাবেন।

mala

মেলায় তৈজসপত্র বিক্রি করছে ডেজিনি নামের দেশীয় প্রতিষ্ঠান। প্রতিষ্ঠানটির বিক্রেতা মাহফুজ জানান, মেলা উপলক্ষে ক্রেতাদের বিশেষ অফারে ৩৩ হাজার টাকার ১২ পিস পণ্য সাড়ে ২৪ হাজার টাকায় দেয়া হচ্ছে। ১২ পিসের মধ্যে রয়েছে- আধুনিক প্রযুক্তির ইটালিয়ন চুলা, ২৮ লিটারের মাইক্রোয়েভ ওভেন, মাল্টি কুকার, কারি কুকার, রাইস কুকার, স্যান্ডউইচ মেকার, পানির ফিল্টার, ৫টি রান্নার হাঁড়ি, ব্লেন্ডার ও রুটি মেকার। এছাড়া ক্রেতারা পছন্দমতো পণ্য পরিবর্তনের সুযোগ রয়েছে এখানে।

বাণিজ্য মেলায় একটি পণ্য কিনে সঙ্গে পাঁচটি উপহার পেয়ে খুশি সাবেক মন্ত্রী ব্যারিস্টার নাজমুল হুদা। তিনি বলেন, মেলায় ঘুরতে এসেছি। এখানে মিয়াকো ব্র্যান্ডের ওয়াশিং মেশিন পছন্দ হয়েছে। তাই কিনলাম। মিয়াকো একটি ভালো ব্র্যান্ড। এছাড়া ওয়াশিং মেশিনের সঙ্গে তারা বেশকিছু গিফট দিয়েছে। তাই বেশি দামাদামি করিনি। একটি পণ্যের সঙ্গে বেশ কয়েকটি উপহার দিয়েছে, ভালোই লাগছে।

মেলার প্রধান ফটক দিয়ে ঢুকতেই নান্দনিক সব আসবাবপত্রের প্রিমিয়াম-প্যাভিলিয়ন চোখে পড়বে। এর মধ্যে রয়েছে— পারটেক্স, হাতিল, নাভানা, নাদিয়া, রিগ্যাল, আকতার, হাই-টেক ফার্নিচার প্রভৃতি। মেলা উপলক্ষে প্রায় সব প্রতিষ্ঠানই নিয়ে এসেছে তাদের নতুন নতুন পণ্য। ক্রেতাদের জন্য আছে মূল্যছাড়ও।

mala

মেলায় প্রধান ফটক দিয়ে প্রবেশ করে হাতের ডানে ৬ নম্বর প্রিমিয়ার প্যাভিলিয়নটি সাজিয়েছে রিগ্যাল। নান্দনিক ডিজাইনের এ ফার্নিচারের মধ্যে রয়েছে বিভিন্ন ধরনের খাট, সোফা, সোফা কাম বেড, ডিভান, ডাইনিং টেবিল, ড্রেসিং টেবিল, ওয়্যারড্রব, বুক সেলফ ও এক্সক্লুসিভ রিডিং টেবিল। এসব ফার্নিচার তৈরি করা হয়েছে কাঠ, প্লাইউড ও মেটাল দিয়ে।

রিগ্যাল ফার্নিচারের সিনিয়র ব্র্যান্ড ম্যানেজার দেবাশীষ সরকার বলেন, ক্রেতাদের পছন্দ বিবেচনায় রেখে আমরা ডিজাইন ও নকশায় বৈচিত্র্য এনেছি। এসব ফার্নিচারে ক্রেতারা ১০ থেকে ২০ শতাংশ পর্যন্ত ছাড় পাচ্ছেন। মেলা ছাড়াও এ অফারে সারা দেশে রিগ্যাল এম্পোরিয়াম ও রিগ্যাল এক্সক্লুসিভ শোরুম থেকেও ক্রেতারা পছন্দের ফার্নিচার কিনতে পারবেন।

এদিকে পোশাক হিসেবে তরুণ-তরুণীদের পছন্দের শীর্ষে ব্লেজার। শীতে স্টাইলিশ আউটফিট হিসেবে ব্লেজারের কদরও রয়েছে বেশ। সব ধরনের ক্রেতা-দর্শনার্থীর কথা মাথায় রেখে মেলায় বাহারি স্যুট, কোট-ব্লেজার এনেছে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান। নানা অফারে ১৩শ’ টাকা থেকে শুরু করে সাড়ে ছয় হাজার টাকায় পাওয়া যাচ্ছে বিভিন্ন রঙ ও সাইজের ব্লেজার। এছাড়া ১০০ থেকে দুই হাজার টাকা পর্যন্ত নগদ মূল্যছাড় দিচ্ছে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান।

