৮ লাখ ডলার ক্ষতিপূরণ চেয়ে জাকারবার্গকে কুটুমবাড়ির লিগ্যাল নোটিশ

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৮:১৯ পিএম, ২৩ জুন ২০২১ | আপডেট: ০৮:২৭ পিএম, ২৩ জুন ২০২১

বিশ্বের বৃহত্তম সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকের সিইও মার্ক জুকারবার্গের কাছে ৮ লাখ ডলার (৬ কোটি ৭৮ লাখ টাকারও বেশি) ক্ষতিপূরণ চেয়ে লিগ্যাল (আইনি) নোটিশ পাঠিয়েছে ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান কুটুমবাড়ি রেস্টুরেন্ট লিমিটেড। বাংলাদেশি ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক গাজী খালেদ ইবনে মোহাম্মদের পক্ষে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী কাজী জয়নাল আবেদীন গত বছরের ৭ ডিসেম্বর এ নোটিশ পাঠান।

বুধবার (২৩ জুন) কুটুমবাড়ির পক্ষে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী অ্যাডভোকেট কাজী মোহাম্মদ জয়নাল আবেদীন জাগো নিউজকে এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

লিগ্যাল নোটিশে বলা হয়েছে, ‘কুটুমবাড়ি নামে ফেসবুকে আরও বেশকিছু ভুয়া পেজ খুলতে অনুমতি দেয়ায় তাদের ব্যবসা ও সুনাম নানাভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। অন্যদের ভুয়া কার্যক্রমের কারণে কুটুমবাড়ি তাদের ব্যবসা হারাতে বসেছে।’

এসব কারণে কুটুমবাড়ি লিমিটেড ফেসবুকের কাছ থেকে ৮ লাখ মার্কিন ডলার দাবি করেছে।

আইনি নোটিশে বলা হয়, কুটুমবাড়ি লিমিটেড ২০১৪ সালের ২৮ মার্চ ফেসবুকে একটি পেজ খোলে। পেজটি ২০২০ সালের ২২ মার্চ প্রথমবারের মতো হ্যাকারদের কবলে পড়ে। সেবার উদ্ধারের পর এটি আবারও হ্যাক হয়। ফেসবুককে বারবার অনুরোধের পরে কুটুমবাড়ি ফেসবুক পেজটি গত বছরের ১১ এপ্রিল পুনরুদ্ধার করা সম্ভব হয়।

নকল পেজগুলো থেকে প্রতিকারের জন্য ইউনিফর্ম রিসোর্স লোকেটরের সহযোগিতায় ‘কুটুমবাড়ি’ নামে ৬৩টি নকল পেজ এবং দুটি গ্রুপের লিংক ফেসবুককে পাঠানো হয়েছিল।

কিন্তু কুটুমবাড়ি তাদের ফেসবুকে যুক্ত কয়েক লাখ গ্রাহকের কাছে তথ্য পৌঁছাতে পারেনি। এই সময় ‘Monkey Duo Duo’- নামে একটি বেনামি অ্যাডমিন প্যানেল কুটুমবাড়ির পেজটি চালাতে সক্ষম হয়। এতে একদিকে যেমন কুটুমবাড়ির গোপন তথ্য চুরি হয়, অন্যদিকে সুপরিকল্পিতভাবে বিভ্রান্তিকর তথ্য প্রচারিত হয়।

এসব কারণে কোভিড-১৯ মহামারিতে কুটুমবাড়ি বিশাল আর্থিক ক্ষতির সম্মুখীন হয় বলে দাবি আইনজীবীর। পাশাপাশি প্রতিষ্ঠানটি তার লাখ লাখ গ্রাহককে হারায়, সে কারণেই ফেসবুকের কাছ থেকে উল্লিখিত বিরাট অংকের ক্ষতিপূরণ চেয়েছে প্রতিষ্ঠানটি।

কুটুমবাড়ি লিমিটেড ২০১২ সালের ২২ নভেম্বর জয়েন স্টক কোম্পানি হিসেবে নিবন্ধিত হয় (ট্রেড লাইসেন্স নম্বর ০৫-৫-৫৩৩৩)। তাদের শনাক্তকরণ নম্বর (টিআইএন) ৫২৯১৮৫৫৩৫৭০৩।

অ্যাডভোকেট কাজী জয়নাল আবেদীন বলেন, নোটিশ পাওয়ার পর ফেসবুকের পক্ষে ব্যারিস্টার তাজকিয়া লবিবা করিম ২০২১ সালের ২৮ জানুয়ারি নোটিশের জবাব দিয়েছেন। সেখানে দাবি করেছেন, তারা তাদের ক্লায়েন্টকে প্রতিনিধিত্ব করছেন। তারা জানান, ফেসবুক পরিসেবার শর্তাদি কপিরাইট এবং ট্রেডমার্কসহ অন্য কারও ইন্টেলেকচুয়াল সম্পত্তির অধিকার লঙ্ঘন করে এমন পোস্ট করার অনুমতি দেয় না। তবে নোটিশের জবাবে সন্তুষ্ট নয় কুটুমবাড়ি কর্তৃপক্ষ। তারা ফেসবুকের বিরুদ্ধে পরবর্তী আইনগত পদক্ষেপ নেবে বলে জানান তাদের আইনজীবী।

এফএইচ/এসএস/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]