প্রবেশপথে ঢালু রাস্তাই কাল হলো ওদের

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ১০:১৩ এএম, ১৮ ডিসেম্বর ২০১৭ | আপডেট: ১০:২০ এএম, ১৮ ডিসেম্বর ২০১৭

চট্টগ্রামের সাবেক মেয়র মহিউদ্দিন চৌধুরীর কুলখানি উপলক্ষে স্থানীয় রিমা কমিউনিটি সেন্টারে আয়োজিত মেজবানির খাবার খেতে গিয়ে সোমবার দুপুরে পদদলিত হয়ে ১০ জনের করুণ মৃত্যু হয়েছে। মৃতদের সবাই সনাতন ধর্মাবলম্বী ও মধ্যবয়সী পুরুষ। এ ছাড়া হুড়োহুড়িতে শতাধিক মানুষ আহত হন।

নেপথ্যে কারণ খুঁজে জানা গেছে, মূল সড়ক থেকে আট থেকে দশ ফুট ঢালুতে কমিউনিটি সেন্টারটির অবস্থান। কমিউনিটি সেন্টারে প্রবেশপথের ঢালু রাস্তা দিয়ে একসঙ্গে কয়েকশ লোক হুড়োহুড়ি করে প্রবেশ করতে গিয়ে হোঁচট খেয়ে নিচে পড়ে গেলে পায়ের তলায় পিষ্ট হয়ে ১০ জন মারা যান।

পুলিশ কমিশনার ইকবাল বাহার বলেছেন, ঢালু রাস্তা দিয়ে হুড়োহুড়ি করে প্রবেশ করতে গিয়ে পদদলিত হয়ে ১০ জনের মৃত্যু হয়।

জানা গেছে, মহিউদ্দিন চৌধুরীর কুলখানি উপলক্ষে চট্টগ্রাম নগরীর মোট ১৪টি কমিউনিটি সেন্টারে খাবারের আয়োজন করা হয়। স্থানীয় রিমা কমিউনিটি সেন্টারটি প্রায় ১৫ বছরের পুরনো। এখানে শুধুমাত্র ভিন্ন ধর্মাবলম্বী ১০ হাজার মানুষের জন্য খাবারের আয়োজন করা হয়।

দুপুর ১২টা থেকে কুলখানির খাবার খাওয়ানো শুরু হয়। একসঙ্গে পাঁচশতাধিক মানুষকে ভেতরে প্রবেশ করিয়ে গেট বন্ধ করে দেয়া হয়। দুপুর ১টার পর কয়েক হাজার মানুষ গেটের বাইরে অবস্থান নেয়। ভেতরে খাওয়া-দাওয়া শেষ হলে আরেক ব্যাচ প্রবেশ করাতে গেট খুলে দিলে হুড়োহুড়ি করে মানুষ প্রবেশ করলেই পদদলিত হয়ে দুর্ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় জামাল খান ওয়ার্ড কমিশনার শৈবাল দাস সুমন জানান, যারা খাবার বিতরণে ছিল তাদের অব্যবস্থাপনা ও অনভিজ্ঞতার কারণেই এ দুর্ঘটনা ঘটেছে। তাকে আগে থেকে জানানো হলে আশপাশের কমিউনিটি সেন্টারে খাওয়নোর ব্যবস্থা করতেন।

পুলিশ জানায়, রিমা কমিউনিটি সেন্টারে নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে ২০ জন পুলিশ সদস্য ছিল। এছাড়া শতাধিক স্বেচ্ছাসেবক ছিল হঠাৎ লোকজনের ভিড় ও হুড়োহুড়ি করে প্রবেশ করতে গিয়ে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় আরেক ওয়ার্ড কমিশনার জানান, নিহতদের পরিবারকে নগদ ১ লাখ টাকা ও শেষকৃত্য সম্পন্ন করতে ৫ হাজার টাকা দেয়া হবে।

এমইউ/জেএইচ/আরআইপি