ভোটের বাইরে ইলিয়াসপত্নী লুনা, বিএনপি প্রার্থী মিল্লাত

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১১:৫৮ পিএম, ১৮ ডিসেম্বর ২০১৮

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সিলেট-২ আসনে ‘নিখোজ’ ইলিয়াস আলীর স্ত্রী বিএনপির প্রার্থী তাহসিনা রুশদির লুনার মনোনয়নপত্রের বৈধতা স্থগিত করে হাইকোর্টের আদেশ বহাল রেখেছেন সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ।

এর ফলে আসন্ন নির্বাচনে তাহসিনা রুশদির লুনা অংশ নিতে পারছেন না। তবে আপিলের আদেশের বিরুদ্ধে রিভিউ করার সুযোগ রয়েছে। তারা রিভিউ আবেদন করবেন বলে জানিয়েছেন ব্যারিস্টার রুহুল কুদ্দুস কাজল।

এদিকে জামালপুর-১ আসনে বিএনপির প্রার্থী রশিদুজ্জামান মিল্লাতের মনোনয়ন স্থগিত করে হাইকোর্টের আদেশ বহাল রেখেছেন আপিল বিভাগ। ফলে তিনিও নির্বাচন করতে পারছেন না।

প্রার্থিতা বাতিলের আদেশ স্থগিত চেয়ে লুনা ও মিল্লাতের করা আবেদনের শুনানি নিয়ে মঙ্গলবার প্রধান বিচারপতির সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বে আপিল বিভাগের সাত সদস্যের বেঞ্চ কোনো আদেশ দেননি (নো অর্ডার)।

আদালতে লুনার পক্ষে শুনানি করেন সাবেক অ্যাটর্নি জেনারেল এএফ হাসান আরিফ ও রুহুল কুদ্দুস কাজল। সঙ্গে ছিলেন আইনজীবী আবিদ চৌধুরী।মিল্লাতের পক্ষে ছিলেন ব্যারিস্টার আজমালুল হোসেন কিউসি। আর নির্বাচন কমিশনের পক্ষে ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম ও ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মোতাহার হোসেন সাজু।

সিলেট-২ আসনে বিএনপির মনোনীত প্রার্থী তাহসিনা রুশদির লুনার মনোনয়নপত্র বৈধ ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশনের দেয়া সিদ্ধান্ত গত ১৩ ডিসেম্বর স্থগিত করেছিলেন হাইকোর্টের একটি দ্বৈত বেঞ্চ।

অন্যদিকে গত ১৩ ডিসেম্বর জামালপুর-১ আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী ও সাবেক তথ্যমন্ত্রী আবুল কালম আজাদ বিএনপির প্রার্থী রশিদুজ্জামান মিল্লাতের মনোনয়নপত্র বাতিল চেয়ে হাইকোর্টে এ রিট আবেদনটি করেন।

এদিকে দিনাজপুর-৩ আসনে বিএনপির প্রার্থী হিসেবে নির্বাচনে অংশ নেয়া সৈয়দ জাহাঙ্গীরের মনোনয়পত্র বাতিল করেছেন সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ। জাহাঙ্গীর মেয়র পদে থেকে নির্বাচন করছিলেন বলে জানান ব্যারিস্টার রুহুল কুদ্দুস কাজল।

পৌর মেয়রের পদ থেকে পদত্যাগ না করে বিএনপির প্রার্থী হিসেবে নির্বাচনে অংশ নেন সৈয়দ জাহাঙ্গীর। রিটার্নিং অফিসার তার মনোনয়নপত্র বাতিল করে দেন। ইসি ওই সিদ্ধান্ত বহাল রাখেন। পরে রিট করলে হাইকোর্ট মনোনয়নপত্র গ্রহণ করে নির্বাচনে অংশগ্রহণের সুযোগ দিতে নির্দেশ দেন। কিন্তু এর বিরুদ্ধে আপিল করা হলে তা মঞ্জুর করেন আপিল বিভাগ।

এফএইচ/বিএ

আপনার মতামত লিখুন :