বিচার বিভাগের ভাবমূর্তি রক্ষায় সহযোগিতা করবে সরকার : আইনমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৯:৪০ পিএম, ১৮ মে ২০১৯
ফাইল ছবি

বিচার বিভাগের ভাবমূর্তি রক্ষার জন্য যা যা করতে হয়, নির্বাহী বিভাগ এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার সে ব্যাপারে সব ধরনের সহযোগিতা করবে বলে জানিয়েছেন আইনমন্ত্রী অ্যাডভোকেট আনিসুল হক।

এছাড়া বিচারাধীন মামলার সংবাদ পরিবেশনের ক্ষেত্রে সুপ্রিম কোর্ট প্রশাসনের বিজ্ঞপ্তি বা বিবৃতির বিষয়ে মন্ত্রী বলেছেন, ‘আমার মনে হয় না আপনারা যে রিপোর্ট করেন আদালত তা বন্ধ করতে বলেছেন।’

শনিবার সন্ধ্যায় সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতি ভবনের শহীদ সফিউর রহমান মিলনায়তনে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবা উপজেলা সমিতি আয়োজিত ইফতার ও দোয়া অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এমন মন্তব্য করেন। কসবা উপজেলা সমিতির সভাপতি প্রকৌশলী কবীর আহমেদ ভুইয়া অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন।

বিচারাধীন বিষয়ে সংবাদ পরিবেশনের ক্ষেত্রে সুপ্রিম কোর্টের বিবৃতি প্রতিবন্ধকতা হবে কি না জানতে চাইলে আইনমন্ত্রী বলেন, ‘প্রধান বিচারপতি বা সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ যেটা বলেছে সেটা হলো এই, কোনো বিচারাধীন মামলা সম্বন্ধে ব্যক্তিগত অভিমত দিয়ে পত্রপত্রিকায় রিপোর্ট করা যাবে না। কিন্তু আপনারা জানেন, যেসব মামলা চলছে বা আদালত বিচার করছেন, বিচার কাজ চলমান, সেই মামলা নিয়ে যখন রিপোর্ট করেন তখন কিন্তু আদালত কিছু বলেন না।

তিনি বলেন, সাবজুডিস কথাটার অর্থ হচ্ছে যে, মামলাটা বিচারাধীন আছে কিন্তু কার্যক্রম এখনও শুরু হয়নি। সেসব মামলার ব্যাপারে আপনারা যদি কথা না বলেন, তাহলে বিজ্ঞ বিচারক বা মাননীয় বিচারপতিদের উপর কোনো চাপ পড়ে না। তারা সুষ্ঠু বিচার করতে পারবেন। সে জন্যই কিন্তু প্রধান বিচারপতি এবং আপিল বিভাগের বিচারপতিরা এই কথা বলেছেন।

অপর এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, আমার মনে হয় না আপনারা যে রিপোর্ট করেন আদালত তা বন্ধ করতে বলেছেন। যেটা ওনারা (আপিল বিভাগ) বলেছেন সেটা হচ্ছে যেই মামলাটি পেন্ডিং কিন্তু বিচার কাজ শুরু হয়নি। সেই সমন্ধে যদি রিপোর্ট করে, মানুষের মনের মধ্যেও একটা ধারণা দেয়া বা বিচারক বা বিচারপতিদের উপর চাপ সৃষ্টি হয় এ রকম একটি পরিস্থিতি সৃষ্টি না করা।

হাইকোর্টের একটি বেঞ্চের বিরুদ্ধে অভিযোগ এসেছে এবং সেটা ওপেন কোর্টেই সাবেক অ্যাটর্নি জেনারেল এবং বারের সভাপতি বলেছেন রাষ্ট্রপতির কাছে চিঠি পাঠাতে। কিন্তু কথা হলো এখন ষোড়শ সংশোধনী নেই এবং সুপ্রিম জুডিশিয়াল কাউন্সিলও নেই, এক্ষেত্রে যেসব বিচারপতির বিরুদ্ধে অভিযোগ এসেছে তা কীভাবে নিষ্পত্তি হবে- জানতে চাইলে মন্ত্রী বলেন, বিচার বিভাগ স্বাধীন। বিচার বিভাগের ভাবমূর্তি রক্ষা করার জন্য যা করতে হয়, নির্বাহী বিভাগ এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সরকার সেই ব্যাপারে সকল সহযোগিতা দেবে।’

উল্লেখ্য গত বৃহস্পতিবার (১৬মে) সুপ্রিম কোর্ট প্রশাসনের পক্ষ থেকে বিচারাধীন মামলার বিষয়ে কোনো খবর বা টিভি স্ক্রল প্রচার করা থেকে বিরত থাকার জন্য সাংবাদিকদের অনুরোধ জানিয়ে বিবৃতি দেয়া হয়।

সুপ্রিম কোর্ট প্রশাসনের বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ‘ইদানিং লক্ষ্য করা যাচ্ছে যে, কোনো কোনো ইলেক্ট্রনিক মিডিয়া তাদের চ্যানেলে এবং কোনো কোনো প্রিন্ট মিডিয়া তাদের পত্রিকায় বিচারাধীন মামলা সংক্রান্ত বিষয়ে সংবাদ পরিবেশন/স্ক্রল করছে, যা একেবারেই অনভিপ্রেত। এ অবস্থায়, বিচারাধীন কোনো বিষয়ে সংবাদ পরিবেশন/স্ক্রল করা থেকে বিরত থাকার জন্য সংশ্লিষ্ট সবাইকে নির্দেশক্রমে অনুরোধ করা হলো।’

এরপর আইন, বিচার ও সংবিধান বিষয়ক সাংবাদিকদের সংগঠনের পক্ষ থেকে সুপ্রিম কোর্ট প্রশাসনের পক্ষ থেকে দেয়া বিবৃতি স্বাধীন সাংবাদিকতার উপর হস্তক্ষেপ বলে পাল্টা বিবৃতি দেয়া হয়। এর পর আজ আইনমন্ত্রী সাংবাদিকদের মুখোমুখি হলে সুপ্রিম কোর্ট প্রশাসনের দেয়া বিবৃতির ব্যাখ্যা দেন তিনি।

এদিকে, সুপ্রিম কোর্ট প্রশাসনের এই বিজ্ঞপ্তির প্রতিবাদে ল’ রিপোর্টার্স ফোরাম, ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়ন (ডিইউজে) ও ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি (ডিআরইউ) পৃথক পৃথক বিবৃতি দিয়েছে।

এফএইচ/এমএমজেড/এমকেএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]