কাশ্মীরে বিচ্ছিন্নতাবাদীদের হামলায় ২ ভারতীয় পুলিশ নিহত

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৪:৩৮ পিএম, ১৪ আগস্ট ২০২০

ভারতের স্বাধীনতা দিবসের একদিন আগে অধিকৃত জম্মু-কাশ্মীরে দেশটির পুলিশের ওপর হামলা চালিয়েছে উপত্যকার বিচ্ছিন্নতাবাদীরা। শুক্রবারের এই হামলায় অন্তত দুই পুলিশ কর্মকর্তা নিহত ও আরও একজন আহত হয়েছেন। ১৫ আগস্ট ভারতের স্বাধীনতা দিবসকে কেন্দ্র করে ব্যাপক নিরাপত্তাব্যবস্থা গ্রহণ করা হলেও শুক্রবার পুলিশের একটি টহল দল কাশ্মীরে আক্রান্ত হয়।

কাশ্মীরের প্রধান পুলিশ কর্মকর্তা বিজয় কুমার বার্তাসংস্থা রয়টার্সকে বলেছেন, শ্রীনগর শহরের নওগাম এলাকায় কর্তব্যরত পুলিশের একটি দলের ওপর গুলিবর্ষণ করেছে একদল বিচ্ছিন্নতাবাদী। সন্ত্রাসীরা হামলা চালাতে পারে বলে আমাদের কাছে তথ্য ছিল এবং পুলিশ সতর্ক অবস্থানে ছিল। কিন্তু বিচ্ছিন্নতাবাদীরা শহরের সরু একটি পথ ধরে এসে এলোপাতাড়ি গুলিবর্ষণ করেছে।

তিনি বলেন, সন্ত্রাসীদের শনাক্ত এবং তাৎক্ষণিকভাবে নিরস্ত্র করার চেষ্টা চালানো হয়। ওই এলাকা বর্তমানে ঘিরে রেখে তল্লাশি অভিযান শুরু করা হয়েছে।

কাশ্মীরের স্বায়ত্তশাসন সংক্রান্ত ভারতের সংবিধানের বিশেষ অনুচ্ছেদ বাতিলের এক বছর পূর্তির মাত্র কয়েকদিন পর এই হামলা হলো। গত বছরের ৫ আগস্ট জম্মু-কাশ্মীরের বিশেষ সাংবিধানিক মর্যাদা বাতিল করে কেন্দ্রশাসিত দুটি অঞ্চলে বিভক্ত করা হয়।

দেশটির সরকারের এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে কাশ্মীরে ব্যাপক-বিক্ষোভ প্রতিবাদ অব্যাহত থাকলেও নয়াদিল্লি বলছে, উপত্যকার উন্নয়ন ও এই অঞ্চলের সঙ্গে দেশের অন্যান্য প্রান্তের যোগাযোগ নিবিড় করার লক্ষ্যে কাজ করছে সরকার। কিন্তু কাশ্মীরের বাসিন্দাদের অনেকেই মনে করেন, দেশটির কট্টর হিন্দুত্ব জাতীয়তাবাদী সরকারের হাতে মুসলিমদের মানবাধিকার ভূলুণ্ঠিত করার আরেকটি পদক্ষেপ বিশেষ স্বায়ত্তশাসন বাতিল।

যদিও সরকার এ অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করেছে। ১৯৪৭ সালে ব্রিটিশ উপনিবেশ থেকে মুক্ত হওয়ার পর থেকে কাশ্মীর নিয়ে এই অঞ্চলের দুই পারমাণবিক অস্ত্রধারী প্রতিবেশি ভারত-পাকিস্তানের মধ্যে বিরোধ চলে আসছে। উভয় দেশই কাশ্মীরকে নিজেদের ভূখণ্ড বলে দাবি করে।

কাশ্মীরে তিন দশকেরও বেশি সময়ের বিদ্রোহে ৫০ হাজারের বেশি মানুষ মারা গেছেন। নয়াদিল্লির অভিযোগ, ভারতের নিরাপত্তাবাহিনীর বিরুদ্ধে লড়াইয়ের কাশ্মীরের মুসলিম বিচ্ছিন্নতাবাদী গোষ্ঠীগুলোকে মদদ দিচ্ছে পাকিস্তান। কিন্তু পাকিস্তান বলছে, এই হিমালয় অঞ্চলের মুসলিমদের প্রতি কেবলমাত্র রাজনৈতিক সমর্থন দিয়ে আসছে ইসলামাবাদ।

শনিবার স্বাধীনতা দিবস উদযাপন করবে ভারত।

এসআইএস/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]