‘বড় উদ্যোক্তাদের পাশাপাশি ক্ষুদ্র ও মাঝারিদের দিকে নজর দিন’

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৫:৩১ পিএম, ১৬ মার্চ ২০১৯

দেশে কার্যরত ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানের উদ্দেশে শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন বলেছেন, বড় বড় শিল্প প্রতিষ্ঠানের পাশাপাশি ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোক্তাদের (এসএমই) দিকে নজর দিন। ক্ষুদ্র উদ্যোক্তাদের সহজে ও কম সুদে ঋণ বাড়িয়ে দিন। এতে আমাদের কর্মসংস্থান বাড়বে।

শনিবার রাজধানীর আগারগাঁওয়ে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে এসএমই ফাউন্ডেশন আয়োজিত ৭ম জাতীয় এসএমই মেলা-২০১৯ এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি।

শিল্পমন্ত্রী বলেন, এসএমই পণ্যের উন্নয়ন বিষয়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান পাকিস্তান আমলেই চিন্তা করেছেন। পরে যখনই সুযোগ পেয়েছেন, তখনই ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প সংস্থা গড়ে তুলেছেন। আজ সেখানে আমাদের কাজের অনেক সুযোগ আছে।

তিনি বলেন, ‘ক্ষুদ্র উদ্যোক্তারা বাংলাদেশের অর্থনীতিতে বিশেষ অবদান রাখছেন। আমরা ১ কোটি ২১ লাখ কর্মসংস্থান সৃষ্টির অঙ্গীকার করেছি। এসএমই ফাউন্ডেশনের মাধ্যমে স্ব স্ব দক্ষতায় উদ্যোক্তা ও কর্মসংস্থান সৃষ্টি করায় তাদের ধন্যবাদ জানাই।’

তিনি আরও বলেন, ‘শেখ হাসিনার সরকার নারীদের উন্নয়নে প্রাধান্য দিয়ে থাকে। এসএমই’র মাধ্যমে নারী জাগরণ হচ্ছে। এক সময় নারীরা স্বামীদের উপর নির্ভর ছিলেন। আত্মনির্ভরশীলতা ছিল না। আজ তারা উপার্জনক্ষম হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে সম্মানিতও হচ্ছেন। এটা একটা বিশাল অর্জন। এটার বিস্তৃতি আরও বাড়াতে হবে।’

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে শিল্প প্রতিমন্ত্রী কামাল আহমেদ মজুমদার বিদেশিদের কাছে এসএমই পণ্যকে পরিচিত করতে দেশের বিমানবন্দর, বিদেশি দূতাবাসগুলোতে এসএমই পণ্য প্রদর্শনীর জন্য সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের প্রতি আহ্বান জানান।

অনুষ্ঠানে ৬টি ক্যাটাগরিতে জাতীয় এসএমই উদ্যোক্তা পুরস্কার-২০১৯ প্রদান করা হয়। পুরস্কারপ্রাপ্তরা হলেন- তাহারিমা বেগম (নুর নকশী মহিলা জাগরণ), মো. ওলি উল্লাহ (জনতা ইঞ্জিনিয়ারিং), সুমনা সুলতানা সাথী (এস আর হ্যান্ডিক্রাফটস), মহিউদ্দিন (মহিউদ্দিন ইঞ্জিনিয়ার্স অ্যান্ড ট্রেডার্স), নাজমা খাতুন (কুসুম কলি সু ফ্যাক্টরি) ও বিশেষ ক্যাটাগরিতে আরিফা ইয়াসমিন ময়ুরী (সিড়ি হস্তশিল্প)।

এ বছর সারা দেশ থেকে ২৮০টি প্রতিষ্ঠান তাদের উৎপাদিত পণ্য নিয়ে মেলায় অংশগ্রহণ করেছে। উদ্যোক্তাদের মধ্যে ১৮৮ জন নারী এবং ৯২ জন পুরুষ।

মেলায় দেশে উৎপাদিত পাটজাত পণ্য, খাদ্য ও কৃষি প্রক্রিয়াজাত পণ্য, চামড়াজাত সামগ্রী, ইলেকট্রিক্যাল ও ইলেকট্রনিকস সামগ্রীসহ বেশ কয়েকটি পণ্য প্রদর্শিত ও বিক্রয় হচ্ছে। ১৬ মার্চ থেকে শুরু হওয়া এ মেলা চলবে আগামী ২২ মার্চ পর্যন্ত। সকাল ১০টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত সবার জন্য উন্মুক্ত থাকবে এই মেলা।

এমইউএইচ/এমএমজেড/এমকেএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]