২০ হাজার টন ডিজেল মিশে রক্তবর্ণ দুটি নদী

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ১০:৪০ পিএম, ০৪ জুন ২০২০

রাশিয়ায় একটি জ্বালানি কেন্দের ট্যাংকার ফুটো হয়ে ২০ হাজার টন ডিজেল দুটি নদীতে মিশেছে তা রক্তবর্ণ ধারণ করেছে। স্টেশনটির কর্মীরা কাউকে না জানিয়ে দুইদিন ধরে তা সামাল দেওয়ার চেষ্টা করেন। সামাজিক মাধ্যমে জানাজানি হওয়ার পর পুতিন সেখানে জরুরি অবস্থা জারি করেছেন।

সাইবেরিয়ায় সুমেরু বৃত্তের ১৮০ মিটার ওপরে অবস্থিত নরলিক্স শহরে এ ঘটনা ঘটে। পরিবেশবাদী একটি সংগঠন বলছে, এর ফলে ওই অঞ্চলে দীর্ঘময়াদী ক্ষতি হবে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, সর্বনাশ হয়ে গেছে। নিয়ন্ত্রিনে আনার চেয়ে পরিস্থিতি এখন লাখ লাখ গুণ ভয়াবহ পর্যায়ে চলে গেছে।

ওই থার্মাল পাওয়ার স্টেশনে বিশালাকার একটি জ্বালানির ট্যাংকার ফেটে এমন ঘটনা ঘটে। খনন কাজের সঙ্গে যুক্ত একটি সংস্থা ডিজেল রেখেছিল বিরাট ট্যাংকে। সেই ট্যাংক আচমকা ফেটে কিংবা ফুটো হয়ে বেশিরভাগ ডিজেল মিশে আম্বার্নোয়া ও দাদিকান নামের নদী দুটি রক্তবর্ণ ধারণ করেছে।

স্থানীয় প্রশাসনের কাছ থেকে এই দুর্ঘটনার খবর পাওয়ার পর দেশটির জরুরি পরিস্থিতি মোকাবিলা বিষয়ক মন্ত্রণালয়সহ অন্যান্য ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের নিয়ে বৈঠক করে সেখানে জরুরি অবস্থা জারি করেন প্রেসিডেন্ট পুতিন। অভূতপূর্ব এই ঘটনায় স্থানীয় মানুষদের মধ্যে ব্যাপক আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে।

Russia

দ্রুত পদক্ষেপ নেওয়া হলে দূষণ কিছুটা রোধ করা যেত বলে মনে করছেন অনেকে। তাই স্থানীয় প্রশাসনের সমালোচনা করেছেন পুতিন। এছাড়া বিশ্ব বন্যপ্রাণী তহবিলের বিশেষজ্ঞ আলেক্সি নাইজনিকভ বলেছেন, দুর্ঘটনাটিকে রাশিয়ার ইতিহাসের দ্বিতীয় বৃহত্তম দুর্ঘটনা বলে মনে করা হচ্ছে।

রাশিয়ার সর্বোচ্চ আইন প্রয়োগকারী কর্তৃপক্ষ দ্য ইনভেস্টিগেটিভ কমিটি জানিয়েছে কর্তৃপক্ষের অসতর্কতায় ২০ হাজার টন ডিজেল নদীতে মিশে যাওয়ার এ ঘটনা নিয়ে একটি অপরাধ তদন্ত শুরু করেছে তারা। আর ট্যাংক স্বল্পতার যে বিষয়টি বলা হচ্ছে তা এর কারণ হিসেবে ব্যাখ্যার অযোগ্য।

এসএ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]