যোগ্য এমডি পায়নি ডিএসই

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৯:২৬ পিএম, ০২ সেপ্টেম্বর ২০১৯

ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) হতে ১৬ জন আবেদন করলেও তাদের কাউকে যোগ্য মনে করছে না দেশের প্রধান এ শেয়ারবাজারের পরিচালনা পর্ষদ। যে কারণে যোগ্য এমডি খুঁজে পেতে আবারও বিজ্ঞাপন দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

সোমবার (২ সেপ্টেম্বর) অনুষ্ঠিত ডিএসইর পরিচালনা পর্ষদ সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয় বলে পর্ষদের একাধিক সদস্য জাগো নিউজকে নিশ্চিত করেন।

ডিএসইর পর্ষদ সূত্র জানায়, চলতি বছরের ১১ জুলাই ডিএসইর এমডি পদ শূন্য হয়। শূন্য পদ পূরণে নতুন এমডির খোঁজে গত ৭ আগস্ট বিজ্ঞাপন প্রকাশ করা হয়। বিজ্ঞাপনে ১ সেপ্টেম্বরের মধ্যে আগ্রহীদের আবেদন করতে বলা হয়।

বিজ্ঞাপন দেয়ার পর ১৬ জন আবেদন করেন। সোমবার (২ সেপ্টেম্বর) পরিচালনা পর্ষদ সভার মাধ্যমে আবেদনকারীদের তালিকা সংগ্রহ করা হয়। তবে যারা এমডি হতে আবেদন করেছেন তাদের কাউকে যোগ্য মনে করেনি ডিএসইর পর্ষদ। এ জন্য শিগগিরই এমডির জন্য আবারও বিজ্ঞাপন দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, ব্যবস্থাপনা থেকে মালিকানা পৃথকীকরণে ডিমিউচ্যুয়ালাইজেশন স্কিমের পর দ্বিতীয় ব্যবস্থাপনা পরিচালক হিসেবে ২০১৬ সালের ২৯ জুন নিয়োগ পান কে এ এম মাজেদুর রহমান। তার মেয়াদ শেষ হয়েছে গত ১১ জুলাই। এরপর থেকেই পদটি খালি।

এমডির বিষয়ে পর্ষদ সভার সিদ্ধান্ত জানতে চাইলে ডিএসইর পরিচালক মিনহাজ মান্নান ইমন জাগো নিউজকে বলেন, ডিএসইর এমডি হতে ১৬ জনের মতো আবেদন করেছেন। এসব আবেদন পর্যালোচনা করা হচ্ছে। এ বিষয়ে এখনই কথা বলার মতো তেমন কিছু নেই।

এদিকে ডিএসইতে এমডি পদে যোগ দেয়ার পর বিদেশ ভ্রমণ, কর্মকর্তাদের পদোন্নতিসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে নানা বিতর্কের জন্ম দেন মাজেদুর রহমান। এরপরও ডিএসইর পর্ষদ থেকে মাজেদুর রহমানকে এমডি পদে পুনরায় নিয়োগ চেয়ে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনে (বিএসইসি) আবেদন করা হয়। তবে নিয়ন্ত্রক সংস্থা ডিএসইর ওই প্রস্তাব বাতিল করে দেয়। এর প্রেক্ষিতেই নতুন এমডি খোঁজা শুরু করে ডিএসই।

ডিএসইর পাশাপাশি দেশের অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জেও এমডি পদ শূন্য। ফলে ভারপ্রাপ্ত ব্যবস্থাপনা পরিচালক দিয়েই চলছে দেশের দুই স্টক এক্সচেঞ্জের কার্যক্রম। ডিএসইর প্রধান অর্থ কর্মকর্তা (সিএফও) আবদুল মতিন পাটোয়ারী বর্তমানে স্টক এক্সচেঞ্জের ভারপ্রাপ্ত এমডি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।

অপরদিকে সিএসইর এমডি হিসেবে এম সাইফুর রহমান মজুমদার ২০১৬ সালের ১৯ মে নিয়োগ পান। তিনি স্টক এক্সচেঞ্জটির ডিমিউচ্যুয়ালাইজেশন পরবর্তী তৃতীয় এমডি। তার আগে সিএসইর এমডি ছিলেন ওয়ালি উল-মারুফ মতিন। তিন বছরের দায়িত্ব পালনে চলতি বছরের ৩১ মে এম সাইফুর রহমান মজুমদারের মেয়াদ শেষ হয়।

সিএসইর পর্ষদ তাকে দ্বিতীয় মেয়াদের জন্য সুপারিশ করেনি। এর পরিবর্তে এক্সচেঞ্জটি এ পর্যন্ত দুই দফা এমডি নিয়োগের জন্য বিজ্ঞপ্তি দিয়েছে। কিন্তু যোগ্য প্রার্থী না পাওয়ায় এক্সচেঞ্জটির মহাব্যবস্থাপক মো. গোলাম ফারুককে ভারপ্রাপ্ত ব্যবস্থাপনা পরিচালক করে সিএসইর কার্যক্রম চলছে।

এমএএস/আরএস/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]