দেশি-বিদেশি দর্শনার্থীদের পদচারণায় মুখর সিরামিক প্রদর্শনী

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১১:৫৩ এএম, ০৬ ডিসেম্বর ২০১৯

রাজধানীর বসুন্ধরা আন্তর্জাতিক কনভেনশন সেন্টারে (আইসিসিবি) দ্বিতীয় দিনের মতো চলছে সিরামিক পণ্যের প্রদর্শনী। দেশি-বিদেশি প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধি, দর্শনার্থী ও প্রদর্শকের পদচারণায় মুখর হয়ে উঠেছে এই প্রদর্শনী।

বাংলাদেশ সিরামিক ম্যানুফ্যাকচারার্স অ্যান্ড এক্সপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশন এই প্রদর্শনীর আয়োজন করেছে। আয়োজকরা জানান, এই প্রদর্শনীতে বিশ্বের ২০টি দেশের ১২০টি প্রদর্শক, ১৫০টি ব্র্যান্ড ও ৫০০ বাইয়ার অংশ নিয়েছে। কনভেনশন সেন্টারের চারটি হলে তারা তাদের পণ্য প্রদর্শন করেছে এই প্রদর্শনীতে।

Ceramic-4.jpg

বৃহস্পতিবার (৫ ডিসেম্বর) শুরু হওয়া এই প্রদর্শনী শনিবার (৭ ডিসেম্বর) শেষে হবে। প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত সবার জন্য উন্মুক্ত রয়েছে এই প্রদর্শনী।

শুক্রবার প্রদর্শনী ঘুরে দেখা যায়, দর্শনার্থীরা ঘুরে ঘুরে সিরামিকের পণ্য দেখছেন। প্রদর্শকদের কাছে বিভিন্ন বিষয়ে জানতেও চাচ্ছেন তারা। আবার অনেক সিরামিক প্রতিষ্ঠানের লোকজনও এখানে এসেছেন। তারাও প্রয়োজন অনুযায়ী পণ্য সম্পর্কে বিস্তারিত জানার চেষ্টা করছেন।

Ceramic-4.jpg

সিরামিক প্রদর্শনীতে ঘুরতে এসে কামরুজ্জামান কানন নামে এক দর্শনার্থী বলেন, ‘এখানে এসে মানসম্পন্ন সিরামিকের পণ্য দেখতে পেলাম। বিভিন্ন রকমের পণ্য এখানে হাজির করা হয়েছে। মেলায় এসে ভালো লাগছে।’

প্রদর্শনীর বিষয়ে ভারতীয় কোম্পানি এক্সসেলের জেনারেল ম্যানেজার (কমার্শাল অ্যান্ড ফাইন্যান্স) দীপক ভন্দয়াত জাগো নিউজকে বলেন, ‘আমাদের লক্ষ্য বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের লোকজন। যারা আমাদের পণ্য দেখবে, জানতে চাইবে। আর এই সিরামিক এক্সপোতে সাধারণ মানুষের আগমন অনেক। কিছু কিছু কোম্পানির লোকও আসছে। যারা আমাদের পণ্য সম্পর্কে জানতে চাইছে। আমরা তাদেরকে বিস্তারিত বলছি।’

Ceramic-4.jpg

মন্নো সিরামিক ইন্ডাস্ট্রিজের অ্যাসিসট্যান্ট জেনারেল ম্যানেজার (সেলস অ্যান্ড মার্কেটিং) মো. খোকন মিয়া জাগো নিউজকে বলেন, ‘সিরামিক্স এক্সপো ২০১৭ সাল থেকে শুরু হয়েছে। এবার দ্বিতীয়বারের মতো হচ্ছে। গতবারের তুলনায় এবার ভালো সাড়া পাওয়া যাচ্ছে। এবার যে আয়োজনটা করেছে সেটাও সুন্দর। বিশ্বের অনেকগুলো দেশ থেকে সাপ্লাইয়ার, বাইয়ার বাংলাদেশে এসেছে। বাংলাদেশে এই সিরামিক এক্সপোর উজ্জ্বল ভবিষ্যৎ রয়েছে বলে আমি মনে করি।’

পিডি/এমএসএইচ/এমএস