অকারণে রাস্তায় চলাফেরা কিংবা আড্ডায় লাখ টাকা জরিমানা

জাহাঙ্গীর আলম
জাহাঙ্গীর আলম জাহাঙ্গীর আলম , নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০১:০২ পিএম, ০৫ মে ২০২০

করোনাভাইরাস সংক্রমণে থমকে গেছে সারাবিশ্ব। থমকে গেছে দেশ। আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যা দিন দিন বেড়েই চলেছে। শিশু, কিশোর, বয়স্ক থেকে শুরু করে কেউ রক্ষা পাচ্ছে না এই ভাইরাসের সংক্রমণ থেকে। এখন পর্যন্ত এই ভাইরাসের কোনো প্রতিষেধক বের হয়নি। ভাইরাসের সংক্রমণ রোধে অপ্রয়োজনে চলাফেরা না করে ঘরে থাকতে বলা হচ্ছে সরকারের পক্ষ থেকে।

প্রাণঘাতী এই ভাইরাসের বিস্তাররোধে দেশের অধিকাংশ এলাকা লকডাউন ঘোষণা করেছে স্থানীয় প্রশাসন। করোনাভাইরাসের সংক্রমণরোধে সরকার ঘোষণা করেছে সাধারণ ছুটি। সরকার বার বার বলছে অপ্রয়োজনে রাস্তায় বের না হয়ে ঘরে থাকতে। কিন্তু সরকারের এই আদেশকে অনেকেই তোয়াক্কাই করছে না। কেউ কেউ অপ্রয়োজনে রাস্তায় বের হয়ে আড্ডা দিচ্ছে। মানছে না সামাজিক দূরত্ব।

যদিও সোমবারের (৪ মে) নতুন সরকারি নির্দেশনা অনুসারে স্বাস্থ্যবিধি মেনে সীমিত পরিসরে দোকান ও শপিংমল আগামী ১০ মে থেকে খুলবে। তবে তা বিকেল ৪টার মধ্যে বন্ধ করতে হবে।এরফলে মানুষ কিছুটা ঘরের বাইরে বের হতে পারবে। তবে অবশ্যই স্বাস্থ্যবিধি মেনে।

কিন্তু সুনির্দিষ্ট কারণ ছাড়া যাদের এই সময়ে কিংবা এই সময়ের বাইরে যারা সরকারি এই আদেশ অমান্য করে অপ্রয়োজনে চলাফেরা কিংবা আড্ডাবাজি করবে তাদের জন্য রয়েছে দুঃসংবাদ। তাদেরকে ২০১৮ সালের সংক্রামক রোগ ও ১৮৮০ সালের পেনাল কোডের আইনের মুখোমুখি হতে হবে। ইতোমধ্যে সারা দেশে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে সরকারি আদেশ অমান্যকারীদের শাস্তি দেওয়া হচ্ছে।

জনস্বাস্থ্য-সংক্রান্ত জরুরি অবস্থা মোকাবিলা এবং স্বাস্থ্যগত ঝুঁকি হ্রাসকরণের লক্ষ্যে সচেতনতা বৃদ্ধি, সংক্রামক রোগ প্রতিরোধ, নিয়ন্ত্রণ ও নির্মূলের উদ্দেশ্যে ২০১৮ সালে সংক্রামক রোগ (প্রতিরোধ, নিয়ন্ত্রণ ও নির্মূল) আইন প্রণয়ন করা হয়েছে। এ আইন লঙ্ঘন করলে ছয় মাসের কারাদণ্ড বা সর্বোচ্চ এক লাখ টাকা জরিমানা অথবা উভয় দণ্ড দেয়ার বিধান রয়েছে। ইতোমধ্যে এই আইনের ক্ষমতা বলেই করোনাভাইরাস সংক্রমণ রোধে ‘পুরো দেশকে ঝুঁকিপূর্ণ’ ঘোষণা করেছে স্বাস্থ্য অধিদফতর।

অপরদিকে সংক্রামক রোগ আইনের পাশাপাশি ১৮৮০ সালের দণ্ডবিধি আইনেও সরকারি আদেশ অমান্যকারীদের শাস্তি দেওয়া হচ্ছে। এই আইনে ছয় মাসের কারাদণ্ড বা এক হাজার টাকা জরিমানা অথবা উভয় দণ্ডর বিধান রয়েছে। তবে দুই আইনে কারাদণ্ডের বিধান থাকলেও মানবিক দৃষ্টিতে বর্তমানে আর্থিক জরিমানাটা করা হচ্ছে।

