নাম্বার ওয়ান হয়েই থাকতে চাই : সাবিনা খাতুন


প্রকাশিত: ০১:৪১ পিএম, ১১ জানুয়ারি ২০১৭
নাম্বার ওয়ান হয়েই থাকতে চাই : সাবিনা খাতুন

সাতক্ষীরার মোস্তাফিজ, সৌম্য সরকাররা যেমন ক্রিকেটে ঝড় তোলেন; তেমনই সাতক্ষীরার সাবিনা খাতুন ঝড় তোলেন ফুটবলে। ‘বেঙ্গল মেসি কন্যা’ খ্যাত বাংলাদেশ নারী ফুটবল দলের অধিনায়ক সাবিনা খাতুন সদ্যসমাপ্ত নারী সাফ ফুটবল টুর্নামেন্টে একটি হ্যাট্রিকসহ সাতটি গোল করেছেন। যার উপর ভর করে প্রথমবারের মত সাফে রানার্স আপ হয়ে দক্ষিণ এশিয়ার ফুটবল ইতিহাসের পাতায় নাম লিখিয়েছে বাংলাদেশ নারী ফুটবলাররা। ৫ জানুয়ারি রাতে দেশে ফিরে বর্তমানে সাতক্ষীরায় অবস্থান করছেন নারী সাফ ফুটবল টুর্নামেন্টে রানার্স আপ হওয়ার নায়ক গোল মেশিন সাবিনা খাতুন।

সম্প্রতি তিনি মুখোমুখি হয়েছেন জাগো নিউজের। তার সঙ্গে আলাপচারিতার চুম্বক অংশ জানাচ্ছেন মাহবুবর রহমান সুমন

sabina
জাগো নিউজ : আপনার ফুটবলে হাতেখড়ির গল্প শুনতে চাই-
সাবিনা খাতুন : ছোটবেলা থেকেই আমার খেলাধুলা ভালো লাগত। ক্লাস নাইন থেকে আমি ফুটবল খেলা শুরু করি। প্রথমে জেলা পর্যায়ে খেলতাম। তারপর ২০০৯ সালে প্রথম ন্যাশনাল ক্যাম্পে ডাক পাই। এভাবেই হাতেখড়ি।

জাগো নিউজ : সদ্যসমাপ্ত সাফে রানার্স আপ হওয়ার অনুভূতি কেমন?
সাবিনা খাতুন : ১১-১২ বছর পর বাংলাদেশের ফুটবল টিম এবার ফাইনাল খেলল। ফাইনাল খেলতে পারছি এটাই আমাদের কাছে বড় পাওয়া।

sabina
জাগো নিউজ : রানার্স আপ হওয়ার পেছনে আপনার অবদানই সবচেয়ে বেশি...
সাবিনা খাতুন : আমার পজিশন স্ট্রাইকার। তাই আমার কাজ গোল করা। আমি আমার সর্বোচ্চ চেষ্টাটা করেছি। যে কারণে সফলতা পেয়েছি। তবে এটিই প্রথম কোনো আন্তর্জাতিক টুর্নামেন্ট; যেখানে আমি ৭ গোল করলাম। তাই একটু বেশিই ভালো লাগছে।

জাগো নিউজ : বিমানবন্দরে অভ্যর্থনা না পাওয়ার ব্যাপারে জানতে চাই-
সাবিনা খাতুন : টুর্নামেন্টের সময় আমাদের মহিলা ফুটবল ফেডারেশনের চেয়ারম্যান সব সময় আমাদের সঙ্গে ছিলেন। দেশে ফেরার আগেও বাফুফের কর্মকর্তাদের সঙ্গে আমাদের কথা হয়েছিল। আমাদের আশা ছিল, এমন ফলাফলের পর তারা আমাদের অভ্যর্থনা জানাতে আসবেন। তবে বিমানবন্দরে তাদের কাউকে আমরা দেখিনি। হয়তো তারা আমাদের ফলাফলে খুশি হননি বা সময় করতে পারেননি। তাই হয়তো অভ্যর্থনা জানাতে আসেননি। এ ব্যাপারে আমাদের তেমন কোনো দুঃখ নেই।

sabina
জাগো নিউজ : দুবাইয়ের রোজানিও ক্লাব আপনার সাথে যোগাযোগ করছে-
সাবিনা খাতুন : এমন খবর মিডিয়ায় ছড়ালেও আমি এমন কোনো মন্তব্য মিডিয়াকে দেইনি। তবে আসল ব্যাপারটা হচ্ছে, দুবাইয়ের একটা ক্লাব আমার সঙ্গে যোগাযোগ করেছে; তাদের সঙ্গে আমার কথা হয়েছে। তবে দুবাইয়ের কোনো ক্লাবে আমার খেলার সম্ভাবনা নেই।

জাগো নিউজ : মহিলা ফুটবল টিমের তেমন কোনো সফলতা নেই- এর কারণ কী?
সাবিনা খাতুন : একটা মেয়ে খেলাধুলা করে তার ফ্যামিলিকে সাপোর্ট দেয়ার জন্য। কিন্তু সেটা বাংলাদেশ মহিলা ফুটবল টিমে নেই বললেই চলে। এছাড়া মহিলা ফুটবল টিমের জন্য তেমন কোনো লীগ বা টুর্নামেন্ট নেই। যা আছে সেটা ছেলেদের। সে কারণে সফলতার পাল্লাটাও হালকা।

sabina
জাগো নিউজ : আপনার প্রিয় ফুটবলার কে?
সাবিনা খাতুন : ব্রাজিল মহিলা দলের মারতা আমার প্রিয় ফুটবলার।

জাগো নিউজ : আপনার ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা কী?
সাবিনা খাতুন : আমি ফুটবলের সঙ্গে আছি। ফুটবলের সঙ্গে থাকতে চাই। আর যখন অবসর নেবো; তখন অন্যকিছু নিয়ে ভাববো। আর এখন যেমন নাম্বার ওয়ান আছি; তেমন নাম্বার ওয়ানই থাকতে চাই। বাদবাকি আল্লাহর ইচ্ছা।

জাগো নিউজ : জাগো নিউজের পক্ষ থেকে আপনাকে অভিনন্দন ও শুভকামনা।
সাবিনা খাতুন : আপনাকে ও জাগো নিউজকে ধন্যবাদ।

এসইউ/পিআর