ভারতে বেকার ৫ কোটি ৩০ লাখের বেশি মানুষ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৮:১৬ এএম, ২১ জানুয়ারি ২০২২
ছবি: সংগৃহীত

২০২১ সালের ডিসেম্বর মাস পর্যন্ত ভারতে বেকারের সংখ্যা অন্তত ৫ কোটি ৩০ লাখ। এদের একটি বড় অংশই নারী, যাদের অনেকে কাজ করার ইচ্ছা থাকলেও কোনো কারণে চাকরি খুঁজছেন না। বৃহস্পতিবার (২০ জানুয়ারি) সেন্টার ফর মনিটরিং ইন্ডিয়ান ইকোনমির (সিএমআইই) বরাতে এ তথ্য জানিয়েছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম দ্য ইকোনমিক টাইমস।

সিএমআইই জানিয়েছে, ভারতে বেকারদের মধ্যে সাড়ে তিন কোটি মানুষ চাকরির জন্য আপ্রাণ চেষ্টা করছেন। আরও ১ কোটি ৭০ লাখ মানুষ কাজ করতে আগ্রহী হলেও খুব একটা জোর দিয়ে চাকরি খুঁজছেন না।

সংস্থাটি তাদের সাপ্তাহিক বিশ্লেষণে বলেছে, ভারত সরকারকে অবশ্যই কাজের খোঁজে থাকা সাড়ে তিন কোটি মানুষের জন্য তাৎক্ষণিকভাবে চাকরির ব্যবস্থা করতে হবে। বাকি ১ কোটি ৭০ লাখ মানুষ, যারা কাজ করতে আগ্রহী কিন্তু চাকরি খুঁজতে জোর দিচ্ছেন না, তাদেরও কর্মক্ষেত্রে নেওয়া বড় চ্যালেঞ্জ।

jagonews24

সিএমআইই’র তথ্যমতে, ২০২১ সালের ডিসেম্বরে ভারতে যে সাড়ে তিন কোটি মানুষ সক্রিয়ভাবে চাকরি খুঁজছিলেন, তাদের ২৩ শতাংশ বা ৮০ লাখই নারী। এছাড়া, চাকরি করতে আগ্রহী কিন্তু খুঁজতে না নামা মানুষদের মধ্যে নারীদের হার ৫৩ শতাংশ বা প্রায় ৯০ লাখ।

সংস্থাটির মতে, এত বিপুল সংখ্যক নারী কাজ করতে আগ্রহ থাকা সত্ত্বেও কেন চাকরি খুঁজতে নামছেন না তার কারণ খতিয়ে দেখা উচিত। এর জন্য চাকরির স্বল্পতা নাকি চাকরিতে যোগ দেওয়ায় নারীদের পক্ষে সমর্থনের অভাব দায়ী তা দেখতে হবে।

তারা বলেছে, ভারতে বেকারত্বের হার দিয়ে কর্মহীনতার প্রকৃত সমস্যা বোঝা যায় না। দেশটির সমস্যা হলো নিম্ন কর্মজীবীর হার ও নারীদের কর্মক্ষেত্রে প্রবেশে নিরুৎসাহিত করা।

সিএমআইই’র মতে, ভারতকে উন্নতি করতে হলে অবশ্যই জনগোষ্ঠীর প্রায় ৬০ শতাংশের জন্য কাজের ব্যবস্থা করতে হবে। সেজন্য বৈশ্বিক মানদণ্ডে পৌঁছাতে হলে দেশটিকে আরও অন্তত ১৮ কোটি ৭৫ লাখ মানুষের জন্য চাকরির সুযোগ তৈরি করতে হবে।

কেএএ/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]