এ বিষয় ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আব্দুল্লাহ আল মামুন জাগো নিউজকে বলেন, যারা সরকারের লকডাউন ঘোষণাকে অমান্য করে অপ্রয়োজনে চলাফেরা করে তাদেরকে ভ্রাম্যমাণ আদালতে শাস্তি দেওয়া হচ্ছে। ২০১৮ সালের সংক্রামক রোগ (প্রতিরোধ, নিয়ন্ত্রণ ও নির্মূল) আইনের ২৪,২৫ ও ২৬ ধারায় ধারায় শাস্তি দেওয়া হচ্ছে। এছাড়াও ১৮৮০ সালের দণ্ডবিধির ১৮৮ ও ২৬৯ ধারায় শাস্তি দেওয়া হচ্ছে। আইনে কারাদণ্ডের বিধান থাকলেও আমরা মানবিক দৃষ্টিতে জরিমানা করছি।

২০১৮ সালে সংক্রামক রোগ (প্রতিরোধ, নিয়ন্ত্রণ নির্মূল) আইনের ২৪ ধারায় বলা হয়েছে-

২৪ (১) : যদি কোনো ব্যক্তি সংক্রামক জীবাণুর বিস্তার ঘটান বা বিস্তার ঘটাতে সহায়তা করেন বা জ্ঞাত থাকা সত্ত্বেও অপর কোনো ব্যক্তি সংক্রমিত ব্যক্তি বা স্থাপনার সংস্পর্শে আসিবার সময় সংক্রমণের ঝুঁকির বিষয়টি তাহার নিকট গোপন করেন তাহা হইলে উক্ত ব্যক্তির অনুরূপ কার্য হইবে একটি অপরাধ।

(২) যদি কোনো ব্যক্তি উপ-ধারা (১) এর অধীন কোনো অপরাধ সংঘটন করেন, তাহা হইলে তিনি অনূর্ধ্ব ৬ (ছয়) মাস কারাদণ্ডে বা অনূর্ধ্ব ১ (এক) লক্ষ টাকা অর্থদণ্ডে, বা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত হইবেন।

দায়িত্ব পালনে বাধা প্রদান নির্দেশ পালনে অসম্মতি জ্ঞাপনের অপরাধ দণ্ড

আইনের ২৫ ধারায় বলা হয়েছে-

২৫ (১) যদি কোনো ব্যক্তি-

(ক) মহাপরিচালক, সিভিল সার্জন বা ক্ষমতাপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে তাহার উপর অর্পিত কোনো দায়িত্ব পালনের ক্ষেত্রে বাধা প্রদান বা প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করেন, এবং

(খ) সংক্রামক রোগ প্রতিরোধ, নিয়ন্ত্রণ ও নির্মূলের উদ্দেশ্যে মহাপরিচালক, সিভিল সার্জন বা ক্ষমতাপ্রাপ্ত কর্মকর্তার কোনো নির্দেশ পালনে অসম্মতি জ্ঞাপন করেন,

তাহা হইলে উক্ত ব্যক্তির অনুরূপ কার্য হইবে একটি অপরাধ।

(২) যদি কোনো ব্যক্তি উপ-ধারা (১) এর অধীন কোনো অপরাধ সংঘটন করেন, তাহা হইলে তিনি অনূর্ধ্ব ৩ (তিন) মাস কারাদণ্ডে বা অনূর্ধ্ব ৫০ (পঞ্চাশ) হাজার টাকা অর্থদণ্ডে বা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত হইবেন।

মিথ্যা বা ভুল তথ্য প্রদানের অপরাধ দণ্ড

২৬ ধারায় বলা হয়েছে-

২৬ (১) যদি কোনো ব্যক্তি সংক্রামক রোগ সম্পর্কে সঠিক তথ্য জ্ঞাত থাকা সত্ত্বেও ইচ্ছাকৃতভাবে মিথ্যা বা ভুল তথ্য প্রদান করেন তাহা হইলে উক্ত ব্যক্তির অনুরূপ কার্য হইবে একটি অপরাধ।

(২) যদি কোনো ব্যক্তি উপ-ধারা (১) এর অধীন কোনো অপরাধ সংঘটন করেন, তাহা হইলে তিনি অনূর্ধ্ব ২ (দুই) মাস কারাদণ্ডে বা অনূর্ধ্ব ২৫ (পঁচিশ) হাজার টাকা অর্থদণ্ডে বা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত হইবেন।

