জেনে নিন সফল ব্যক্তিদের ১৩ উপদেশ

হৃদয় খান
হৃদয় খান হৃদয় খান
প্রকাশিত: ০২:০৩ পিএম, ১৭ জুলাই ২০১৯

একেক জনের কাছে সফলতার সংজ্ঞা একেক রকম। সফলতা ব্যক্তি বিশেষ ভিন্ন অর্থ বহন করে। সফলতা মূলত সচরাচর আসে না। এছাড়া শুধু একজনের পরামর্শ অনুসরণ করলে আপনার লাভ না-ও হতে পারে। সে জন্য একাধিক সফল ব্যক্তির উপদেশ অনুসরণ করা যেতে পারে। প্রয়োজনবোধে একজনের সাথে অপরজনের উপদেশ মিলিয়ে সুফল লাভ করা সম্ভব। তাই ১৩ সফল ব্যক্তির সেরা ১৩টি উপদেশ তুলে ধরা হলো-

মাইকেল হেল্লো: বিখ্যাত রেনেসাঁ শিল্পী মাইকেল হেল্লো বুওনারোটির মতো প্রভাবশালী শিল্পী খুব কমই আছেন। তিনি মারা যাওয়ার শত বছর পরেও তার শিল্পকর্মগুলো মানুষের মাঝে উৎসাহ জোগায়। একজন প্রভাবশালী শিল্পী হতে তার অনেক পরিশ্রম করতে হয়েছে। তিনি যদি বড় হওয়ার স্বপ্ন না দেখে বাকিদের মতো গুটিয়ে বসে থাকতেন, তাহলে কি আর তার কথা কেউ স্মরণ করতেন?

বিখ্যাত এই শিল্পী বলেন, ‘বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই আমাদের লক্ষ্য খুব বড় হয় না। তাই আমরা আমাদের লক্ষ্যে পৌঁছতে পারি না।’ তাই কিছু সময় স্বাভাবিকের চেয়ে একটু অন্য ধরনের স্বপ্ন দেখা উচিত। যা আপনাকে আপনার লক্ষ্যে নিয়ে যাবে।

oprah

অপরাহ উইনফ্রে: জনপ্রিয় মার্কিন টেলিভিশন ব্যক্তিত্ব অপরাহ উইনফ্রের মতে, ‘আপনি যদি কাজ করেন এবং এর জন্য অর্থের কথা না ভাবেন, তাহলে আপনি সফলতার দিকে এগিয়ে যাচ্ছেন।’ তাই আপনার পছন্দকে খুঁজে বের করুন। আপনার যা ভালো লাগে তা-ই করুন।

ফিল নাইট: নাইকির প্রতিষ্ঠাতা ফিল নাইট বলেন, ‘কাজ বা ব্যবসা শান্তি এবং বিশৃঙ্খলার মধ্যে এক ধরনের যুদ্ধ। উভয়ই আয়ত্ত করা যাবে না কিন্তু এরা আপনাকে প্রভাবিত করবে। আপনি মানিয়ে নিতে পারলে সাফল্যের চাবি পেয়ে যাবেন।’ তাই সফলতা বা ব্যর্থতা যা-ই আসুক না কেন, হাল না ছেড়ে আপনার কাজ চালিয়ে যান।

ford

হেনরি ফোর্ড: ফোর্ড মোটর কোম্পানির প্রতিষ্ঠাতা হেনরি ফোর্ডের মতে, ‘ব্যর্থতা আপনাকে পুনরায় শুরু করার সুযোগ করে দেয়। এ সময়টা সবচেয়ে বুদ্ধিমত্তার।’ কারণ প্রতিটি ব্যর্থ প্রচেষ্টা, প্রতিটি প্রত্যাখ্যান সফলতার চাবিকাঠি। একজন ব্যর্থ লোক চাইলেই খুব তাড়াতাড়ি মানিয়ে উঠতে পারে। ব্যর্থতা ব্যক্তিকে শিক্ষা দেয়।

কর্নেল স্যান্ডার্স: কেএফসির প্রতিষ্ঠাতা কর্নেল স্যান্ডার্স বলেন, ‘আমি জানি, আমার নিজের কাজের জন্য আমি যা দিতে পারব; তা কখনোই কোন শ্রমিক বা কোন মূল্যে অর্জন করা সম্ভব নয়। আমি জানি আমি পারব। সবচেয়ে ভালোভাবে আমি পারব।’ সে জন্য সফলতার জন্য অবিচল থাকুন। যতক্ষণ পর্যন্ত না সফলতা আপনার কাছে এসে ধরা দেয়। নিজের লক্ষ্যে অবিচল থাকুন।

colonel-sanders

লিওনার্দো দা ভিঞ্চি: ইতালীয় রেনেসাঁসের কালজয়ী চিত্রশিল্পী লিওনার্দো দা ভিঞ্চির মতে, ‘সাফল্য খুব ধীরে ধীরে আসে। অনেক লোকই খুব বেশি সময় ধৈর্য ধরে থাকতে পারে না। তারা লক্ষ্যচ্যুত হয়ে যায় এবং পিছিয়ে পড়ে। ফলে কর্মঠ হওয়া একান্ত জরুরি। কাজে অলসতা করলে সফলতা অর্জন করা একেবারেই অসম্ভব।