মেলায় ভিশন পণ্য কিনে রাশিয়ায় অনুষ্ঠিতব্য ফুটবল বিশ্বকাপ দেখার সুযোগ রয়েছে। ভিশন ইলেক্ট্রনিক্স প্যাভিলিয়নের ইনচার্জ মো. মোমিনুল হক জানান, মেলা থেকে ভিশনের যে কোনো পণ্য কিনলে ক্রেতাকে দেয়া হবে গোল্ড কার্ড। এটি স্ক্র্যাচ (ঘষে) করে সৌভাগ্যবান ক্রেতা পেতে পারেন রাশিয়ায় আয়োজিত বিশ্বকাপ ফুটবল খেলা দেখার সুযোগ। এছাড়া নগদ ছাড় ও গিফট পাওয়ার সুযোগও রয়েছে।

mala

মেলায় মোটরসাইকেল বিক্রি করছে রাষ্ট্রায়ত্ত প্রতিষ্ঠান এটলাস বাংলাদেশ লিমিটেড। সাতটি মডেলের মোটরসাইকেলে মেলার ক্রেতাদের জন্য প্রতিষ্ঠানটি দিয়েছে ১০ হাজার টাকা ক্যাশব্যাক অফার। বাংলাদেশ স্ট্রিল অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং কর্পোরেশনের সংরক্ষিত ৩ নম্বর প্যাভিলিয়নে (আরপি-৩) পাওয়া যাচ্ছে এসব মোটরসাইকেল।

দেশে তৈরি বাহারি রঙ, মনমাতানো ডিজাইন আর গুণগতমানের ‘দুরন্ত’ বাইসাইকেল বাণিজ্য মেলায় নিয়ে এসেছে দেশের বৃহৎ শিল্পপরিবার প্রাণ-আরএফএল গ্রুপের সহযোগী প্রতিষ্ঠান ‘দুরন্ত’। মেলা উপলক্ষে ‘দুরন্ত’ ব্র্যান্ডের সব বাইসাইকেলে রয়েছে বিশেষ মূল্যছাড়। ৬ নম্বর মিনি প্যাভিলিয়নে পাওয়া যাচ্ছে ‘দুরন্ত’ ব্র্যান্ডের বাইসাইকেল। ক্রেতাদের সর্বোচ্চ ৩৫ শতাংশ পর্যন্ত মূল্যছাড় দেয়া হচ্ছে।

হরেক রঙ আর ডিজাইনের আকর্ষণীয় ও ফ্যাশনেবল শার্ট, প্যান্ট, জিন্স, ব্লেজার মেয়েদের টপস, প্লাজোসহ নানা পণ্য নিয়ে এসেছে উইনার ব্র্যান্ড। মেলা উপলক্ষে ক্রেতাদের জন্য রয়েছে বিশেষ অফার। দুটি কিনলে একটি ফ্রিসহ নগদ ৫০ শতাংশ পর্যন্ত মূল্যছাড় রয়েছে। ১১ নম্বর উইনারের প্রিমিয়ার মিনি প্যাভিলিয়নে পাওয়া যাচ্ছে এসব পণ্য।

আকর্ষণীয় নানা অফারে বিভিন্ন বিস্কুটের স্টলে ভিড় করছেন ক্রেতা-দর্শনার্থীরা। মেলায় আসা গৃহিণী বিলকিস বেগম বলেন, প্রতিদিন বাসায় নাস্তার জন্য বিস্কুট লাগে। মেলায় সব ধরনের বিস্কুট পাওয়া যায়, ছাড়ও থাকে। বিস্ক ক্লাবের ফান টাইম, কিডস ম্যাজিক অফারসহ সুগার ফ্রি বিস্কুট কিনলাম।

ঐতিহ্যবাহী মিষ্টি ও খাদ্যপণ্যের সম্ভার নিয়ে হাজির হয়েছে দেশের অন্যতম সুইট চেইন শপ ‘মিঠাই’। মেলায় ক্রেতা আকৃষ্ট করতে মিঠাই ছয়টি বিশেষ আকর্ষণীয় অফার দিচ্ছে। পাশাপাশি দর্শনার্থীদের ক্ষুধা নিবারণে সুলভমূল্যে স্বাস্থ্যসম্মত খাবার বিক্রি করছে প্রতিষ্ঠানটি।

মেলায় খেলনা ও গৃহসামগ্রীর প্রায় ৩৮০ প্রকার পণ্য নিয়ে এসেছে দিপ্তী অ্যান্ড মাহিন স্টল। ক্রেতারা পছন্দ ও প্রয়োজন অনুযায়ী ১৪০ টাকা দিয়ে এসব পণ্য থেকে যে কোনো একটি কিনতে পারছেন।

স্টলটি থেকে পুতুল কেনা হিমা খাতুন বলেন, মেলায় ঘুরতে ঘুরতে স্টলটি চোখে পড়লো। অনেক পণ্যই পছন্দ হয়েছে। সেগুলোর মূল্য অন্য স্টল থেকে কম। ১৪০ টাকা দিয়ে যে পুতুল কিনেছি, একই পুতুল অপর স্টলে চাওয়া হয়েছে ৩৫০ টাকা।

এসআই/এমএআর/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]