শাস্তির বিষয় ১৮৬০ সালের দণ্ডবিধি আইনে যা রয়েছে

সরকারি কর্মচারী কর্তৃক আইনসঙ্গতভাবে জারিকৃত কোনো আদেশ অমান্য করার দণ্ড

১৮৮০ সালের দণ্ডবিধি আইনের ১৮৮ ধারায় বলা হয়েছে, কোনো ব্যক্তি যদি কোনো আদেশ জারি করতে বিধিসঙ্গতভাবে ক্ষমতাপ্রাপ্ত কোনো সরকারি কর্মচারী কর্তৃক জারিকৃত আদেশে তাকে কোনো বিশেষ কাজ হতে বিরত থাকার অথবা তার দখলাধীন বা পরিচালনাধীন কোনো সম্পত্তি সম্পর্কে কোনো বিশেষ ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দান করা হয়েছে জানা সত্ত্বেও অনুরূপ নির্দেশ অমান্য করে, তবে, যদি অনুরূপ অবাধ্যতার ফলে আইনসম্মতভাবে নিযুক্ত কোনো ব্যক্তির বিঘ্ন হয়, বিরক্তি উৎপাদিত হয় বা ক্ষতি সাধিত হয় অথবা, বিঘ্ন, বিরক্তি বা ক্ষতির অনুষ্ঠিত হওয়ার আশঙ্কা দেখা দেয় তবে সে ব্যক্তি এক মাস পর্যন্ত যেকোনো মেয়াদের বিনাশ্রম কারাদণ্ডে, অথবা দুইশত টাকা পর্যন্ত যেকোনো পরিমাণ অর্থ দণ্ডে অথবা উভয়বিধ দণ্ডেই দণ্ডিত হবে। এবং যদি অনুরূপ অবাধ্যতার ফলে মানবদেহ, স্বাস্থ্য বা নিরাপত্তার প্রতি বিপদ অনুষ্ঠিত হয় কিংবা অনুরূপ বিপদ অনুষ্ঠিত হওয়ার আশঙ্কা দেখা দেয় অথবা কোনো দাঙ্গা বা কলহ অনুষ্ঠিত হওয়ার আশঙ্কা দেখা দেয়, তবে সে ব্যক্তি ছয় মাস পর্যন্ত যেকোনো মেয়াদের সশ্রম বা বিনাশ্রম কারাদণ্ডে, অথবা এক হাজার টাকা পর্যন্ত যেকোনো পরিমাণ অর্থ দণ্ডে অথবা উভয়বিধ দণ্ডেই দণ্ডিত হবে।

কোনো কার্য দ্বারা জীবনের পক্ষে বিপজ্জনক কোনো রোগের সংক্রমণ ছড়াইতে পারে জানিয়াও অবহেলাবশত উহা করে তার দণ্ড

১৮৮০ সালের দণ্ডবিধি আইনের ২৬৯ ধারায় বলা হয়েছে, কোনো ব্যক্তি যদি বেআইনিভাবে বা অবহেলামূলকভাবে এমন কোনো কার্য করে যা জীবন বিপন্নকারী মারাত্মক কোনো রোগের সংক্রমণ ছড়াতে পারে, তা জানা সত্ত্বেও বা বিশ্বাস করার কারণ থাকা সত্ত্বেও তা করে, তবে-সেই ব্যক্তি ছয়মাস পর্যন্ত যেকোনো মেয়াদের সশ্রম বা বিনাশ্রম কারাদণ্ডে, অথবা অর্থ দণ্ডে, অথবা উভয়বিধ দণ্ডেই দণ্ডিত হবে।

উল্লেখ্য, পুলিশ সদর দফতরের তথ্য অনুসারে সরকারঘোষিত সাধারণ ছুটির সময় অকারণে ঘোরাফেরা করা এবং সামাজিক দূরত্ব না মানার অভিযোগে একমাসে (২৯ মার্চ থেকে ৩০ এপ্রিল) পর্যন্ত ১ হাজার ৩৬৬ ব্যক্তির বিরুদ্ধে আইগত ব্যবস্থা নিয়েছে। এসময় একজনকে দুই বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।১০৮টি যানবাহনের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। নিয়ম না মেনে দোকান খোলা রাখার ঘটনায় ৩ হাজার ৩৫৬টি মামলা হয়েছে। এসময় ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান থেকে ৪৯ লাখ ১২ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। সবচেয়ে বেশি মামলা ও জরিমানা হয়েছে ঢাকা মহানগরে। এরপর রয়েছে খুলনা মহানগর, নারায়ণগঞ্জ, টাঙ্গাইল ও মৌলভীবাজার জেলায়।

