সাক্ষরতার হার নিয়ে অসন্তোষ প্রতিমন্ত্রীর

জাগো নিউজ ডেস্ক
জাগো নিউজ ডেস্ক জাগো নিউজ ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৪:৫০ পিএম, ০৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯

গত এক বছরে নিরক্ষর মানুষের মধ্যে সাক্ষরতার হার এক শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে। এতে অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মো. জাকির হোসেন। তবে আগামী পাঁচ বছরে দেশে এক কোটি মানুষকে সাক্ষরতার আওতায় আনা হবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

বৃহস্পতিবার (৫ সেপ্টেম্বর) প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ে আন্তর্জাতিক সাক্ষরতা দিবস-২০১৯’ উদযাপন উপলক্ষে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা জানান।

লিখিত ব্যক্তব্যে প্রতিমন্ত্রী বলেন, আগামী ৮ সেপ্টেম্বর বিশ্বব্যাপী আন্তর্জাতিক সাক্ষরতা দিবস অনুষ্ঠিত হবে। এ বছর ইউনেস্কো থেকে ‘বহুভাষায় সাক্ষরতা, উন্নত জীবনের নিশ্চয়তা’ প্রতিপাদ্য নির্বাচন করা হয়েছে।

তিনি বলেন, বিভিন্ন কর্মসূচির মাধ্যমে ১৯৯৬ থেকে ২০০১ সাল পর্যন্ত প্রায় এক কোটি ৮০ লাখ নিরক্ষরকে অক্ষর জ্ঞান প্রদান করা হয়। দেশে বর্তমানে সাক্ষরতার হার ৭৩ দশমিক ৯ শতাংশে উন্নীত হয়েছে, যা ২০০৫ সালে তৎকালীন সরকারের সময় ছিল ৫৩ দশমিক ৫ শতাংশ। তবে গত এক বছরে যে হারে সাক্ষরতার হার বৃদ্ধি পেয়েছে তাতে তিনি সন্তোষ নন বলে জানান।

প্রতিমন্ত্রী আরও বলেন, আমরা মৌলিক সাক্ষরতা প্রকল্পের মাধ্যমে ৬৪ জেলায় নির্বাচিত ২৫০ উপজেলার ১৫-৪৫ বছর বয়সী ৪৫ লাখ নিরক্ষরকে সাক্ষরতা জ্ঞান প্রদান করেছি। ইতোমধ্যে এ প্রকল্পের মাধ্যমে প্রথম পর্যায়ে ১৩৪ উপজেলায় শিখন কেন্দ্রের মাধ্যমে ২৩ লাখ ৫৯ হাজার ৪৪১ নিরক্ষরকে সাক্ষরতা প্রদান করা হয়েছে।

জাকির হোসেন বলেন, দারিদ্র্য, অনগ্রসরতা, শিশুশ্রম, ভৌগোলিক প্রতিবন্ধকতার কারণে এখনও অনেক শিশু বিদ্যালয়ে যায় না। উপানুষ্ঠানিক শিক্ষাব্যবস্থায় এসব শিশুর প্রাথমিক শিক্ষা নিশ্চিত করতে পিইডিপি-৪ এর আওতায় ৮-১৪ বছর বয়সী বিদ্যালয় বহির্ভূত ১০ লাখ শিশুকে উপানুষ্ঠানিক প্রাথমিক শিক্ষা প্রদানের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। বর্তমানে দেশে ৩ কোটি ২৫ লাখ নিরক্ষর মানুষ রয়েছে বলে জানান প্রতিমন্ত্রী।

সচিব আকরাম আল হোসেন বলেন, এসডিজি-৪ এর লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে উপানুষ্ঠানিক শিক্ষার আওতায় ১৫ বছরের ঊর্ধ্বে ৫০ লাখ নিরক্ষরকে মৌলিক সাক্ষরতা প্রদান, ১৫-৪৫ বছর বয়সী পাঁচ লাখ যুব ও বয়স্ক নতুন সাক্ষরতার আওতায় আনাসহ দক্ষতা অর্জনে তাদের উন্নয়ন প্রশিক্ষণ প্রদান করা হবে। এ জন্য ৫০০টি আইসিটি বেইজড স্থায়ী কমিউনিটি লার্নিং সেন্টার স্থাপন ও ৬৪ জেলায় ৬৪ জীবিকায়ন দক্ষতা উন্নয়ন প্রশিক্ষণ কেন্দ্র করা হবে।

তিনি আরও বলেন, বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে আগামী এক বছরে সারাদেশে ২০ লাখ মানুষকে সাক্ষরতার আওতায় আনা হবে বলেও জানান তিনি।

এমএইচএম/এএইচ/পিআর