সাড়ে চার হাজার কোটি টাকা মূলধন হারিয়েছে ডিএসই

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৪:১৬ পিএম, ২২ মার্চ ২০১৯

গত সপ্তাহের চার কার্যদিবসের মধ্যে তিন কার্যদিবসেই দরপতন হয়েছে দেশের শেয়ারবাজারে। এতে প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) বাজার মূলধন হারিয়েছে সাড়ে চার হাজার কোটি টাকার উপরে। সেই সঙ্গে কমেছে প্রধান মূল্য সূচক ও লেনদেনের পরিমাণ।

সপ্তাহের শেষ কার্যদিবস শেষে ডিএসইর বাজার মূলধন দাঁড়িয়েছে ৪ লাখ ১৪ হাজার ৯০৭ কোটি টাকা। যা তার আগের সপ্তাহের শেষ কার্যদিবসে ছিল ৪ লাখ ১৯ হাজার ৬৫৯ কোটি টাকা। অর্থাৎ এক সপ্তাহে ডিএসইর বাজার মূলধন কমেছে ৪ হাজার ৭৫২ কোটি টাকা।

এদিকে গত সপ্তাহজুড়ে ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স কমেছে ৫২ দশমিক ৬৬ পয়েন্ট বা দশমিক ৯৩ শতাংশ। আগের সপ্তাহে এ সূচকটি কমে ৩৪ পয়েন্ট বা দশমিক ৫৯ শতাংশ।

অপর দুটি মূল্য সূচকের মধ্যে গত সপ্তাহে ডিএসই-৩০ আগের সপ্তাহের তুলনায় বেড়েছে দশমিক ৯ পয়েন্ট। আগের সপ্তাহে এ সূচকটি কমে ৩ দশমিক ৫৩ পয়েন্ট বা দশমিক ১৮ শতাংশ।

আর ডিএসই শরিয়াহ্ সূচক গত সপ্তাহে কমেছে ২ দশমিক ৪৯ পয়েন্ট বা দশমিক ১৯ শতাংশ। আগের সপ্তাহে এ সূচকটি বাড়ে ১ দশমিক ৭৩ পয়েন্ট বা দশমিক ১৩ শতাংশ।

গত সপ্তাহজুড়ে ডিএসইতে লেনদেন হওয়া ৩৫০টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের মধ্যে ১০৫টির দাম আগের সপ্তাহের তুলনায় বেড়েছে। অপরদিকে দাম কমেছে ২২৩টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ২২টির দাম।

এদিকে সপ্তাহের প্রতি কার্যদিবসে ডিএসইতে গড়ে লেনদেন হয়েছে ৪৩০ কোটি ৪ লাখ টাকা। আগের সপ্তাহে প্রতিদিন গড়ে লেনদেন হয় ৫৭৬ কোটি ৮২ লাখ টাকা। অর্থাৎ প্রতি কার্যদিবসে গড় লেনদেন কমেছে ১৪৬ কোটি ৭৮ লাখ টাকা বা ২৫ দশমিক ৪৫ শতাংশ।

আর গত সপ্তাহজুড়ে ডিএসইতে মোট লেনদেন হয়েছে ১ হাজার ৭২০ কোটি ১৬ লাখ টাকা। আগের সপ্তাহে লেনদেন হয় ২ হাজার ৮৮৪ কোটি ১১ লাখ টাকা। সে হিসাবে মোট লেনদেন কমেছে ১ হাজার ১৬৩ কোটি ৯৫ লাখ টাকা বা ৪০ দশমিক ৩৬ শতাংশ। গত সপ্তাহে এক কার্যদিবস কম লেনদেন হওয়ার কারণে মোট লেনদেন কমার হার বেশি।

গত সপ্তাহে মোট লেনদেনের ৯২ দশমিক ৪২ শতাংশই ছিল ‘এ’ ক্যাটাগরিভুক্ত কোম্পানির শেয়ারের দখলে। এ ছাড়া বাকি ৫ দশমিক ৩৬ শতাংশ ‘বি’ ক্যাটাগরিভুক্ত, ১ দশমিক ২৬ শতাংশ ‘এন’ ক্যাটাগরিভুক্ত কোম্পানির শেয়ারের এবং দশমিক ৯৫ শতাংশ ‘জেড’ ক্যাটাগরিভুক্ত কোম্পানির শেয়ারের।

সপ্তাহজুড়ে ডিএসইতে টাকার অঙ্কে সবচেয়ে বেশি লেনদেন হয়েছে ব্রিটিশ আমেরিকান টোব্যাকো বাংলাদেশ কোম্পানির শেয়ার। কোম্পানিটির ৯৮ কোটি ৩৬ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। যা সপ্তাহজুড়ে হওয়া মোট লেনদেনের ৫ দশমিক ৭২ শতাংশ।

দ্বিতীয় স্থানে থাকা ব্র্যাক ব্যাংকের শেয়ার লেনদেন হয়েছে ৯৪ কোটি ২৩ লাখ টাকা, যা সপ্তাহের মোট লেনদেনের ৫ দশমিক ৪৮ শতাংশ। ৭৪ কোটি ৭৫ টাকার শেয়ার লেনদেনে তৃতীয় স্থানে রয়েছে ইউনাইটেড পাওয়ার জেনারেশন।

লেনদেনে এরপর রয়েছে- ডাচ-বাংলা ব্যাংক, স্কয়ার ফার্মাসিউটিক্যাল, মুন্নু সিরামিক, মেরিকো বাংলাদেশ, সিঙ্গার বাংলাদেশ, গ্রামীণফোন এবং আফিল ইন্ডাস্ট্রিজ।

এমএএস/এনডিএস/পিআর