জেএ/এসএইচএস/এমকেএইচ

করোনা ভাইরাস - লাইভ আপডেট

৩,১০,২৪,৬৯০
আক্রান্ত

৯,৬২,০৭৪
মৃত

২,২৬,২২,৮২৯
সুস্থ

# দেশ আক্রান্ত মৃত সুস্থ
বাংলাদেশ ৩,৪৮,৯১৮ ৪,৯৩৯ ২,৫৬,৫৬৫
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ৬৯,৬৮,৯১৮ ২,০৩,৮৪৪ ৪২,২৩,৯১৮
ভারত ৫৪,০৫,২৫২ ৮৬,৭৯৬ ৪৩,০৩,০৪৩
ব্রাজিল ৪৫,২৮,৩৪৭ ১,৩৬,৫৬৫ ৩৮,২০,০৯৫
রাশিয়া ১১,০৩,৩৯৯ ১৯,৪১৮ ৯,০৯,৩৫৭
পেরু ৭,৬২,৮৬৫ ৩১,৩৬৯ ৬,০৭,৮৩৭
কলম্বিয়া ৭,৫৮,৩৯৮ ২৪,০৩৯ ৬,২৭,৬৮৫
মেক্সিকো ৬,৯৪,১২১ ৭৩,২৫৮ ৪,৯৬,২২৪
দক্ষিণ আফ্রিকা ৬,৫৯,৬৫৬ ১৫,৯৪০ ৫,৮৯,৪৩৪
১০ স্পেন ৬,৫৯,৩৩৪ ৩০,৪৯৫ ১,৯৬,৯৫৮
১১ আর্জেন্টিনা ৬,২২,৯৩৪ ১২,৭৯৯ ৪,৭৮,০৭৭
১২ চিলি ৪,৪৪,৬৭৪ ১২,২৫৪ ৪,১৮,১০১
১৩ ফ্রান্স ৪,৪২,১৯৪ ৩১,২৭৪ ৯১,৫৭৪
১৪ ইরান ৪,২২,১৪০ ২৪,৩০১ ৩,৫৯,৫৭০
১৫ যুক্তরাজ্য ৩,৯০,৩৫৮ ৪৬,৭০৬ ৩৪৪
১৬ সৌদি আরব ৩,২৯,২৭১ ৪,৪৫৮ ৩,০৯,৪৩০
১৭ ইরাক ৩,১৫,৫৯৭ ৮,৪৯১ ২,৪৯,৫৩৯
১৮ পাকিস্তান ৩,০৫,৬৭১ ৬,৪১৬ ২,৯২,৩০৩
১৯ তুরস্ক ৩,০১,৩৪৮ ৭,৪৪৫ ২,৬৬,১১৭
২০ ইতালি ২,৯৬,৫৬৯ ৩৫,৬৯২ ২,১৭,৭১৬
২১ ফিলিপাইন ২,৮৬,৭৪৩ ৪,৯৮৪ ২,২৯,৮৬৫
২২ জার্মানি ২,৭২,৩৪২ ৯,৪৬৬ ২,৪৩,৫০০
২৩ ইন্দোনেশিয়া ২,৪৪,৬৭৬ ৯,৫৫৩ ১,৭৭,৩২৭
২৪ ইসরায়েল ১,৮৩,৬০২ ১,২২৬ ১,৩২,৪৪৯
২৫ ইউক্রেন ১,৭৫,৬৭৮ ৩,৫৫৭ ৭৭,৫১২
২৬ কানাডা ১,৪২,৭৭৪ ৯,২১১ ১,২৪,১৮৭
২৭ বলিভিয়া ১,৩০,৪৭০ ৭,৫৮৬ ৮৯,০৩২
২৮ ইকুয়েডর ১,২৫,৬২০ ১১,০৮৪ ১,০২,৩০৪
২৯ কাতার ১,২৩,৩৭৬ ২১০ ১,২০,৩০৩
৩০ রোমানিয়া ১,১২,৭৮১ ৪,৪৩৫ ৮৯,৭৭১
৩১ ডোমিনিকান আইল্যান্ড ১,০৭,৭০০ ২,০৪৪ ৮০,৮২০
৩২ কাজাখস্তান ১,০৭,২৬২ ১,৬৭১ ১,০১,৮৭৭
৩৩ পানামা ১,০৫,৬০১ ২,২৪৭ ৮০,১৯০
