রাশি দেখে জেনে নিন ২০২০ সালে কী করবেন

ফিচার ডেস্ক
ফিচার ডেস্ক ফিচার ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৮:৩৯ এএম, ০১ জানুয়ারি ২০২০

দেখতে দেখতে চলে গেল একটি বছর। এসেছে নতুন বছর ২০২০ খ্রিষ্টাব্দ। বিগত বছরের মতো ভাগ্যচক্র তো সাথেই রয়েছে। কেননা ২০২০ সালেও গ্রহ-নক্ষত্রগুলো রাশিচক্রে তাদের অবস্থান অনুসারে মানুষের জীবন ও কর্মকে প্রভাবিত করবে। এর ভালো প্রভাবের সঙ্গে খারাপ প্রভাবও রয়েছে। আসুন জেনে নেই রাশি অনুসারে কী কী করা উচিত-

মেষ রাশি: বিনা মূল্যে কারও কাছ থেকে কিছু নেবেন না। লাল বা গোলাপি চাদরে ঘুমান। নিয়মিত গুড় খান। হাত ও দাঁত সব সময় পরিষ্কার রাখুন। নেশা থেকে দূরে থাকুন। রাগ নিয়ন্ত্রণে রাখুন। জন্মদিনে ছোটদের মিষ্টি বিতরণ করুন। বিধবাদের সেবা করুন। বড়দের সম্মান করুন। নিয়মিত সাদা রঙের সুরমা চোখে লাগান। লাল রুমাল ব্যবহার করুন।

বৃষ রাশি: প্রতিদিন কমপক্ষে একটি ভালো কাজ করুন। প্রতিদিন ঘরে ঘিয়ের প্রদীপ জ্বালানো ভালো। ড্রয়িংরুমে মানিপ্ল্যান্ট রাখুন। সব সময় সঙ্গে একটি রুপার পয়সা রাখুন। একটানা ১৬টি শুক্রবার দুধ, দই, চাল, সাদা কাপড় দান করুন। নিয়মিত গরিবদের সাত ধরনের সবজি দান করুন।

মিথুন রাশি: ঘরে কোনো প্রকার পাখি ও মাছ পুষবেন না। অতিরিক্ত মশলাযুক্ত খাবার ত্যাগ করুন। দরজার আশপাশে মানিপ্ল্যাট রাখা ঠিক হবে না। চামড়ার জ্যাকেট ব্যবহার থেকে বিরত থাকুন।

কর্কট রাশি: ২৮ বছর বয়সের আগে বিয়ে করা ঠিক হবে না। কাজ হওয়ার আগেই মনের কথা সবাইকে বলা ঠিক নয়। নেশা থেকে নিজেকে দূরে রাখুন। দশ বছর বয়সের কম কন্যাদের জামাকাপড় গিফট দেওয়া, খাবার খাওয়ানো শুভ ফলদায়ক।

সিংহ রাশি: বিনা মূল্যে কোনো কিছু গ্রহণ করবেন না। মদ ও মাছ খাওয়া থেকে দূরে থাকুন। ঘর থেকে বের হওয়ার সময় গুড় ও একটু পানি খেয়ে তারপর যাত্রা শুরু করুন। তামার পাত্রে সূর্যকে পানি অর্ঘ দিন। সোনা হারানো অশুভ হবে। সতর্ক থাকুন। দাদির কাছ থেকে আশীর্বাদ নিন।

কন্যা রাশি: টিয়া পাখি ঘরে রাখবেন না। কাঁচা লবণ না খাওয়াই ভালো। অতি চালাকি না করা ভালো। বৃষ্টির পানি বোতলে করে ঘরে রাখুন। কালো রঙের অন্তর্বাস পরুন। নিয়মিত বহমান নদীর পানিতে মুগ ডাল ভাসিয়ে দিতে থাকুন।

তুলা রাশি: শুক্রবারে টক জাতীয় খাবার না খাওয়াই ভালো। নিজেকে ও ঘরবাড়ি সব সময় পরিষ্কার রাখুন। সুগন্ধী ব্যবহার করুন। অনেক পুরোনো, ছেঁড়াফাটা জামাকাপড় না পরাই ভালো। গরিবদের সাদা বস্ত্র দান করুন। দুটো সাদা মুক্তা নিন। একটিকে শুক্লপক্ষের যেকোনো শুক্রবারে বহমান নদীর পানিতে ভাসিয়ে দিন। অপরটি নিজের কাছে রেখে দিন।

বৃশ্চিক রাশি: বিনা মূল্যে কারও কাছ থেকে কোনো উপহার নেওয়া উচিত নয়। লাল বা গোলাপি চাদরে ঘুমান। হাত ও দাঁত সব সময় পরিষ্কার রাখুন। নেশা থেকে দূরে থাকুন। রাগ নিয়ন্ত্রণে রাখুন। জন্মদিনে ছোটদের মিষ্টি বিতরণ করুন। বিধবাদের সেবা করুন। বড়দের সম্মান করুন। সাদা রঙের সুরমা চোখে লাগান। রাতে ঘুমোনোর সময় তামার গ্লাসে পানি ভরে মাথার কাছে রেখে দিন। সকালে ঘুম থেকে উঠে সেই পানি যেকোনো কাঁটাযুক্ত গাছে ঢেলে দিন।

ধনু রাশি: আপনার আচরণ শুদ্ধ রাখতে হবে। হলুদ রুমাল ব্যবহার করুন। শুকনো হলুদের গাঁট ঘরে রাখুন। বাড়ির উত্তরে বট গাছ লাগান। পশ্চিম বা উত্তরমুখী দোকান বা অফিস আপনার জন্য শুভ। হিন্দুরা বিষ্ণু পূজা করুন।

মকর রাশি: কালো বস্ত্র, লোহা, সরিষার তেল ইত্যাদি দান করুন। কাক ও পিঁপড়াকে নিয়মিত খেতে দিন। দক্ষিণাসহ কালো কম্বল দান করুন। অক্ষমদের সাহায্য করুন। লগ্নে শনি থাকলে কখনোই তামা বা তামার তৈরি কোনো কিছু দান করা ঠিক নয়। আর অষ্টমে শনি থাকলে ধর্মশালা বা দোকান নেওয়ার আগে পুরো জন্মকুণ্ডলী বিশ্লেষণ করে অনেক নিয়ম করে তারপর নিতে হবে।

কুম্ভ রাশি: তিল, লোহা ও চামড়ার জুতা দান করুন। কাক ও কুকুরকে নিয়মিত মিষ্টি বিস্কুট খেতে দিন। আটা আর চিনি মিশিয়ে পিঁপড়াকে খেতে দিন। সরিষার তেল দান করুন। অঙ্গহীনদের সেবা করুন।

মীন রাশি: বট গাছের গোড়ায় নিয়মিত পানি দিন। নিয়মিতভাবে মাছকে আটার চারা দেওয়া শুভ ফল দায়ক। স্বর্ণ হারানো শুভ নয়। সব সময় সত্য কথা বলুন। হিন্দুরা বিষ্ণু দেবতার পূজা করুন।

এসইউ/জেআইএম