ইন্দোনেশিয়ার সঙ্গে পাঁচ বিলিয়ন ডলার বাণিজ্য চান মন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০১:৪৫ এএম, ১১ মার্চ ২০১৯

বর্তমানে বাংলাদেশ ও ইন্দোনেশিয়ার মধ্যে দুই বিলিয়ন ডলারের বাণিজ্য সম্পর্ক রয়েছে জানিয়ে বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেছেন, ‘আগামী তিন বছরের মধ্যে দুই দেশের মধ্যকার বাণিজ্যের পরিমাণ পাঁচ বিলিয়ন ডলার নিয়ে যেতে হবে।’

রোববার রাজধানীর গুলশানে অবস্থিত ওয়েস্টিন হোটেলে এক নৈশভোজে অংশ নিয়ে এ অভিমত ব্যক্ত করেন তিনি।

ইন্দোনেশিয়া-বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজ সভাপতি এবং পরিচালনা পর্ষদের সম্মানে এ নৈশভোজের আয়োজন করা হয়।

jagonews

নৈশভোজে প্রধান অতিথির বক্তব্যে টিপু মুনশি বলেন, ‘বর্তমানে বাংলাদেশ ও ইন্দোনেশিয়ার মধ্যকার বাণিজ্যের পরিমাণ ৩ বিলিয়ন ডলার। আগামী তিন বছরের মধ্যে এ বাণিজ্যের পরিমাণ ৫ বিলিয়ন ডলার হলে এ নৈশভোজ আমার কাছে অধিক সম্মানের হবে। আমরা ইন্দোনেশিয়ায় ২.৫ বিলিয়ন ডলার রফতানি করব এবং ২.৫ বিলিয়ন ডলার আমদানি করব।’

তিনি বলেন, ‘ইন্দোনেশিয়া একটি বৃহৎ বাজার। তাদের মাথাপিছু আয় নিঃসন্দেহে আমাদের থেকে বেশি। একটা সময় আমরা ইন্দোনেশিয়া থেকে ফেব্রিক্স আমদানি করতাম। এখন আমরা ফেব্রিক্স রফতানি করি। তৈরি পোশাক রফতানি করছি।’

ইন্দোনেশিয়া-বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজের নতুন কমিটির ওপর সন্তোষ প্রকাশ করে বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, ‘আমার বিশ্বাস এ কমিটি তিন বছরের মধ্যে ৫ বিলিয়ন ডলারের বাণিজ্য লক্ষ্যমাত্রা পূরণ করতে সক্ষম হবে।’

নৈশভোজে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে বাংলাদেশে নিযুক্ত ইন্দোনেশিয়ার রাষ্ট্রদূত রিনা পি সোয়েমারনো বলেন, ‘ইন্দোনেশিয়া সাউথ এশিয়ার মধ্যে বৃহৎ অর্থনৈতিক দেশ। যার জিডিপি পরিমাণ এক ট্রিলিয়ন ইউএস ডলার। জনসংখ্যা ২৬০ মিলিয়ন। ইন্দোনেশিয়া বিশ্বের ১৬তম বৃহৎ অর্থনৈতিক দেশ।’

তিনি বলেন, ‘২০১৮ সালে ইন্দোনেশিয়ার অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি হয়েছে ৫.১৭ শতাংশ। আর রফতানি হয়েছে ১৮০ বিলিয়ন ইউএস ডলার, যা ২০১৭ সালের তুলনায় ৬ দশমিক ৬৭ শতাংশ বেশি।’

ইন্দোনেশিয়া-বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজ আয়োজিত এ নৈশভোজে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের নবনির্বাচিত মেয়র আতিকুল ইসলাম এবং ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন এফবিসিসিআইয়ের সভাপতি শফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন অংশ নেন।

ইন্দোনেশিয়া-বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজের নতুন কমিটিতে সভাপতি হিসেবে রয়েছেন মোহাম্মদ রিয়াদ আলী। সহ-সভাপতি সৈয়দ মুস্তাফিজুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা কামরুস সোবহান এবং কোষাধ্যক্ষ মোহাম্মদ ইফতেখার জুনায়েদ নির্বাচিত হয়েছেন।

এ ছাড়া পরিচালক হিসেবে আছেন শাকির আহমেদ, আসিফ, মনির হোসেন, মুদাসির মইন, নিজাম উদ্দিন, লুতফর রহমান, মোহাম্মদ মহসীন এবং মাজহার আলী মাসুদ।

এমএএস/এনডিএস/

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]