‘স্বাস্থ্য সেবায় অবদান রাখছে ইনসাফ বারাকাহ হাসপাতাল’

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৮:১২ পিএম, ০৪ মে ২০১৯

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) উপাচার্য অধ্যাপক ডা. কনক কান্তি বড়ুয়া বলেছেন, ইনসাফ বারাকাহ হাসপাতাল স্বাস্থ্য সেবায় দীর্ঘ ২০ বছর অবদান রেখে সমাজে একটি অবস্থান করতে সামর্থ্য হয়েছে। বিভিন্ন দিবসে বিনামূল্যে চিকিৎসাক্যাম্প করে সব ধরনের রোগীদের সেবা দিয়ে থাকে। এ ধরনের সেবামূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করায় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে ধন্যবাদ জানান তিনি।

শনিবার দুপুরে রাজধানীর ইনসাফ বারাকাহ কিডনি অ্যান্ড জেনারেল হাসপাতালের ২০ বছর পূর্তি উপলক্ষে হাসপাতাল ভবনে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের নিয়ে আয়োজিত এক মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।

হাসপাতালের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. মো. মতিয়ার রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন হাসপাতালের ম্যানেজিং ডিরেক্টর প্রফেসর ডা. এম. ফখরুল ইসলাম, হলি ফ্যামিলি মেডিকেল কলেজের প্রিন্সিপাল অধ্যাপক ডা. মেজর জেনারেল হারুন অর রশীদসহ বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা।

হাসপাতালের চেয়ারম্যান বলেন, তুলনামূলকভাবে কম খরচে পরীক্ষা-নিরীক্ষাসহ সব স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিতের দৃষ্টিভঙ্গিকে সামনে রেখে কিছু চিকিৎসক ও সমাজসেবক ১৯৯৭ সালে প্রতিষ্ঠা করেন ইনসাফ ডায়াগনস্টিক সেন্টার এবং ১৯৯৯ সালে দ্য বারাকাহ কিডনি হাসপাতাল অ্যান্ড রিসার্চ ইনস্টিটিউট লিমিটেড। এই উদ্যোগের পুরোভাগই ছিল দ্য বারাকাহ ফাউন্ডেশন। এর পরবর্তীতে উভয় প্রতিষ্ঠানকে এক করে নিজস্ব ভবনে গড়ে তোলা হয় ইনসাফ বারাকাহ কিডনি অ্যান্ড জেনারেল হাসপাতাল। কিডনির বিশেষায়িত চিকিৎসা সেবায় বেসরকারিভাবে যোগ হয় নতুন এক মাত্রা।

হাসপাতালের ম্যানেজিং ডিরেক্টর প্রফেসর ডা. এম. ফখরুল ইসলাম জানান, কিডনির এন্ডোসকপিক সার্জারির ক্ষেত্রে ইনসাফ বারাকাহ হাসপাতাল পাইওনিয়ার হিসেবে ভূমিকা পালন করছে। হাসপাতালে অত্যাধুনিক বিভিন্ন ধরনের যন্ত্রপাতি সংযোজন করা হচ্ছে। কিডনির পাশাপাশি জেনারেল সব ধরনের সার্ভিস নিশ্চিত করা হয়েছে। ল্যাপারোস্কপি সার্জারি, জেনারেল সার্জারি, মেডিসিন, গাইনি, অর্থোপেডিকস, শিশু রোগের চিকিৎসা। ইতোমধ্যেই রোগীদের জন্য অত্যন্ত উন্নতমানের যন্ত্রপাতি ও চিকিৎসক নিয়ে চালু হয়েছে আইসিইউ ও এইচডিইউ।

এমইউ/জেএইচ/এমএস

আপনার মতামত লিখুন :