বেড়েছে বিস্কুটের কাটতি

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৫:৫৫ পিএম, ১৬ জানুয়ারি ২০১৮

ক্রেতা-দর্শনার্থীদের সরব উপস্থিতিতে জমে উঠেছে ২৩তম ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা। বিশেষ করে বিস্কুটের প্যাভিলিয়ন ও স্টল জমজমাট হয়ে উঠেছে। স্টলগুলোতে যেমন ক্রেতাদের উপচেপড়া ভিড়, তেমনি বিশ্রামহীন সেবা দিতে দেখা গেছে দায়িত্বরতদের।

প্যাভিলিয়নের কর্মকর্তারা জানান, প্রথম দিকে বিক্রির পরিমাণ তেমন একটা ছিল না। প্রথম শুক্র ও শনিবার মোটামুটি ভালো বিক্রি হয়। এরপর আবার কমে যায়। তবে গত শুক্রবার থেকে ক্রেতারা বেশ ভিড় করছেন। বেড়ে গেছে বিস্কুটের কাটতি।

মেলায় প্রাণ, নাবিস্কো ও হকের প্যাভিলিয়নগুলোতে চোখে পড়ার মতো ক্রেতার উপস্থিতি লক্ষ্য করা গেছে। সেখানে রাখা হয়েছে আকর্ষণীয় প্যাকেজ। বেশি প্যাকেজ দিচ্ছে প্রাণ।

মেলা থেকে ক্রেতারা প্রাণের বিভিন্ন অফারসহ ১০০ টাকার পণ্য কিনলে পাচ্ছেন ১০ শতাংশ ছাড়। এছাড়া রয়েছে স্ন্যাকস টাইম ডাইমন্ড অফার, স্ন্যাকস টাইম হইচই অফার, ব্যাকেট অফার, বান্ডেল অফার, ফ্যান টাইম অফার, কিডস ম্যাজিক, কুকি কুচ অফার, অলটাইম জাম্বু, সচ লাভার, বিগ সেভ, ড্রাই কেক এক্সক্লুসিভ, ওয়ান্ডার কেক কম্ব, আড্ডা অফার, গল্প অফার, যুগল প্যাক, বিগ লিটার, টি টাইম ও এনি টাইম অফার।

প্রাণের ৪৯ নম্বর প্রিমিয়ার প্যাভিলিয়নের ইনচার্জ সঞ্জয় শিকদার বলেন, মেলা উদ্বোধনের পরপরই আমাদের বিক্রি বেশ। এখানে ৩৫০টির মতো আইটেম আছে। ক্রেতারা ১০০ টাকার পণ্য কিনলে ১০ শতাংশ ছাড় পাচ্ছেন। এছাড়া রয়েছে বিভিন্ন প্যাকেজ অফার। ১০০ টাকা থেকে এক হাজার টাকার মধ্যে ক্রেতারা এসব প্যাকেজ কিনতে পারছেন।

তিনি জানান, স্টলটি থেকে ক্রেতারা আট আইটেমের স্ন্যাকস টাইম ডাইমন্ড অফার কিনতে পারবেন ১৫০ টাকায়, যা মেলার বাইরে থেকে নিলে খরচ হবে ২০৮ টাকা। ২০০ টাকায় পাওয়া যাচ্ছে নয় আইটেমের স্ন্যাকস টাইম হইচই অফার, যা মেলার বাইরে মূল্য ২৫০ টাকা। ৪৬৯ টাকার ১১ আইটেম ক্রেতারা মেলা থেকে পাচ্ছেন ৩৫০ টাকায়। প্যাকেজটির নাম দেয়া হয়েছে স্ন্যাকস টাইম ব্যাকেট অফার। চার আইটেমের কুকি বান্ডেল অফার পাওয়া যাচ্ছে ১৫০ টাকায়, যার প্রকৃত মূল্য ২০০ টাকা। ১৫০ টাকায় পাওয়া যাচ্ছে ফ্যান টাইম অফার। এ প্যাকেজে রয়েছে ছয়টি পণ্য, যার প্রকৃত মূল্য ২৪৫ টাকা।

biscit

পাঁচ আইটেম নিয়ে তৈরি কিডস ম্যাজিক অফার বিক্রি হচ্ছে ১৫০ টাকায়, যার প্রকৃত মূল্য ২২৮ টাকা। কুকি কুচ অফার পাওয়া যাচ্ছে ২৫০ টাকায়। তিন আইটেম নিয়ে তৈরি এ পণ্যগুলোর প্রকৃত মূল্য ৩৮০ টাকা। সাত আইটেমের অলটাইম জাম্বু অফারে ক্রেতারা কিনতে পাচ্ছেন ৫০০ টাকা দিয়ে, যার প্রকৃত মূল্য ৭১৫ টাকা। তিন আইটেমের তৈরি সচ লাভার অফার পাওয়া যাচ্ছে ২৯৯ টাকায়। এর সঙ্গে থাকছে ১৫০ টাকা দামের বাইরন বে চিলি সচ ফ্রি।

বিক্রির পরিস্থিতি নিয়ে সঞ্জয় শিকদার বলেন, বিক্রি বেশ ভালো। প্রথমদিকে বিক্রি কিছুটা কম ছিল। তবে মেলার দিন যত যাচ্ছে বিক্রি তত বাড়ছে। আশা করছি সামনে বিক্রি আরো বাড়বে।

এক্সক্লুসিভ, প্রিমিয়াম ও পপুলার নামের তিনটি প্যাকেজ নিয়ে এসেছে হক। এর মধ্যে ২২০ টাকার এক্সক্লুসিভ প্যাকেজ বিক্রি হচ্ছে ২০০ টাকায়, ১৬৭ টাকার প্রিমিয়ার প্যাকেজ ১৫০ টাকা এবং ১১২ টাকার পপুলার প্যাকেজ ১০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এছাড়া হকের সব রকমের বিস্কুট খুচরা বিক্রি হচ্ছে।

সার্বিক বেচাবিক্রি প্রসঙ্গে বিক্রয়কর্মী রঞ্জন বলেন, প্রথমদিকে বিক্রি খুব একটা হয়নি। এখন তুলনামূলক ভালো বিক্রি হচ্ছে। তবে অন্যবারের তুলনায় এবার কম।

প্রকৃত মূল্যের ওপর ছাড় দিয়ে একাধিক প্যাকেজ বিক্রি করছে নাবিস্কো। এর মধ্যে রয়েছে রকমারি প্যাকেজ, টক-ঝাল-মিষ্টি প্যাকেজ ও ইত্যাদি প্যাকেজ। প্রতিষ্ঠানটির এক কর্মকর্তা বলেন, গত শুক্রবার থেকে বিক্রি বেড়েছে। তবে ক্রেতারা এসে বেশি প্যাকেজ খুঁজছেন। কিন্তু আমাদের প্যাকেজ কম। এরপরও প্যাকেজের বাইরে টিনের কৌটা ও প্যাকেটের বিস্কুট ভালো বিক্রি হচ্ছে।

এমএএস/এমএআর/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]