৩৪ মিসর ১,০১,৯০০ ৫,৭৫০ ৮৮,৬৬৬
৩৫ বেলজিয়াম ১,০০,৭৪৮ ৯,৯৯৬ ১৮,৯৪৫
৩৬ মরক্কো ৯৯,৮১৬ ১,৭৯৫ ৭৯,০০৮
৩৭ কুয়েত ৯৯,০৪৯ ৫৮১ ৮৯,৪৯৮
৩৮ ওমান ৯৩,৪৭৫ ৮৪৬ ৮৫,৪১৮
৩৯ নেদারল্যান্ডস ৯১,৯৩৪ ৬,২৭৫ ২৫০
৪০ সুইডেন ৮৮,২৩৭ ৫,৮৬৫ ৪,৯৭১
৪১ চীন ৮৫,২৭৯ ৪,৬৩৪ ৮০,৪৭৭
৪২ গুয়াতেমালা ৮৫,১৫২ ৩,১০৫ ৭৪,৪৯৭
৪৩ সংযুক্ত আরব আমিরাত ৮৪,৯১৬ ৪০৪ ৭৪,২৭৩
৪৪ পোল্যান্ড ৭৯,২৪০ ২,২৯৩ ৬৪,৩০২
৪৫ জাপান ৭৮,০৭৩ ১,৪৯৫ ৭০,৪৯৫
৪৬ বেলারুশ ৭৫,৪৬১ ৭৭৬ ৭৩,২১২
৪৭ হন্ডুরাস ৭১,১৪৩ ২,১৬৬ ২১,৮১০
৪৮ ইথিওপিয়া ৬৮,১৩১ ১,০৮৯ ২৭,৯৩৯
৪৯ পর্তুগাল ৬৮,০২৫ ১,৮৯৯ ৪৫,৪০৪
৫০ ভেনেজুয়েলা ৬৫,৯৪৯ ৫৩৯ ৫৫,১৫৫
৫১ বাহরাইন ৬৪,৪৯৯ ২২১ ৫৭,২৯৯
৫২ কোস্টারিকা ৬৩,৭১২ ৭০৬ ২৩,৫৫২
৫৩ নেপাল ৬২,৭৯৭ ৪০১ ৪৫,২৬৭
৫৪ সিঙ্গাপুর ৫৭,৫৭৬ ২৭ ৫৭,১৪২
৫৫ নাইজেরিয়া ৫৭,১৪৫ ১,০৯৫ ৪৮,৪৩১
৫৬ উজবেকিস্তান ৫১,২৩৫ ৪২৯ ৪৭,২৭১
৫৭ আলজেরিয়া ৪৯,৬২৩ ১,৬৬৫ ৩৪,৯২৩
৫৮ সুইজারল্যান্ড ৪৯,২৮৩ ২,০৪৫ ৪০,৫০০
৫৯ চেক প্রজাতন্ত্র ৪৮,৩০৬ ৪৯৯ ২৪,২২৮
৬০ আর্মেনিয়া ৪৭,৪৩১ ৯৩০ ৪২,৬০৮
৬১ মলদোভা ৪৬,৩৩৬ ১,২০১ ৩৪,২৩৬
৬২ ঘানা ৪৬,০০৪ ২৯৭ ৪৫,১৫৩
৬৩ কিরগিজস্তান ৪৫,৩৩৫ ১,৪৯৮ ৪১,৪৮৪
৬৪ আজারবাইজান ৩৯,১৮৮ ৫৭৫ ৩৬,৭৫৫
৬৫ আফগানিস্তান ৩৯,০৪৪ ১,৪৪১ ৩২,৫৭৬
৬৬ অস্ট্রিয়া ৩৮,০৯৫ ৭৬৬ ২৯,২২৯
৬৭ কেনিয়া ৩৬,৮২৯ ৬৪৬ ২৩,৭৭৭
৬৮ ফিলিস্তিন ৩৫,৬৮৬ ২৬২ ২৩,৭০০
৬৯ প্যারাগুয়ে ৩৩,০১৫ ৬৩৬ ১৭,৫৩৫
৭০ সার্বিয়া ৩২,৮৪০ ৭৪০ ৩১,৫১২
৭১ আয়ারল্যান্ড ৩২,৫৩৮ ১,৭৯২ ২৩,৩৬৪
৭২ লেবানন ২৮,২৯৭ ২৮৬ ১১,৪৪০
৭৩ এল সালভাদর ২৭,৫৫৩ ৮১১ ২১,৫৬১
৭৪ লিবিয়া ২৭,২৩৪ ৪৩৬ ১৪,৬৭৯
৭৫ অস্ট্রেলিয়া ২৬,৮৯৮ ৮৪৯ ২৪,০৬২
