ছবির সংকট, শাকিবের প্রতিদ্বন্দ্বী শাকিব

বিনোদন প্রতিবেদক
বিনোদন প্রতিবেদক বিনোদন প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০২:২৪ পিএম, ১৬ মার্চ ২০১৯

হতাশা দিয়ে শুরু হয়েছে বছর। পুরো তিন মাস শেষ হতে চললো। দশটির মতো ছবিও মুক্তি পায়নি। তারচেয়েও বড় হতাশার খবর হলো এখনো একটিও ব্যবসা সফল সিনেমার মুখ দেখেনি ইন্ডাস্ট্রি।

দেশীয় নির্মাণ, সাফটা, যৌথ প্রযোজনা; কোনো উপায়েই আসেনি ব্যবসা সফল ছবি। যদিও গল্প, নির্মাণ ও অভিনয়শিল্পীদের অভিনয়ের জন্য প্রশংসিত হয়েছে ‘আমার প্রেম আমার প্রিয়া’, ‘ফাগুন হাওয়ায়’ ও ‘যদি একদিন’ ছবিগুলো।

কিন্তু দুঃখের ব্যাপার হলো মার্চ মাস চলে এলেও আগামী পহেলা বৈশাখে মুক্তি দেয়ার মতো কোনো সিনেমা তৈরি নেই। আসছে রোজার ঈদেও দেখা যাবে সিনেমার সংকট। সেন্সর বোর্ডে খোঁজ নিয়ে দেখা গেল সেখানেও এমন কোনো ছবি জমা পড়ে নেই যেটি নববর্ষ বা ঈদের মতো উৎসবে মুক্তি পাবে কিংবা দর্শক হলে টানবে।

এদিকে এফডিসি প্রায় শুটিং শূন্য। বেকার হয়ে অলস সময় কাটাচ্ছেন ইন্ডাস্ট্রির নির্মাতা ও শিল্পীরা। কেউ কেউ শুটিং করলেও সেগুলো ওয়েব সিরিজের খাতায় তালিকা ভারী করছে। সিনেমার শুটিং বলতে চলমান শাকিব খানের ‘পাসওয়ার্ড’।

এছাড়া নির্মাণাধীন আছে শাহীন সুমনের ‘একটু প্রেম দরকার’, দেবাশীষ বিশ্বাসের পরিচালনায় বাপ্পী-অপু জুটির প্রথম ছবি ‘শ্বশুরবাড়ি জিন্দাবাদ ২’, মোস্তাফিজুর রহমান মানিক পরিচালিত সাইমন-মাহি জুটির ‘আনন্দ অশ্রু’, ফেরদৌস-পূর্ণিমা জুটির নঈম ইমতিয়াজ নেয়ামুলের ‘গাঙচিল’, আরিফুর জামান আরিফ পরিচালিত ফেরদৌস-পপির ‘কাঠগড়ায় শরৎচন্দ্র’সহ কিছু সিনেমা।

আর শুটিং শেষ করে মুক্তির জন্য তৈরি হচ্ছে বদিউল আলম খোকনের ‘আমার মা আমার বেহেস্ত’, গোলাম সোহরাব দোদুলের ‘সাপলুডু’, মোস্তফা সরোয়ার ফারুকীর ‘শনিবার বিকেল’, রাশেদ রাহার ‘নোলক’, সাদেক সিদ্দিকীর ‘সাহসী যোদ্ধা’, সাঈফ চন্দনের পরিচালনায় নিরব-সাবা জুটির ‘আব্বাস’, রনির ‘শাহেনশাহ’সহ আরও কিছু সিনেমা।

কিন্তু তৈরি হতে থাকা এসব ছবির কোনোটিই এখন পর্যন্ত পহেলা বৈশাখ বা রোজার ঈদে মুক্তি পাবে বলে শোনা যায়নি। যদিও আসিফ আকবরের কণ্ঠে পহেলা বৈশাখের একটি গানসমৃদ্ধ সিনেমা শাকিব-ববির ‘নোলক’, কিন্তু ছবিটির পরিচালনা নিয়ে ঝামেলায় জড়িয়ে এর মুক্তি অনিশ্চিত করে দিয়েছে পরিচালক-প্রযোজক।

পাশাপাশি নিশ্চিত হওয়া না গেলেও শোনা যাচ্ছে পহেলা বৈশাখ উপলক্ষে মুক্তির ঘোষণা আসতে পারে দুটি ছবির। তারমেধ্যে ‘সাপলুডু’ বা ‘শ্বশুরবাড়ি জিন্দাবাদ ২’ ও ‘আমার মা আমার বেহেস্ত’ ছবিগুলো উল্লেখযোগ্য। আর যদি তা-ও না হয় তবে সিনেমার দর্শককে হয়তো নতুন দেশীয় সিনেমা ছাড়াই বাংলা নববর্ষ বরণ করতে হবে।

তবে আসছে রোজার ঈদে দুটি ছবি মুক্তি পাবে বলে কিছুটা নিশ্চিত হওয়া গেছে। সে দুই ছবিতে নিজেই নিজের প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে মুখোমুখি হবেন চিত্রনায়ক শাকিব খান। তার নিজের প্রযোজনায় নির্মিত ‘পাসওয়ার্ড’ ছবিটি ঈদকে কেন্দ্র করেই নির্মিত হচ্ছে। সেই লক্ষে দ্রুত শেষ হচ্ছে এর নির্মাণ কাজ। মালেক আফসারী পরিচালিত এই ছবিতে শাকিবের নায়িকা বুবলী।

অন্যদিকে শাপলা মিডিয়া প্রযোজিত ‘শাহেনশাহ’ ছবিটিও ঈদে মুক্তি পাবে বলে নিশ্চিত করেছেন প্রযোজক সেলিম খান। এই ছবিতে শাকিবের বিপরীতে প্রথমবারের মতো জুটি হয়ে রুপালী পর্দায় হাজির হবেন নুসরাত ফারিয়া। এরই মধ্যে ছবিটির একটি গান ইউটিউবে প্রকাশ হয়েছে। সেই গান ঝড় তুলেছে দুই তারকার ভক্তদের মাঝে।

সিনেমার এই সংকটে চরম উদ্বেগ প্রকাশ করছেন সিনেমা হল মালিকরা। এরই মধ্যে তারা হল ব্যবসায় টিকিয়ে রাখার জন্য দেশীয় সিনেমা বাড়াতে সরকারের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন। দাবি করেছেন বলিউডসহ উপমহাদেশের সিনেমা আমদানির সহজ নীতিমালা। দাবি না মানলে আগামী ১২ এপ্রিল থেকে সিনেমা হল বন্ধেরও ঘোষণা দিয়েছেন হল মালিকরা।

যদি হল মালিকদের সঙ্গে এই ঝামেলার মিটমাট না হয় তবে আসছে বৈশাখ কিংবা রোজার ঈদে মুক্তি পাওয়া সিনেমার প্রদর্শনীর কী ব্যবস্থা হবে তা এখনো স্পষ্ট নয়।

এলএ/আরআইপি

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]