ডায়াবেটিস রোগীরা ফুলকপি-ব্রোকলি কেন খাবেন?

লাইফস্টাইল ডেস্ক
লাইফস্টাইল ডেস্ক লাইফস্টাইল ডেস্ক
প্রকাশিত: ০১:২৭ পিএম, ২০ ফেব্রুয়ারি ২০২১

ফুলকপি আর ব্রোকলি দু’টি দেখতে প্রায় একই রকম, শুধু রং ভিন্ন। ফুলকপি ঘিয়ে রঙা আর ব্রোকলি সবুজ। দেখতে এক মনে হলেও এ দুটি সবজির পুষ্টিগুণ কিন্তু ভিন্ন।

বাজারে এখন এ দু’টি সবজি সহজলভ্য। ফুলকপির চাহিদা যত বেশি তার চেয়ে অবশ্য ব্রোকলির চাহিদা কম। কারণ অনেকেই ব্রোকলির স্বাদ পছন্দ করেন না।

যদিও দু’টি সবজিতেই কম শর্করা, কম ক্যালোরি ও অ্যান্টি-অক্সিডেন্টে পরিপূর্ণ; তবুও শরীরিক দিক বিবেচনা করে কে কোনটি খাবেন, তা জানা প্রয়োজন। বিশেষ করে ডায়াবেটিস রোগীরা এ দু’টি সবজি কেন খাবেন তা জেনে নিন-

পুষ্টিগত দিক থেকে পার্থক্য

প্রচুর ভিটামিন এবং খনিজ রয়েছে এ দু’টি সবজিতে। অন্যান্য শাকসবজির তুলনায় বেশি ফাইবার ও ভিটামিন সি রয়েছে এ দু’টি সবজিতে। ফাইবারজাতীয় খাবার আমাদের ক্ষুধা লাগার প্রবণতা কমিয়ে দেয়। এ ছাড়াও শরীর থেকে বিষাক্ত পদার্থগুলো দূর করে।

অন্যদিকে ভিটামিন সি বিভিন্ন সংক্রমণ থেকে আমাদের বাঁচায়, ত্বকের উজ্জ্বলতাও বাড়িয়ে দেয়। এ ছাড়াও এ দু’টি সবজিই মাইক্রো নিউট্রিয়েন্ট সমৃদ্ধ। যার মধ্যে ফোলেট, পটাসিয়াম, ম্যাঙ্গানিজ রয়েছে।

১ কাপ কাঁচা ফুলকপিতে পুষ্টিগুণ রয়েছে-

ক্যালোরি ২৭ গ্রাম, কার্বোহাইড্রেট ৫.৫ গ্রাম, ফাইবার ২ গ্রাম, প্রোটিন ২ গ্রাম, ভিটামিন সি ৫৭ শতাংশ, ভিটামিন বি ৭ শতাংশ, ফোলেট ১৫ শতাংশ, ভিটামিন ই ১ শতাংশ।

অন্যদিকে ১ কাপ কাঁচা ব্রোকলিতে পুষ্টিগুণ রয়েছে ফুলকপির চেয়ে খানিকটা বেশি-

ক্যালোরি ৩১ গ্রাম, কার্বোহাইড্রেট ৬ গ্রাম, ফাইবার ২.৫ গ্রাম, প্রোটিন ২.৫ গ্রাম, ভিটামিন সি ৯০ শতাংশ, ভিটামিন বি ৭ শতাংশ, ফোলেট ১৪ শতাংশ, ভিটামিন ই ৩ শতাংশ।

দু’টি সবজির মধ্যেই পুষ্টিগত পার্থক্য রয়েছে। ফুলকপির তুলনায় ব্রোকলিতে ভিটামিন সি এবং কে বেশি মাত্রায় রয়েছে।

ফুলকপিতে আবার প্যান্টোথেনিক অ্যাসিড এবং ভিটামিন বি ৬ এর পরিমাণ উচ্চ মাত্রায় রয়েছে। তাই এ দু’টি সবজি পাতে রাখলেই আপনি বিশেষভাবে উপকৃত হবেন। এবার জেনে নিন এদের স্বাস্থ্য উপকারিতা সম্পর্কে-

jagonews24

অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট

অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট শরীর থেকে ফ্রি র‌্যাডিকেল ধ্বংস করে। তাই ব্রোকলি খেলে প্রচুর মাত্রায় অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট পাবে আপনার শরীর।

যেকোনো সবুজ শাকসবজিতে ‘সালফোরাফেন’ নামে পরিচিত একটি যৌগ রয়েছে। যা প্রদাহ, রক্তে শর্করার মাত্রা কমাতে, চোখের স্বাস্থ্যের উন্নতি করতে এবং বয়স অনুযায়ী সুস্থ রাখবে।

