টানা ৩ সপ্তাহ ঊর্ধ্বমুখী শেয়ারবাজার, মূলধন বাড়লো ২৩ হাজার কোটি

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৩:২৩ পিএম, ২১ জানুয়ারি ২০২২

নতুন বছর ২০২২ সালের শুরুতে বেশ চাঙ্গা হয়ে উঠেছে দেশের শেয়ারবাজার। প্রায় প্রতিদিনই বাড়ছে মূল্যসূচক। সেইসঙ্গে লেনদেনের গতিও বেড়েছে। নতুন বছরের প্রথম দুই সপ্তাহের মতো গেল সপ্তাহও ঊর্ধ্বমুখী ছিল দেশের শেয়ারবাজার। এতে গেল সপ্তাহের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) বাজার মূলধন প্রায় আড়াইশ কোটি টাকা বেড়ে গেছে। ফলে নতুন বছরের প্রথম দিন সপ্তাহেই বাজার মূলধন বাড়ল ২৩ হাজার কোটি টাকার ওপরে।

গেল সপ্তাহের শেষ কার্যদিবসের লেনদেন শেষে ডিএসইর বাজার মূলধন দাঁড়িয়েছে ৫ লাখ ৬৫ হাজার ২৩৫ কোটি টাকা। যা তার আগের সপ্তাহের শেষ কার্যদিবসে ছিল ৫ লাখ ৬৪ হাজার ৯৯৬ কোটি টাকা। অর্থাৎ গেল সপ্তাহে ডিএসইর বাজার মূলধন বেড়েছে ২৩৯ কোটি টাকা। আগের দুই সপ্তাহে বাজার মূলধন বাড়ে ২২ হাজার ৮০০ কোটি টাকা। এ হিসেবে নতুন বছরের প্রথম তিন সপ্তাহে বাজার মূলধন বাড়ল ২৩ হাজার ৩৯ কোটি টাকা।

বাজার মূলধন বাড়া বা কমার অর্থ তালিকাভুক্ত প্রতিষ্ঠানগুলোর শেয়ার ও ইউনিটের দাম সম্মেলিতভাবে ওই পরিমাণ বেড়েছে বা কমেছে। অর্থাৎ বাজার মূলধন বাড়লে বিনিয়োগকারীদের বিনিয়োগ করা অর্থের পরিমাণ বেড়ে যায়। একইভাবে বাজার মূলধন কমলে বিনিয়োগকারীদের বিনিয়োগ করা অর্থের পরিমাণ কমে যায়।

বাজার মূলধন বাড়ার পাশাপাশি গেল সপ্তাহে ডিএসইতে বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম বেড়েছে। সপ্তাহজুড়ে ডিএসইতে লেনদেনে অংশ নেয়া ২২৪টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম বেড়েছে। বিপরীতে দাম কমেছে ১৩৯টির। আর ২৩টির দাম অপরিবর্তিত রয়েছে।

বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম বাড়ায় গত সপ্তাহে ডিএসইর প্রধান মূল্যসূচক ডিএসইএক্স বেড়েছে ৮৮ দশমিক ৪৬ পয়েন্ট বা ১ দশমিক ২৬ শতাংশ। বছরের প্রথম সপ্তাহে সূচকটি বাড়ে ২৩০ দশমিক ৭৯ পয়েন্ট বা ৩ দশমিক ৪২ শতাংশ। আর বছরের দ্বিতীয় সপ্তাহে বাড়ে ২৯ দশমিক ৭৮ পয়েন্ট বা দশমিক ৪৩ শতাংশ। অর্থাৎ চলতি বছরের প্রথম তিন সপ্তাহে ডিএসইর প্রধান মূল্যসূচক বাড়ল ৩৪৯ দশমিক শূন্য ৩ পয়েন্ট।

