চকবাজার জিঞ্জিরার পণ্য পিংক সিটিতে বিদেশি ব্র্যান্ড

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৭:১৪ পিএম, ২৬ মে ২০১৯

রাজধানীর গুলশান-২ এর পিংক সিটি শপিং কমপ্লেক্স। যেখানে চকবাজার ও জিঞ্জিরার পণ্য হয়ে যাচ্ছে বিদেশি সব নামি-দামি ব্র্যান্ড। অবৈধ পন্থায় আনা ভারত, পাকিস্তানসহ বিভিন্ন দেশে পণ্যে ভরপুর বাজারটি। নামি-দামি সব ব্র্যান্ডের নামে বিক্রি করছে নকল বিদেশি কসমেটিক্স। নেই মূল্য তালিকা; ফলে ইচ্ছামতো নিচ্ছেন দাম। ঠকছেন ভোক্তা।

রোববার জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতরের বিশেষ অভিযানে বেরিয়ে আসে এসব তথ্য। এ অপরাধে পিংক সিটির ২৫ প্রতিষ্ঠানকে ভোক্তা আইনের বিভিন্ন ধারায় তিন লাখ ৩০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

অভিযান সার্বিক তত্ত্বাবধান করেন অধিদফতরের ঢাকা বিভাগীয় কার্যালয়ের উপ-পরিচালক মনজুর মোহাম্মদ শাহরিয়ার। অভিযান পরিচালনা করেন ঢাকা বিভাগের কার্যালয় সহকারী পরিচালক আফরোজা রহমান এবং সহকারী পরিচালক আতিয়া সুলতানা।

Pink-city2

মনজুর মোহাম্মদ শাহরিয়ার জাগো নিউজকে বলেন, ‘গুলশানের পিংক সিটি একটি স্বনামধন্য প্রতিষ্ঠান; এখানে বেশিরভাগ বিদেশি ব্র্যান্ডের পণ্য বিক্রি করে। বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানে শাড়ি, থ্রি-পিস, কসমেটিক্স ও খেলনাসহ বিভিন্ন পণ্য বিদেশি বলে বিক্রি করছে। কিন্তু আমদানিকারকের কোনো স্টিকার নেই। তথ্যও দিতে পারছে না।’

তিনি বলেন, এটি আসলে বিদেশি নাকি দেশি নকল পণ্য। যদি বিদেশি হয়েও থাকে তাহলে অবৈধ পন্থায় ভ্যাট ফাঁকি দিয়ে এনেছে। বিদেশি ব্র্যান্ডের কসমেটিক্স বিক্রি করছে, যার আমদানিকারকের স্টিকার নেই ও বৈধ কোনো কাগজপত্র নেই। এটি আসলে বিদেশি নাকি নকল পণ্য এটিও নিশ্চিত হওয়ার কোনো উপায় নেই।

‘এখানে যেসব খেলনা বিদেশি বলে বিক্রি করছে তার বেশিরভাগই এনেছে চকবাজার জিঞ্জিরা থেকে, যা তারা বিদেশি বলে ইচ্ছামতো মূল্য লিখে বিক্রি করছে। এতে ভোক্তারা ঠকছে, যা আইন অনুযায়ী দণ্ডনীয় অপরাধ। এ অপরাধে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইন-২০০৯ এর বিভিন্ন ধারায় ২৫ প্রতিষ্ঠানকে তিন লাখ ৩০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।’

Pink-city3

এর মধ্যে সেলিব্রেশনকে ৫০ হাজার টাকা, জেমস গ্যালারিকে ৫০ হাজার, পরী শাড়িকে ১০ হাজার, ভিবা বাড়িকে ১০ হাজার, সাবরিনাকে ১০ হাজার, স্রোতধারাকে ১০ হাজার, মানা বিকে ১০ হাজার, নিডেন ওয়ার্ককে ১০ হাজার ও কুন্দনকে ১০ হাজার। রেইনবো পারফিউম অ্যান্ড কসমেটিক্সকে ১০ হাজার, ডানহিল অপটিক্সকে ১০ হাজার, কিডস ওয়েকে ১০ হাজার, হীরা ফেব্রিক্সকে ৫ হাজার, গোল্ডেন ওয়াল্ডকে ১০ হাজার, অঞ্জলি জুয়েলার্সকে ১০ হাজার, সাবিহা ফ্যাশন ১০ হাজার, ভিভো ১০ হাজার, সিমরান ডিজাইনারকে ৫ হাজার, গয়না ঘরকে ৫ হাজার, স্টাইল ওয়ার্ল্ডকে ২০ হাজার, আব্রুজ ৫ হাজার, পরিণীতা গোল্ডকে ১০ হাজার, কিওর জুয়েলার্স ১০ হাজার, বায়েজিদ এন্টারপ্রাইজ ১০ হাজার, শোভা ফেব্রিক্সকে ১০ হাজার ডালিমসকে ১০ হাজার টাকাসহ ২৫ প্রতিষ্ঠানকে ৩ লাখ ৩০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

একই সঙ্গে প্রতিষ্ঠানগুলোকে সতর্ক করা হয়েছে। পরবর্তীতে এ ধরনের অপরাধ করলে আইন অনুযায়ী তাদের দ্বিগুণ জরিমানাসহ সিলগালা করে দেয়া হবে বলে জানান তারা। বাজার অভিযানের সার্বিক সহযোগিতা করেন আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ন (এপিবিএন)- ১১ এর সদস্যরা।

এসআই/এমআরএম/পিআর

আপনার মতামত লিখুন :