একইভাবে ফুলকপিতেও শক্তিশালী অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট রয়েছে। যা কোষের কার্যক্ষমতা উন্নত করে। এ ছাড়াও হৃদযন্ত্রের কার্যক্ষমতা বাড়ায় ফুলকপি।

গবেষণায় দেখা গেছে, ক্রুসিফেরাস রয়েছে এমন শাকসবজি যারা বেশি খায়; তাদের মধ্যে কার্ডিয়াক জটিলতার হার কম।

অন্ত্রের জন্য উপকারী

অন্ত্র শরীরের গুরুত্বপূর্ণ একটি অঙ্গ। ফুলকপি এবং ব্রোকলি উভয়ই হজমে ভালো কাজ করে। এ ছাড়াও অন্ত্রে বাসা বাঁধা জীবাণুকে ধ্বংস করে দেয়।

এ দু’টি সবজিতে থাকা ফাইবার উপাদানগুলো হজমের সমস্যা থেকে মুক্তি দেয়। এ ছাড়াও ফাইবার কোলেস্টেরলের মাত্রা কমায় এবং টাইপ-২ ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণেও সহায়তা করে।

ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে রাখে

ফুলকপি ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য আদর্শ খাবার হিসেবে বিবেচিত। এতে প্রোটিন, ম্যাগনেসিয়াম, ফসফরাস, পটাসিয়াম এবং ম্যাঙ্গানিজ রয়েছে।

ফুলকপির জিআই ৫-১৫ এর মধ্যে গণনা করা হয়। ফুলকপিতে ফাইবার রয়েছে, যা রক্তে শর্করার পরিমাণ নিয়ন্ত্রণে রাখে।

অন্যদিকে ব্রোকলি পুষ্টির পাওয়া হাউজ। ভারতীয় পুষ্টিবিদ ডা. রূপালী দত্ত বলেন, ব্রোকলির জিআই রয়েছে ১৫, যা খুব কম। এটি ফাইবারের একটি দুর্দান্ত উত্স। যা ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য উপকারী।

২০০৮ সালে ‘ডায়াবেটিস’ জার্নালে প্রকাশিত এক গবেষণায় দেখা গেছে, ব্রোকলিতে সালফোরাফেন রয়েছে। যা কোষকে বিভিন্ন ধরনের ক্ষতি থেকে রক্ষা করে।

অন্য একটি গবেষণায় সুইডেনের গোথেনবার্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা দেখতে পেয়েছেন, সালফোরাফেন লিভারের কোষগুলোতে গ্লুকোজের উৎপাদন হ্রাস করে।

ক্যান্সারের ঝুঁকি কমায়

বিশেষজ্ঞরা বিশ্বাস করেন, এ দু’টি সবজিতেই ক্রুশিয়াস থাকায় ডিম্বাশয়, পেট, কোলোরেক্টাল এবং প্রোস্টেট ক্যান্সারসহ নির্দিষ্ট ধরণের ক্যান্সারের ঝুঁকির সম্ভাবনা কমায়।

দূষণের সঙ্গে লড়াই

ব্রোকলি দূষণের বিরুদ্ধে একটি ভালো প্রাকৃতিক উপাদান। চীনের এক সমীক্ষায় দেখা গেছে, বায়ু দূষণে আক্রান্ত ফুসফুস ডিটক্স করে ব্রোকলিতে থাকা পুষ্টিগুণ।

ব্রোকলিতে উপস্থিত রয়েছে ফাইটোকেমিক্যাল, যাকে গ্লুকোরাফটিন বলা হয়। এটি রাসায়নিক বিক্রিয়ার মাধ্যমে ক্ষতিকারক বেনজিন যৌগকে ভেঙে ফেলে।

ফুলকপি না-কি ব্রোকলি কোনটি খাবেন?

ফুলকপি এবং ব্রোকলি উভয়ই পুষ্টিগত দিক দিয়ে শরীরের জন্য উপকারী। এ দু’টি সবজিই আপনার ডায়েটের জন্য পুষ্টিকর হিসেবে বিবেচিত। তবে কোন সবজিটি খাবেন, তা আপনার পছন্দের উপর নির্ভর করে।

যদি আপনি ওজন কমানোর জন্য কম কার্বোহাইড্রেটজাতীয় সবজি খেতে চান; তাহলে ফুলকপি সেরা হতে পারে।

আবার আপনি যদি আপনার ডায়েটে সব ধরনের ভিটামিন এবং খনিজ আছে এমন সবজি খেতে চান; তাহলে ফুলকপির চেয়ে ব্রোকলি বেশি উপকারী।

মনে রাখবেন, যদি এ দু’টি সবজি খেলে আপনার হজমজনিত বা অ্যালার্জির সমস্যা হয়ে থাকে; তাহলে চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে।

টাইমস অব ইন্ডিয়া/জেএমএস/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]