৭৬ বসনিয়া ও হার্জেগোভিনা ২৫,৪২৮ ৭৬৩ ১৭,৮৭৮
৭৭ দক্ষিণ কোরিয়া ২২,৯৭৫ ৩৮৩ ২০,১৫৮
৭৮ ডেনমার্ক ২২,৪৩৬ ৬৩৫ ১৭,৩১৬
৭৯ ক্যামেরুন ২০,৪৩১ ৪১৬ ১৯,১২৪
৮০ আইভরি কোস্ট ১৯,২৬৯ ১২০ ১৮,৩৯২
৮১ বুলগেরিয়া ১৮,৮১৯ ৭৫৫ ১৩,৫৫৮
৮২ হাঙ্গেরি ১৭,৯৯০ ৬৮৩ ৪,৩৯১
৮৩ উত্তর ম্যাসেডোনিয়া ১৬,৫৫৭ ৬৮৯ ১৩,৭৯২
৮৪ মাদাগাস্কার ১৬,০৫৩ ২২৩ ১৪,৬৪৬
৮৫ গ্রীস ১৪,৯৭৮ ৩৩১ ৯,৯৮৯
৮৬ ক্রোয়েশিয়া ১৪,৯২২ ২৪৮ ১২,৫৩৬
৮৭ সেনেগাল ১৪,৬৮৮ ৩০২ ১১,১৫৩
৮৮ জাম্বিয়া ১৪,০৭০ ৩৩০ ১৩,৩৬৫
৮৯ সুদান ১৩,৫৩৫ ৮৩৬ ৬,৭৫৯
৯০ নরওয়ে ১২,৮৫৮ ২৬৭ ১০,৩৭১
৯১ আলবেনিয়া ১২,২২৬ ৩৫৮ ৬,৮৮৮
৯২ ড্যানিশ রিফিউজি কাউন্সিল ১০,৪৮৮ ২৬৮ ৯,৮৯১
৯৩ নামিবিয়া ১০,২৯২ ১১১ ৭,৯৬৯
৯৪ গিনি ১০,২৮৬ ৬৩ ৯,৬৮১
৯৫ মালয়েশিয়া ১০,২১৯ ১৩০ ৯,৩৫৫
৯৬ তিউনিশিয়া ৯,৭৩৬ ১৫৫ ২,৩৮৬
৯৭ ফ্রেঞ্চ গায়ানা ৯,৬৯২ ৬৫ ৯,৩৪১
৯৮ মালদ্বীপ ৯,৬৪৯ ৩৩ ৮,১৮৮
৯৯ তাজিকিস্তান ৯,৩০৩ ৭৩ ৮,০৬৬
১০০ ফিনল্যাণ্ড ৮,৯৮০ ৩৩৯ ৭,৭০০
১০১ গ্যাবন ৮,৬৯৬ ৫৩ ৭,৮৪৮
১০২ হাইতি ৮,৬০০ ২২১ ৬,৩৬৩
১০৩ লুক্সেমবার্গ ৭,৯২৮ ১২৪ ৭,১৪০
১০৪ মন্টিনিগ্রো ৭,৮৯৮ ১৩৪ ৫,১২৯
১০৫ জিম্বাবুয়ে ৭,৬৭২ ২২৫ ৫,৯১৪
১০৬ মৌরিতানিয়া ৭,৩৬৫ ১৬১ ৬,৯২৭
১০৭ স্লোভাকিয়া ৬,৬৭৭ ৩৯ ৩,৫৪৮
১০৮ মোজাম্বিক ৬,৫৩৭ ৪১ ৩,৬২০
১০৯ উগান্ডা ৬,০১৭ ৬৩ ২,৫৮১
১১০ মালাউই ৫,৭১৮ ১৭৯ ৪,০৩০
১১১ জিবুতি ৫,৪০৩ ৬১ ৫,৩৩৩
১১২ মায়ানমার ৫,২৬৩ ৮৯ ১,১৮৮
১১৩ ইসওয়াতিনি ৫,২৪৫ ১০৪ ৪,৫৭১
১১৪ কেপ ভার্দে ৫,১৮৬ ৫০ ৪,৫৮১
১১৫ কিউবা ৫,০৫৫ ১১৩ ৪,২৮৪
১১৬ হংকং ৫,০৩৩ ১০৩ ৪,৭০৮
১১৭ ইকোয়েটরিয়াল গিনি ৫,০০২ ৮৩ ৪,৫০৯
১১৮ কঙ্গো ৪,৯৮৬ ১১৪ ৩,৮৮৭
১১৯ নিকারাগুয়া ৪,৯৬১ ১৪৭ ২,৯১৩
