১৫ দিনে সাড়ে চার লাখ দর্শনার্থী

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৫:৪২ পিএম, ১৬ জানুয়ারি ২০১৮

ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলায় গত ১৫ দিনে সড়ে চার লাখ দর্শনার্থী প্রবেশ করেছেন। যা গত বছরের একই সময়ের চেয়ে অর্ধেকেরও কম। রাজনৈতিক কোনো কর্মসূচি, ধর্মঘট কিংবা অন্য কোনো অস্থিরতা না থাকলেও মেলায় দর্শনার্থী কমেছে। এর পেছনে তীব্র শৈতপ্রবাহকে দায়ী করছেন স্টল মালিক ও সংশ্লিষ্টরা।

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে টিকিট ইজারাদার প্রতিষ্ঠান মীর ব্রাদার্সের স্বত্বাধিকারী মীর শহিদুল আলম জানান, মেলায় গত ১৫ দিনে সাড়ে চার লাখের মতো টিকিট বিক্রি হয়েছে। যা গত বছরের একই সময়ের চেয়ে অর্ধেক।

fair

তিনি বলেন, প্রতিদিন মেলায় গড়ে ৩০ হাজারের মতো টিকিট বিক্রি হচ্ছে। শুক্র ও শনিবার অন্যদিনের তুলনায় বেশি টিকিট বিক্রি হচ্ছে। তবে এখনো একদিনে এক লাখ টিকিট বিক্রি হয়নি। শুক্র ও শনিবার ৬০ থেকে ৭০ হাজার করে টিকিট বিক্রি হয়েছে। আমাদের প্রত্যাশা ছিল ওই দুদিন দুই লাখের ওপরে টিকিট বিক্রি হবে।

তিনি আরো বলেন, মাসব্যাপী এ মেলা শুধু রাজধানীবাসীর জন্য নয়। ঢাকার আশপাশের জেলা থেকেও লোকজন এখানে আসেন। কিন্তু এবার তারা তেমন আসছেন না। প্রচণ্ড শীতের কারণে তারা ভ্রমণ করতে ভয় পাচ্ছেন। ফলে দর্শনার্থীর সংখ্যা কম।

fair

মেলায় এবার বিকিকিনি গতবারের তুলনায়ও কম। অনেকে ছোট ছোট ছেলে-মেয়ে নিয়ে মেলায় আসছেন। শীতের কারণে মেলা ঘুরে দেখার আগেই তারা ফিরে যাচ্ছেন। এখনো অনেক দর্শনার্থী ঘুরে ঘুরে পণ্যের মান ও মূল্য যাচাই করে দেখছেন। মেলার শেষের দিকে তারা হয়তো পণ্য ক্রয় করবেন।

fair

মেলায় অংশ নেয়া নৌসিন জামদানি ইউভিং হাউসের সেলসম্যান আনিস জানান, পণ্যে বাড়তি ছাড় দিচ্ছি। তবুও কাস্টমার নেই। এর মূল কারণ শীত। মানুষ তেমন আসছে না। তবে শীত কমে গেলে মেলা জমে উঠবে এবং বিক্রিও ভালো হবে বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি।

এমএএস/এমএআর/আইআই

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]