শেষ হলো মার্কেটিং বিতর্ক উৎসব

বেনজির আবরার
বেনজির আবরার বেনজির আবরার , ফিচার লেখক
প্রকাশিত: ০১:২২ পিএম, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২১

দেশে প্রথমবারের মতো ‘ব্র্যান্ড প্র্যাক্টিশনার্স বাংলাদেশ’ আয়োজন করেছিল ইন্টার-ইউনিভার্সিটি মার্কেটিং ডিবেট ফেস্ট-পয়েন্ট কাউন্টার-পয়েন্ট। এ বিতর্কের ফাইনাল বিতর্ক অনুষ্ঠিত হয় সম্প্রতি। ফাইনালে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের এসএমসি লেভি স্কোয়াড টিমকে হারিয়ে বিজয়ী হয় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমান কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের টিম বাজ।

ফাইনালে বিচারক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন অধ্যাপক ড. মীজানুর রহমান, সৈয়দ ফারহাত আনোয়ার এবং সৈয়দ আলমগীর। বিতর্কটি মডারেট করেন ব্র্যান্ড প্র্যাক্টিশনার্স গালীব বিন মুহাম্মদ। বিতর্ক উৎসবের টাইটেল স্পন্সর এসএমসি প্লাস ইলেক্ট্রোলাইট ড্রিংক, পাওয়ার্ড বাই স্পন্সর ইস্পাহানি এবং ওয়ালটন।

সারাদেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় থেকে মোট ৬৪টি দলের অংশগ্রহণে শেষ হয় সনাতন পদ্ধতির এ বিতর্ক উৎসব। বিতর্ক শেষে নিজেদের বক্তব্যে এ বিতর্ক আয়োজনের প্রয়োজনীয়তা এবং এর প্রভাব নিয়ে নানামুখী আলোচনা করেন তিন বিচারক। ভবিষ্যতে আরও মার্কেটিং বিতর্ক আয়োজনের উপরে জোর দেন তারা।

গত ১৭ জুলাই শুরু হওয়া যাওয়া এ বিতর্ক উৎসবে মার্কেটিং ক্ষেত্রের সমসাময়িক বিষয়ের ওপর ৬৩টি বিতর্ক অনুষ্ঠিত হয়। ফেসবুক প্ল্যাটফর্মে আয়োজিত এ উৎসবের মডারেটর এবং বিচারক হিসেবে যুক্ত ছিলেন দেশের সফল এবং প্রতিশ্রুতিশীল ৯০ জন ব্র্যান্ড প্র্যাক্টিশনার্স। অংশগ্রহণকারী দলকে তথ্য-উপাত্ত ও বিভিন্ন বিষয় নিয়ে সহযোগিতার জন্য মেন্টর হিসেবেও যুক্ত ছিলেন ৪০ জন মার্কেটিং পেশাজীবী।

এসএমসি এন্টারপ্রাইজের জেনারেল ম্যানেজার (মার্কেটিং) খন্দকার শামীম রহমান বলেন, ‘একদিন ছাত্রছাত্রীরা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণ্ডি পেরিয়ে পেশাদার হিসেবে জব মার্কেটে প্রবেশ করবে বা নিজেদের উদ্যোগ শুরু করবে। দুই ক্ষেত্রেই মার্কেটিং বিষয়ক জ্ঞান তাদের সফলতার পথে নিয়ে যেতে সাহায্য করবে। আশা করি, এ উদ্যোগে তারা বৈশ্বিক এবং দেশীয় মার্কেটিং ট্রেন্ড নিয়ে আরও বেশি জানার সুযোগ পাবে। তরুণদের নিয়ে এ আয়োজনের সঙ্গে থাকতে পেরে খুবই ভালো লাগছে।’

দেশের সব বিশ্ববিদ্যালয় থেকেই প্রতিযোগিতায় বিনা মূল্যে অংশগ্রহণ করার জন্য ১২৭টি টিম থেকে ৬৪টি টিম বাছাই করা হয়েছিল। আয়োজন প্রসঙ্গে ওয়ালটনের চিফ মার্কেটিং অফিসার ফিরোজ আলম বলেন, ‘দেশে আরও অনেক সৃষ্টিশীল এবং প্রতিশ্রুতিশীল মার্কেটিয়ার দরকার। ব্যবসায় শিক্ষার পাশাপাশি ইঞ্জিনিয়ার, ডাক্তার এবং মানবিক বিষয়ে অধ্যয়নরত ছাত্রছাত্রীদের মাঝেও মার্কেটিং বিষয়ক জ্ঞান এবং চর্চা বিনিময় এ বিতর্কের মধ্য দিয়ে আরও বেশি আকারে ছড়িয়ে পড়বে।’

ব্র্যান্ড প্র্যাক্টিশনার্স বাংলাদেশের প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মির্জা মুহাম্মদ ইলিয়াস বলেন, ‘ব্র্যান্ড প্র্যাক্টিশনার্স বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকেই মার্কেটিং এবং ব্র্যান্ড নিয়ে কাজ করে আসছে। এতদিন পেশাজীবীদের জন্য নানা ধরনের আয়োজন থাকলেও এই প্রথম ছাত্রছাত্রীদের জন্য কিছু করতে পারছি। পণ্য, ভোক্তা, মার্কেট ডাইনামিক্স, ট্রেন্ড ইত্যাদিসহ দরকারী বিষয়গুলোয় তারা আগ্রহী হলে তাদের ক্যারিয়ারে দারুণ কাজে দেবে। মার্কেটিংয়ের নানা প্রায়োগিক বিষয়ে ধারণার পাশাপাশি সফল মার্কেটিং পেশাজীবীদের সঙ্গে তাদের সেতুবন্ধন হিসেবেও এ প্রোগ্রাম কাজ করবে।’

এসইউ/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]