১২০ সেন্ট্রাল আফ্রিকান রিপাবলিক ৪,৭৮৬ ৬২ ১,৮৩০
১২১ জ্যামাইকা ৪,৭৫৮ ৬০ ১,৩২৭
১২২ সুরিনাম ৪,৭০৯ ৯৭ ৪,৩৮৩
১২৩ রুয়ান্ডা ৪,৬৮৯ ২৬ ২,৯১০
১২৪ জর্ডান ৪,৫৪০ ৩০ ২,৬৭২
১২৫ স্লোভেনিয়া ৪,৪২০ ১৪২ ৩,০২৩
১২৬ অ্যাঙ্গোলা ৩,৯০১ ১৪৭ ১,৪৪৫
১২৭ ত্রিনিদাদ ও টোবাগো ৩,৮৫৩ ৬১ ১,৬৯৫
১২৮ সিরিয়া ৩,৭৬৫ ১৭০ ৯৩২
১২৯ লিথুনিয়া ৩,৭৪৪ ৮৭ ২,১৯৮
১৩০ মায়োত্তে ৩,৫৪১ ৪০ ২,৯৬৪
১৩১ থাইল্যান্ড ৩,৫০৬ ৫৯ ৩,৩৪০
১৩২ গাম্বিয়া ৩,৫০৪ ১০৮ ১,৯৯২
১৩৩ জর্জিয়া ৩,৫০২ ১৯ ১,৪৯৪
১৩৪ আরুবা ৩,৪৬০ ২৩ ২,১২৮
১৩৫ গুয়াদেলৌপ ৩,৪২৬ ২৬ ৮৩৭
১৩৬ সোমালিয়া ৩,৪০১ ৯৮ ২,৮১২
১৩৭ শ্রীলংকা ৩,২৮৩ ১৩ ৩,০৭০
১৩৮ বাহামা ৩,২১৪ ৭৩ ১,৬৭৯
১৩৯ রিইউনিয়ন ৩,১৯৪ ১৫ ২,৪৮২
১৪০ মালি ৩,০০৬ ১২৮ ২,৩৪৯
১৪১ এস্তোনিয়া ২,৯২৪ ৬৯ ২,৩৭৭
১৪২ মালটা ২,৭৩১ ২০ ২,০৪৭
১৪৩ দক্ষিণ সুদান ২,৬৪২ ৪৯ ১,২৯০
১৪৪ বতসোয়ানা ২,৫৬৭ ১৩ ৬২৪
১৪৫ আইসল্যান্ড ২,৩০৭ ১০ ২,১১৬
১৪৬ গিনি বিসাউ ২,৩০৩ ৩৯ ১,১২৭
১৪৭ বেনিন ২,২৮০ ৪০ ১,৯৫০
১৪৮ গায়ানা ২,১৬৮ ৬৪ ১,৩৩১
১৪৯ সিয়েরা লিওন ২,১৫৯ ৭২ ১,৬৫০
১৫০ ইয়েমেন ২,০২৬ ৫৮৫ ১,২২১
১৫১ উরুগুয়ে ১,৯০৪ ৪৬ ১,৬১২
১৫২ বুর্কিনা ফাঁসো ১,৮১৬ ৫৬ ১,১৭৬
১৫৩ নিউজিল্যান্ড ১,৮১৫ ২৫ ১,৭১৯
১৫৪ টোগো ১,৬৫৯ ৪১ ১,২৫৯
১৫৫ বেলিজ ১,৬০৬ ২০ ৮৭৬
১৫৬ সাইপ্রাস ১,৫৯০ ২২ ১,২৮২
১৫৭ এনডোরা ১,৫৬৪ ৫৩ ১,১৬৪
১৫৮ লাটভিয়া ১,৫২৫ ৩৬ ১,২৪৮
১৫৯ লেসোথো ১,৩৯০ ৩৩ ৭৫৪
১৬০ লাইবেরিয়া ১,৩৩৫ ৮২ ১,২১৬
১৬১ ফ্রেঞ্চ পলিনেশিয়া ১,২৭১ ১,০২৮
১৬২ নাইজার ১,১৮৩ ৬৯ ১,১০৪
১৬৩ চাদ ১,১৪৯ ৮১ ৯৬৬
১৬৪ মার্টিনিক ১,১২২ ১৮ ৯৮
১৬৫ ভিয়েতনাম ১,০৬৮ ৩৫ ৯৪২
১৬৬ সান ম্যারিনো ৭৩৫ ৪৫ ৬৬৯
