দুর্যোগের পূর্বাভাস দেবে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ : প্রধানমন্ত্রী

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৪:৪৫ পিএম, ১৫ মে ২০১৮

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, সমুদ্র জয়ের পর এবার অামরা মহাকাশ জয় করেছি। বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ থেকে অামরা দুর্যোগের অাগাম খবর পাবো। লোকজনকে সতর্ক করা সম্ভব হবে। এতে ক্ষয়-ক্ষতি পরিমাণ কম হবে মানুষ উপকৃত হবে। অাগাম খবর পাওয়ার কারণে অনেক সম্পদ রক্ষা করাও সম্ভব হবে।

অাজ (মঙ্গলবার) রাজধানীর বঙ্গবন্ধু অান্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে সকালে প্রতিবন্ধিতা ও দুর্যোগ ঝুঁকি ব্যবস্থাপনাবিষয়ক তিনদিনব্যাপী ২য় আন্তর্জাতিক সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন। দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে অায়োজিত এ সেমিনারের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া।

শেখ হাসিনা বলেন, দুর্যোগ মোকাবেলা কীভাবে করতে হয় তার একটা গাইড লাইন তৈরি করা হয়েছে। দুর্যোগ প্রবণ এলাকায় ভলান্টিয়াররা এ বিষয়ে কাজ করছে। বাংলাদেশের দুর্যোগ পরিস্থিতিকে অান্তর্জাতিক পর্যায়ে তুলে ধরার জন্য সায়মা ওয়াজেদ হোসেন পুতুলের প্রতি অাহ্বান জানিয়েছেন। অটিজমকে যেভাবে পরিচিত করেছেন, বাংলাদেশের দুর্যোগ পরিস্থিতিকে অনুরূপভাবে তুলে ধরবেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ১৯৯১ সালে দেশে ঘূর্ণিঝড় হয়েছিল। সতর্কতা অবলম্বন না করার কারণে হাজার হাজার মানুষ মারা যায়। সম্পদের ক্ষয়-ক্ষতি হয়েছিল ব্যাপক। অার ৯৮ সালে ভয়াবহ বন্যা হয়েছিল। সে বন্যায় দেশের ৭৫ ভাগ এলাকা পানিতে ডুবে গিয়েছিল। তখন বিদেশি অনেক সংস্থা বলেছিল ২ কোটি লোক মারা যাবে। কিন্তু অামাদের সরকারের সাহসী পদক্ষেপের কারণে ২ হাজার লোকও মারা যায়নি। সফলতার সঙ্গে অামরা সে বন্যা মোকাবেলা করেছি।

তিনি বলেন, দুর্যোগ মোকাবেলাকালে শুধু মানুষ নয়, পশুপাখির ওপরও নজর রাখতে হবে। এছাড়া প্রতিবন্ধীরা এবং গর্ভবতী মায়েরা যাতে সেন্টারে সেন্টারে যেতে পারে সে ব্যবস্থা করতে হবে। সারা দেশে ৮ লাখ প্রতিবন্ধীকে ভাতা দিচ্ছি। ৮০ হাজার প্রতিবন্ধী ছাত্র-ছাত্রীদের ৭০০-১২০০ টাকা বৃত্তি দিচ্ছি। যারা নদী ভাঙনের শিকার হয়ে গৃহহারা হচ্ছে তাদের ঘর করে দেয়া হচ্ছে। এ ছাড়া দুর্যোগ পরবর্তী টেকসই ব্যবস্থাপনা নীতি তৈরি করছি। ২০৩০ সালের মধ্যে অামাদের এসডিজি অর্জন করতে হবে।

তিনি অারও বলেন, দেশের উন্নয়ন ও জীবনমান উন্নত করার জন্য ৭ম পঞ্চবার্ষিকী পরিকল্পনা গ্রহণ করেছি। এর অাগে অামরা প্রথম ধাপে পঞ্চম ও দ্বিতীয় ধাপে ৬ষ্ঠ পঞ্চবাষিকী পরিকল্পনা নিয়ে কাজ করেছি। যে কারণে বাংলাদেশ এখন উন্নয়নশীল দেশে পরিণত হয়েছে।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের সচিব শাহ কামাল। মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন, থাইল্যন্ডের এমপি মি, মুনথেইন বুনতান।

এফএইচ/জেএইচ/আরআইপি