তখনও আসেনি ট্রেন, প্ল্যাটফর্মে যাত্রীদের অপেক্ষা

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১০:১৬ এএম, ১৪ জুন ২০১৮ | আপডেট: ১০:২১ এএম, ১৪ জুন ২০১৮

ঈদুল ফিতর উপলক্ষে ট্রেনের অগ্রিম টিকিট সংগ্রহকারীদের ঈদ যাত্রা শুরু হয়েছে গত ১০ জুন (রোববার)। আগামীকাল শুক্রবার (১৫ জুন) পর্যন্ত ট্রেনের অগ্রিম টিকিট সংগ্রহকারীরা যাত্রা করবেন। তারই ধারাবাহিকতায় আজও (বৃহস্পতিবার) রাজধানীর কমলাপুর রেল স্টেশন থেকে নাড়ির টানে দেশের বিভিন্ন প্রান্তের উদ্দেশ্যে ঢাকা ছাড়ছেন হাজারও মানুষ।

গত ৫ জুন যারা দীর্ঘ লাইনে দাঁড়িয়ে টিকিট সংগ্রহ করেছিলেন তারাই আজ (বৃহস্পতিবার) রেলে যাত্রা করছেন। সেই লক্ষ্যেই সকাল থেকেই কাঙ্ক্ষিত ট্রেনে ধরতে কমলাপুরে আসছেন যাত্রীরা। স্টেশনের সব প্ল্যাটফর্ম জুড়েই শুধু যাত্রী আর যাত্রী। সঙ্গে থাকা পরিবারের সদস্য আর ব্যাগ ব্যাগেজ নিয়ে অপেক্ষা করছেন কাঙ্ক্ষিত ট্রেনের। কিন্তু তাদের এ অপেক্ষা ক্রমেই দীর্ঘ হচ্ছিল। কারণ, নির্ধারিত সময় পেরিয়ে গেলেও কাঙ্ক্ষিত ট্রেন কমলাপুর এসে পৌঁছায়নি।

jagonews24

উত্তরাঞ্চলের উদ্দেশ্যে ছেড়ে যাওয়া নীলসাগর এক্সপ্রেস ট্রেনটি কমলাপুর থেকে সকাল ৮টায় ছেড়ে যাওয়ার কথা কিন্তু সকাল সোয়া ৯টা পর্যন্ত ট্রেনটি স্টেশনেই এসে পৌঁছায়নি। স্টেশনের ট্রেন ছাড়ার তথ্যাদি সম্মলিত স্ক্রিনে ট্রেনটি ছেড়ে যাওয়ার সম্ভব্য সময় দেখাচ্ছে ৯টা ৫০ মিনিট।

দুই সন্তান ও স্ত্রীকে নিয়ে প্ল্যাটফর্মে ট্রেনের অপেক্ষায় বসে ছিলেন বেসরকারি চাকরিজীবী মনিরুল ইসলাম। ক্ষোভ প্রকাশ করে তিনি বলেন, ‘আজকের টিকিট কাটার জন্য ১৭ ঘণ্টা অপেক্ষা করেছিলাম। কিন্তু যাত্রার শুরু হওয়ার পূর্বেই প্রায় দুই ঘণ্টা লেট করছে নীলসাগর এক্সপ্রেস। এত বিড়াম্বনা কিভাবে মেনে নেওয়া যায়?’

jagonews24

প্ল্যাটফর্মে বসে নীলসাগর এক্সপ্রেস ট্রেনের অপেক্ষা করছিলেন গৃহিনী রিক্তা আক্তার। যাবেন চিলাহাটি। প্রায় ২ ঘণ্টায়ও ট্রেনটি না আসায় তিনিও ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, ‘প্রতিবার ঈদে বাড়ি ফেরার সময় কোনো না কোনো বিড়াম্বনা পোহাতেই হয়। একবার অগ্রিম টিকিট কাটার সময় ভোগান্তি আবার ট্রেন আসতে বিলম্ব। ছোট বাচ্চা নিয়ে আমার মতো অনেকেই এমন ভোগান্তি পোহাচ্ছেন। কেউই বলতে পারছে না কখন ট্রেন আসবে বা কখন ছেড়ে যাবে।’

শুধু নীলসাগর এক্সপ্রেস নয়, খুলনাগামী সুন্দরবন এক্সপ্রেস ট্রেনটিও সকাল ৬টা ২০ মিনিটে ছাড়ার কথা থাকলে কমলাপুর ছেড়েছে সকাল ৭টা ২৫ মিনিটে।

jagonews24

এছাড়া সকাল ৯টার রংপুর এক্সপ্রেস ট্রেনটি ছেড়ে যাওয়ার কথা থাকলেও ৯টা ১০ মিনিটে স্টেশনের মাইকে ঘোষণা দেওয়া হয়, ‘আর অল্প কিছুক্ষণের মধ্যেই রংপুর এক্সপ্রেস ট্রেনটি ৩ নম্বর প্ল্যাটর্ফমে এসে দাঁড়াবে।’ তবে ৯টা ১৫ মিনিটে ট্রেনটি কমলাপুরে এসে পৌঁছালেও ঠিক কয়টায় ছেড়ে যাবে তা জানা যায়নি।

কমলাপুর রেল স্টেশন ম্যানেজার সিতাংশু চক্রবর্তী জাগো নিউজকে বলেন, ‘আমরা চেষ্টা করছি সিডিউল ঠিক রাখতে। অতিরিক্ত যাত্রী নিয়ে যাওয়া-আসার সময় স্টেশনে ওঠা নামা করতে ২ মিনিট অপেক্ষার পরিবর্তে ৫ থেকে ১০ মিনিট অপেক্ষা করতে হচ্ছে। এ কারণে ট্রেনটি পৌঁছাতেও কিছুটা বিলম্ব করছে। তবে আমরা চেষ্টা করছি, যেন সঠিক সময়েই সব ট্রেন ছেড়ে যেতে পারে।’

এএস/আরএস/আরআইপি