আরও ৪ বছর ক্ষমতায় থাকার আশা ট্রাম্পের

কৌশলী ইমা কৌশলী ইমা , যুক্তরাষ্ট্র
প্রকাশিত: ০৫:৩৩ পিএম, ০৩ ডিসেম্বর ২০২০

আরও চার বছর যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট থাকার আশা ব্যক্ত করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। স্থানীয় সময় মঙ্গলবার হোয়াইট হাউসে আসন্ন বড়দিন উপলক্ষে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে তিনি বলেন, এই চার বছর ২০২১ থেকে কিংবা ২০২৫ থেকে শুরু হতে পারে।

হোয়াইট হাউসের ওই অনুষ্ঠানে ট্রাম্পের শতাধিক ঘনিষ্ঠ ব্যক্তি উপস্থিত ছিলেন। সেখানে ট্রাম্প বলেন, ‌‘আমরা অসাধারণ চারটি বছর কাটালাম। আমরা আরও চার বছরের জন্য ক্ষমতায় আসবো। আরও চারবার এ ধরনের অনুষ্ঠান করব। কিন্তু তাদের এটি পছন্দ হচ্ছে না। সৎভাবে যদি বলি, এটি খুবই লজ্জার ব্যাপার।

ওই অনুষ্ঠানে ট্রাম্প বলেন, ‘আমরা আরও চার বছরের জন্য চেষ্টা করে যাচ্ছি। তা এখনই না হলে চার বছর পর এখানে আপনাদের সঙ্গে আবার দেখা হবে।’

ট্রাম্প আবারও মিথ্যা দাবি করে ওই অনুষ্ঠানে বলেন, ‘আমিই নির্বাচনে জয়ী হয়েছি। কিন্তু তারা (ডেমোক্র্যাটরা) এটা পছন্দ করেনি। আমার আইনি দলের সঙ্গে যে ভুয়া শুনানি হয়েছে, তা কি আপনারা দেখেছেন? সত্যিই এটি ছিল হতাশাজনক।’

ট্রাম্প স্পষ্টভাবেই গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি অঙ্গরাজ্যে ভোট জালিয়াতির অভিযোগে করা মামলায় হেরে যাওয়া ও এরপর ওই অঙ্গরাজ্যগুলোর আইনসভায় নির্বাচনের ফলকে চ্যালেঞ্জ জানানোর পক্ষে অবস্থান তৈরি করতে চালানো চেষ্টার কথা উল্লেখ করেছেন।

হোয়াইট হাউসের সিঁড়িতে দাঁড়িয়ে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প অনুষ্ঠানে আগত অতিথিদের উদ্দেশে কথা বলেন। বরাবরের মতোই সেখানেও তিনি নির্বাচনে নিজেকেই জয়ী বলে দাবি করেন। নির্বাচনের ফল প্রকাশের পর থেকে এখন পর্যন্ত এর বাইরে কিছুই বলেননি তিনি।

তবে নিজের পরাজয়ের বিষয়টি তার কাছে পরিষ্কার বলে এখনই আগামী প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে নিজের প্রার্থিতার বিষয়ে কথা বলা শুরু করেছেন ট্রাম্প। এরই মধ্যে ঘনিষ্ঠদের নিয়ে এ বিষয়ে একটি আলাদা কমিটিও গঠন করেছেন তিনি। রিপাবলিকান দলের ওপর তার প্রভাব এখনো অবিশ্বাস্য রকমের বেশি।

এটা এতটাই যে, ট্রাম্পকে এড়িয়ে নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনকে অভিনন্দন জানানোর কাজটিও খুব বেশি রিপাবলিকান নেতা করতে পারেননি। তার ঘনিষ্ঠ হিসেবে পরিচিত অনেকের সঙ্গে আবার এই সময়ে দূরত্বও তৈরি হয়েছে।

জো বাইডেনের প্রেসিডেন্ট হিসেবে অভিষেকের দিন ট্রাম্প অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকবেন কিনা, তা নিয়ে সংশয় তৈরি হয়েছে। অনেকেই ধরে নিয়েছেন, তিনি অভিষেক অনুষ্ঠানে থাকবেন না।

নতুন প্রশাসনের অধীনে নিজেদের অবস্থান ধরে রাখতে গেলে এমন অনেক কাজ করতে হবে, যা হয়তো ট্রাম্পের পছন্দ হবে না। ফলে দুই নৌকায় পা রেখে চলার মতো বিপজ্জনক কাজ তাদের করতে হবে। এক্ষেত্রে নিজ নিজ নির্বাচনী এলাকার মানুষের আস্থা হারানোর ঝুঁকিও থাকবে। আবার এমন অনেক শীর্ষ নেতা রয়েছেন, যারা ট্রাম্পের কারণে এবার প্রার্থী হননি। পরেরবার প্রার্থী হওয়ার বিষয়টি আগে থেকেই ভেবে রেখেছেন। এমন নেতারা দ্রুতই ট্রাম্পকে ত্যাগ করতে পারেন।

এমআরএম/এসএ/এমকেএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]