১৬৭ ডায়মন্ড প্রিন্সেস (প্রমোদ তরী) ৭১২ ১৩ ৬৫১
১৬৮ টার্কস্ ও কেইকোস আইল্যান্ড ৬৬৮ ৫৭২
১৬৯ চ্যানেল আইল্যান্ড ৬৪৪ ৪৮ ৫৭৫
১৭০ সিন্ট মার্টেন ৫৮৪ ২০ ৪৮৮
১৭১ পাপুয়া নিউ গিনি ৫১৬ ২৩২
১৭২ তানজানিয়া ৫০৯ ২১ ১৮৩
১৭৩ তাইওয়ান ৫০৭ ৪৭৯
১৭৪ বুরুন্ডি ৪৭৩ ৩৭৪
১৭৫ কমোরস ৪৭০ ৪৫০
১৭৬ ফারে আইল্যান্ড ৪৩১ ৪১২
১৭৭ মরিশাস ৩৬৬ ১০ ৩৩৮
১৭৮ ইরিত্রিয়া ৩৬৪ ৩০৫
১৭৯ জিব্রাল্টার ৩৫০ ৩২৩
১৮০ আইল অফ ম্যান ৩৩৯ ২৪ ৩১২
১৮১ সেন্ট মার্টিন ৩৩০ ২০৬
১৮২ মঙ্গোলিয়া ৩১২ ৩০২
১৮৩ কম্বোডিয়া ২৭৫ ২৭৪
১৮৪ ভুটান ২৫৯ ১৯০
১৮৫ কিউরাসাও ২৪৭ ৮৮
১৮৬ কেম্যান আইল্যান্ড ২০৮ ২০৪
১৮৭ মোনাকো ১৯২ ১৫২
১৮৮ বার্বাডোস ১৮৫ ১৭২
১৮৯ বারমুডা ১৮০ ১৬৬
১৯০ ব্রুনাই ১৪৫ ১৪২
১৯১ সিসিলি ১৪১ ১৩৬
১৯২ লিচেনস্টেইন ১১৩ ১০৯
১৯৩ অ্যান্টিগুয়া ও বার্বুডা ৯৬ ৯২
১৯৪ ব্রিটিশ ভার্জিন দ্বীপপুঞ্জ ৬৯ ৪৮
১৯৫ সেন্ট ভিনসেন্ট ও গ্রেনাডাইন আইল্যান্ড ৬৪ ৬৪
১৯৬ ম্যাকাও ৪৬ ৪৬
১৯৭ ক্যারিবিয়ান নেদারল্যান্ডস ৩৬ ১৭
১৯৮ ফিজি ৩২ ২৬
১৯৯ সেন্ট লুসিয়া ২৭ ২৬
২০০ পূর্ব তিমুর ২৭ ২৬
২০১ নিউ ক্যালেডোনিয়া ২৬ ২৬
২০২ ডোমিনিকা ২৪ ১৮
২০৩ গ্রেনাডা ২৪ ২৪
২০৪ লাওস ২৩ ২২
২০৫ সেন্ট বারথেলিমি ২৩ ১৬
২০৬ সেন্ট কিটস ও নেভিস ১৭ ১৭
২০৭ গ্রীনল্যাণ্ড ১৪ ১৪
২০৮ মন্টসেরাট ১৩ ১৩
২০৯ ফকল্যান্ড আইল্যান্ড ১৩ ১৩
২১০ ভ্যাটিকান সিটি ১২ ১২
২১১ সেন্ট পিয়ের এন্ড মিকেলন ১১
২১২ পশ্চিম সাহারা ১০
২১৩ জান্ডাম (জাহাজ)
২১৪ এ্যাঙ্গুইলা
তথ্যসূত্র: চীনের জাতীয় স্বাস্থ্য কমিশন (সিএনএইচসি) ও অন্যান্য।
করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]