শাহবাগ আন্দোলনের ইতিবৃত্ত নিয়ে বইমেলায় ‘গণজাগরণের দিনগুলি’

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৫:৫২ পিএম, ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০

শাহবাগ আন্দোলনের ইতিবৃত্ত নিয়ে বইমেলায় এফ এম শাহীনের লেখা ‘গণজাগরণের দিনগুলি’ প্রকাশ করেছে বাংলা জার্নাল। এটি বইমেলার ৫৩৩ নম্বর স্টলে পাওয়া যাচ্ছে।

দৈনিক ইত্তেফাকের নির্বাহী সম্পাদক ও প্রজন্ম-৭১ এর সভাপতি শাহীন রেজা নূরের এ বইয়ের ভূমিকায় বলা হয়েছে, ‘সত্যি বলতে দীর্ঘদিন ধরে বইয়ের বাজারে একটি বইয়ের অভাব দারুণভাবে অনুভব করছিলাম। অবশেষে এ সময়ের মুক্তিযুদ্ধের চেতনার মশাল বহনকারীদের অন্যতম এক তরুণ এফ এম শাহীন সে অভাব বা ঘাটতিটা পূরণ করতে এগিয়ে আসায় তাকে অন্তরের অন্তঃস্থল থেকে মোবারকবাদ জানাই। হ্যাঁ, আমি গণজাগরণ মঞ্চ বিষয়ক একটি বইয়ের কথাই বলছি। গণজাগরণ মঞ্চ গড়ে ওঠার পর অদ্যাবধি এর সৃষ্টি এবং বিকাশ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট কেউ বিস্তারিতভাবে কিছু লিখেছেন বলে জানা নেই।’

ভূমিকায় আরও বলা হয়েছে, ‘গণজাগরণ মঞ্চের উৎপত্তি এতদঞ্চলে বলতে গেলে সংবিৎহারা ও খানিকটা দিকভ্রষ্ট জাতির জন্য মহাজাগরণরূপেই প্রতিভাত হয়েছিল। একাত্তরে বাঙালির সুপ্ত চেতনা যেমন ভিসুভিয়াসের বিশ্বধ্বংসী অগ্নিস্রাবের মতো দেখা দিয়েছিল, তারই প্রতিরূপটি যেন আবার আমরা দেখতে পেলাম এই গণজাগরণ মঞ্চের আবির্ভাবের মধ্য দিয়ে। একাত্তরে যারা বয়সের স্বল্পতা বা আধিক্যের কারণে সশরীরে মুক্তিযুদ্ধে অংশ নিতে না পেরে হায় আফসোস করে ফিরত, এই গণজাগরণ মঞ্চের অভ্যুদয়ের পর এর সঙ্গে একাত্ম হয়ে বা সক্রিয়ভাবে অংশগ্রহণ করে তাদের অনেকেরই সেই আক্ষেপ অনেকটাই মিটে যেতে দেখেছি।’

এফ এম শাহীন সংক্ষিপ্ত আকারে হলেও গণজাগরণ মঞ্চের প্রথম থেকে শেষ অবধি যে বিবরণ এই বইটিতে লিপিবদ্ধ করেছেন, তা গবেষকদের তো বটেই, এমনকি যেকোনো সহৃদয় ও অনুসন্ধিৎসু পাঠককেও পরিতৃপ্তি দেবে। যদিও এ বিষয়ে আরও বিস্তারিত বিবরণ ও পুঙ্খানুপুঙ্খ বিশ্লেষণ সংযোজনের আবশ্যকতা রয়েছে, তথাপি এফ এম শাহীন রচিত এই বইটিকে খাটো করে দেখার কোনো অবকাশ নেই। বরং এটিই এ বিষয়ে আগামীতে যেকোনো রচনা বা লেখালেখির মূলভিত্তি হিসেবেই যে কাজ করবে।

তার লেখায় মুনশিয়ানার ছাপ স্পষ্ট। সর্বোপরি মুক্তিযুদ্ধ, বঙ্গবন্ধু এবং বাঙালি জাতীয়তাবাদী চেতনা বিষয়ে তার মন যে কত সংবেদনশীল তা বইয়ের ছত্রে ছত্রে বিধৃত।

এইচএস/এমএসএইচ/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]