থিওডোর রুজভেল্ট: আমেরিকার ২৬তম প্রেসিডেন্ট থিওডোর রুজভেল্ট বলেন, ‘সাফল্যের সূত্রের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ একক উপাদান হলো মানুষের সাথে কীভাবে চলতে হয় তা জানা।’ সে ক্ষেত্রে বলা যায়, সফলতার অন্যতম সূত্র ভালো নেতৃত্ব। তাছাড়া ইতিবাচক সম্পর্ক সবক্ষেত্রেই গুরুত্বপূর্ণ।

vinchi

মার্ক টোয়েন: মার্কিন রম্যলেখক, সাহিত্যিক ও প্রভাষক মার্ক টোয়েনের মতে, ‘ধারণা সফল না হওয়া পর্যন্ত সময়ক্ষেপন করা উচিত নয়।’ কারণ আমাদের অনেকেই হয়তো অন্যদের মতো করে শিখতে শুরু করে বা অন্যদের মতোই কাজ করে। তাই নতুন পরিকল্পনা পূরণ করতে আলাদাভাবে চিন্তা করতে অনেকের ভাবতে হয়। কিন্তু সত্যিকারার্থে কাজটি ভিন্নভাবে করতে আপনাকে আলাদাভাবে চিন্তা করতে হবে।

ওয়াল্ট ডিজনি: অ্যানিমেশন প্রোগ্রামার এবং বিংশ শতাব্দীর অন্যতম প্রভাবশালী সফল প্রযুক্তিক ভাবনার অধিকারী ওয়াল্ট ডিজনি বলেন, ‘আপনি যদি স্বপ্ন দেখতে পারেন, তবে আপনি এটি করতে পারবেন।’ সাফল্য মূলত তা-ই, যা মানুষ স্বপ্ন দেখার পর অর্জন করে। তাই অবশ্যই সফলতার জন্য আপনার নিজের ওপর বিশ্বাস রাখতে হবে।

dizny

টমাস জেফারসন: মার্কিন রাজনীতিবিদ এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের তৃতীয় রাষ্ট্রপতি টমাস জেফারসনের মতে, ‘যারা নিজের লক্ষ্য অর্জনের জন্য সঠিক চিন্তা করে, তাদের কোন কিছুর মাধ্যমে দমিয়ে রাখা যায় না।’ তাই অবশ্যই সফলতার জন্য ভালো চিন্তা করুন। নিজের কাজের ওপর ভরসা রাখুন। নিজের ওপর আস্থা রাখুন। সফলতা আসবেই।

আব্রাহাম লিংকন: মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ১৬তম রাষ্ট্রপতি আব্রাহাম লিংকন বলেন, ‘কোন কাজে যদি নিরুৎসাহিত না হন, তাহলে আপনার সফলতা আসবেই।’ সবসময় নিজের ওপর বিশ্বাস রেখে এগিয়ে যান। নিজের কাজকে কখনো বোঝা ভাববেন না। নিজের ওপর কাজ চাপিয়ে দেবেন না। ধৈর্য ধরুন, সফলতা আসবেই।

Abraham-Lincoln

জে সি পেনি: জে সি পেনি কোম্পানির প্রতিষ্ঠাতা জে সি পেনির মতে, ‘আপনি যদি বাকি সবার থেকে আপনার কর্মক্ষমতা বাড়াতে না পারেন, তবে আপনি তাদের চেয়ে উঁচু স্থানে পৌঁছতে পারবেন না।’ ফলে কঠোর পরিশ্রমের কোন বিকল্প নেই। যে কাজই আপনি করতে চান না কেন, আপনাকে অবশ্যই কঠোর পরিশ্রম করে অন্যদের চেয়ে ভালো করতে হবে। সফলতা কাজ থেকেই আসে।

স্টিভ জবস: অ্যাপল কম্পিউটারের প্রতিষ্ঠাতা স্টিভ জবস সফলতা অর্জনের জন্য সাহসী হওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন। তার মতে, ‘হৃদয় এবং অন্তর্দৃষ্টিতে যে সাহস লুকিয়ে আছে, সফলতা অর্জনের জন্য তা বাইরে বের করে আনতে হবে। ভাবতে হবে, আপনি যা জানেন তা ঠিক। বাকি সবাই দ্বিতীয় পর্যায়ভুক্ত।’ তাই নিজের কাজের প্রতি আস্থা থাকতে হবে। সফলতার জন্য সাহসের সঙ্গে কাজ চালিয়ে যেতে হবে।

steve-jobs

উপরের বিষয়গুলো লক্ষ্য করলে আপনি দেখবেন, বেশিরভাগই এক ধরনের। এর অধিকাংশে আপনার চিন্তা-ভাবনাকে সঠিক দিকে প্রভাবিত করতে বলা হয়েছে। এগুলো আপনাকে সফল হওয়ার জন্য সঠিক পথ দেখাবে। আপনার যা স্বপ্ন, তা মন থেকে চান। কঠোর পরিশ্রম করুন দৃঢ়তার সাথে। আপনি জীবনের কোন ধাপে আছেন, সেটা মুখ্য নয়। আপনি যেখানেই থাকুন না কেন, জীবনে কিছু ভিন্নতা এনে সফল হতে পারেন।

এসইউ/এএ/জেআইএম

আপনার মতামত লিখুন :