বেজার বিধিমালা প্রকাশ : বেশিরভাগ সেবা মিলবে ৭ দিনে

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১১:৩৮ এএম, ১৯ অক্টোবর ২০১৮

বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অঞ্চল কর্তৃপক্ষ (বেজা) বিনিয়োগকারীদের ওয়ান স্টপ সার্ভিস দেয়ার বিধিমালা প্রকাশ করেছে। এতে দেখা গেছে, অর্থনৈতিক অঞ্চলে ২৭ খাতের ১২৩ ধরনের সেবা পাবেন বিনিয়োগকারিরা। ন্যূনতম একদিন থেকে সর্বোচ্চ ৪৫ দিনের মধ্যে মিলবে এসব সেবা। তবে বিনিয়োগ নিবন্ধনসহ ২৫ ধরনের সেবা পাওয়া যাবে সর্বোচ্চ সাত দিনে।

সম্প্রতি প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় এ বিধিমালা গেজেট আকারে প্রকাশ করেছে।

বিধিমালায় বলা হয়েছে, একদিনেই দেয়া হবে কোম্পানির নামের ছাড়পত্র। এ ছাড়া টিআইএন রেজিস্ট্রেশন, ভ্যাট নিবন্ধন, আমদানি-রফতানি ও এর নমুনা অনুমোদন, কাস্টমসের ছাড়পত্র এবং কান্ট্রি অব অরিজিন সনদ একদিনে পাবেন বিনিয়োগকারীরা।

দু’দিনে পাওয়া যাবে ভিসার সুপারিশপত্র ও স্থানীয় বিক্রয় অনুমোদন। ট্রেড লাইসেন্স পাওয়া যাবে তিন দিনে। এ ছাড়া জমির দলিল, ভিসার জন্য সিকিউরিটি ক্লিয়ারেন্স, মুনাফা বা লভ্যাংশ প্রত্যাবাসনের সুপারিশের মতো গুরুত্বপূর্ণ ১৭ ধরনের সেবা পাওয়া যাবে তিন দিনে। বিনিয়োগ নিবন্ধনসহ ২৫ ধরনের সেবা পাওয়া যাবে সর্বোচ্চ সাত দিনে। তবে সবচেয়ে বেশি ৪৫ দিন সময় লাগবে নিরাপত্তা ছাড়পত্রের জন্য এসবির প্রতিবেদন পেতে।

বিধিমালা কার্যকর করতে কেন্দ্রীয় ওয়ান স্টপ সার্ভিস কর্তৃপক্ষ গঠন করা হবে। বেজার নির্বাহী চেয়ারম্যান পদাধিকার বলে এর প্রধান হবেন। বেজার বোর্ডের একজন সদস্য, প্রত্যেক সেবা প্রদানকারী সংস্থার মনোনীত ফোকাল পয়েন্ট এই কর্তৃপক্ষের সদস্য হবেন। বেজার ব্যবস্থাপক হবেন সদস্য সচিব। এ কমিটি আবেদনকারীকে প্রয়োজনীয় পরামর্শ ও সহায়তা দেবে। পাশাপাশি আঞ্চলিক ওয়ান স্টপ সার্ভিস কেন্দ্র গঠন করবে। বিনিয়োগকারীদের সহযোগিতা করতে একটি ওয়ান স্টপ সার্ভিস পোর্টাল স্থাপন করা হবে। এই পোর্টাল থেকে আবেদন ফরম ও অন্যান্য তথ্য সহজে পাওয়া যাবে। এই কর্তৃপক্ষের অধীনে থাকবে ওয়ান স্টপ সার্ভিস কেন্দ্র।

বিনিয়োগকারীদের জন্য সব ধরনের সেবা এক ছাতার নিচে আনতে ওয়ান স্টপ সার্ভিস আইন জাতীয় সংসদে পাস হয় গত ফেব্রুয়ারি মাসে। বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ, বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অঞ্চল কর্তৃপক্ষ, বাংলাদেশ রফতানি প্রক্রিয়াকরণ কর্তৃপক্ষ এবং বাংলাদেশ হাইটেক পার্ক কর্তৃপক্ষ ‘কেন্দ্রীয় ওয়ান স্টপ সার্ভিস কর্তৃপক্ষ’ হিসেবে দায়িত্ব পালন করবে।

এসআই/এনএফ/জেআইএম

আপনার মতামত লিখুন :