প্রধান মূল্যসূচকের পাশাপাশি টানা তিন সপ্তাহ বেড়েছে ইসলামী শরিয়াহ ভিত্তিতে পরিচালিত কোম্পানি নিয়ে গঠিত ডিএসই শরিয়াহ্ সূচক। গত সপ্তাহজুড়ে সূচকটি বেড়েছে ৬ দশমিক ৬৯ পয়েন্ট বা দশমিক ৪৫ শতাংশ। আগের সপ্তাহে সূচকটি বাড়ে ২৯ দশমিক ৫৬ পয়েন্ট বা ২ দশমিক শূন্য ১ শতাংশ। তার আগের সপ্তাহে বাড়ে ৪১ দশমিক শূন্য ৩ পয়েন্ট বা ২ দশমিক ৮৭ শতাংশ।

বাছাই করা ভালো কোম্পানি নিয়ে গঠিত ডিএসই-৩০ সূচকও বছরের প্রথম তিন সপ্তাহ টানা বেড়েছে। গেল সপ্তাহজুড়ে এ সূচকটি বেড়েছে ১৯ দশমিক শূন্য ৮ পয়েন্ট বা দশমিক ৭৩ শতাংশ। আগের সপ্তাহে সূচকটি বাড়ে ১৩ দশমিক ২২ পয়েন্ট বা দশমিক ৫১ শতাংশ। তার আগের সপ্তাহে বাড়ে ৭০ দশমিক ৫০ পয়েন্ট বা ২ দশমিক ৭৮ শতাংশ।

গত সপ্তাহের প্রতি কার্যদিবসে ডিএসইতে গড়ে লেনদেন হয়েছে ১ হাজার ৬৪৮ কোটি ৬৩ লাখ টাকা। আগের সপ্তাহে প্রতিদিন গড়ে লেনদেন হয় ১ হাজার ৫৬৬ কোটি ৪৮ লাখ টাকা। অর্থাৎ প্রতি কার্যদিবসে গড় লেনদেন বেড়েছে ৮২ কোটি ১৫ লাখ টাকা বা ৫ দশমিক ২৪ শতাংশ।

আর গত সপ্তাহজুড়ে ডিএসইতে মোট লেনদেন হয়েছে ৮ হাজার ২৪৩ কোটি ১৯ লাখ টাকা। আগের সপ্তাহে লেনদেন হয় ৭ হাজার ৮৩২ কোটি ৪৪ লাখ টাকা। সে হিসাবে মোট লেনদেন বেড়েছে ৪১০ কোটি ৭৫ লাখ টাকা বা ৫ দশমিক ২৪ শতাংশ।

গত সপ্তাহে ডিএসইতে টাকার অঙ্কে সব থেকে বেশি লেনদেন হয়েছে বেক্সিমকোর শেয়ার। সপ্তাহজুড়ে কোম্পানিটির শেয়ার লেনদেন হয়েছে ৬৯৬ কোটি ২৪ লাখ ১৬ হাজার টাকা, যা মোট লেনদেনের ৮ দশমিক ৪৫ শতাংশ। দ্বিতীয় স্থানে থাকা বাংলাদেশ শিপিং করপোরেশনের শেয়ার লেনদেন হয়েছে ৩৮৭ কোটি ৬৫ লাখ ৫ হাজার টাকা। ৩৬৯ কোটি ৯৬ লাখ ১৯ হাজার টাকা লেনদেনের মাধ্যমে তৃতীয় স্থানে রয়েছে ফরচুন সুজ।

এছাড়া লেনদেনের শীর্ষ দশ প্রতিষ্ঠানের তালিকায় রয়েছে- সাইফ পাওয়ার টেক, জিপিএইচ ইস্পাত, পাওয়ার গ্রিড, প্যারামাউন্ট টেক্সটাইল, আরএকে সিরামিক, ফারইস্ট ইসলামী লাইফ ইন্স্যুরেন্স এবং ওরিয়ন ফার্মা।

এমএএস/এমএএইচ/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]