মিরপুর সড়কে শুরু হয়েছে সংস্কার কাজ

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৪:২২ পিএম, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮

কিছুদিন আগেও অনেকটা চলাচলের অনুপযোগী ছিল রাজধানীর মিরপুর ১০ থেকে আগারগাঁও পর্যন্ত মূল সড়ক। পুরো সড়কের মাঝখানে ঘিরে চলছে মেট্রোরেলের নির্মাণ কাজ। অন্যদিকে বর্ষায় বৃষ্টিতে ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছিল ব্যস্ত এ সড়কটি।

একদিকে ক্ষতিগ্রস্ত সড়ক অন্যদিকে রাস্তার মাঝখানে মেট্রোরেলের কাজ চলায় সরু হয়ে যাওয়া এ সড়কে তীব্র যানজট ছিল প্রতিদিনের দৃশ্য।

রাস্তার পাথর আর পিচ উঠে গেছে অনেক আগেই। ফলে ইট, পাথর আর খোয়া দেখা যাচ্ছিল। পুরো রাস্তায় অসংখ্য খানাখন্দ থাকায় মিরপুরের মানুষদের প্রতিদিনই ভোগান্তি নিয়েই চলাচল করতে হয়। এ নিয়ে জাগো নিউজে সাম্প্রতি ‘রাজধানীরই সড়ক এটি!’ শিরোনামে প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়।

তবে স্বস্তির কথা যাত্রীদের ভোগান্তির বিষয়টি বিবেচনা করে বেহাল এ সড়কের সংস্কার কাজ শুরু করেছে মেট্রোরেল কর্তৃপক্ষ। প্রথমে মিরপুর ১০ থেকে আগারগাঁও পর্যন্ত সড়কে চলবে সংস্কার কাজ।

Mirpur-Road

মেট্রোরেল নির্মাণ শ্রমিকরাই এ সংস্কার কাজ করছেন। হারুনুর রশিদ নামের এক নির্মাণ শ্রমিক বলেন, ‘আমরা মেট্রোরেল নির্মাণ কাজের শ্রমিক। মেট্রোরেল কর্তৃপক্ষের নির্দেশেই সড়কের সংস্কার কাজ শুরু করেছি। প্রথমে মিরপুর ১০ থেকে আগারগাঁও পর্যন্ত সড়কে সংস্কার করা হবে।’

অন্যদিকে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন (ডিএনসিসি) বলছে, মেট্রোরেলের কাজ চলায় দীর্ঘদিন ধরে মিরপুরের এ ব্যস্ত সড়কে মানুষের ভোগান্তি হত। অনেকটা চলাচলের অনুপযোগী ছিল সড়কটি। তাই ডিএনসিসি বারবার মেট্রোরেল কর্তৃপক্ষকে অনুরোধ করে সড়কটি সংস্কার করে দিতে। এর ফলে সড়ক সংস্কারের কাজ শুরু হয়েছে।

মিরপুর ১০ থেকে প্রতিদিন ফার্মগেটে অফিস করেন বেসরকারি চাকরিজীবী নাজমুল ইসলাম। তিনি বলেন, ‘এতদিন ধরে এ সড়কটি প্রায় চলাচলের অনুপযোগী ছিল। রিকশাতেও চলাচল করা যেত না। অন্যদিকে ভাঙা রাস্তায় বাসের ধীর গতির কারণে দীর্ঘ যানজট লেগেই থাকতো।’

Mirpur-Road

এ বিষয়ে ডিএনসিসিরি প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মেসবাহুল ইসলাম বলেন, ‘মেট্রোরেলের কাজ আর বর্ষার কারণে সড়কটির খুব খারপ অবস্থা হয়েছিল। ভোগান্তির কথা ভেবে বারবার মেট্রোরেল কর্তৃপক্ষকে সার্বক্ষণিক যোগাযোগের মাধ্যমে তাগাদা দেয়া হয়েছে। ফলে তারা দ্রুত এটি সংস্কার করবে বলে আশ্বস্ত করেছে।’

মিরপুর থেকে মতিঝিলে চলাচলকারী বিকল্প বাসের চালক আব্দুল মালেক বলেন, ‘মিরপুর ১০ থেকে আগারগাঁও পার হতেই প্রায় পৌনে একঘণ্টা সময় লাগত। রাস্তার পুরোটাই খানাখন্দে ভরা। বলতে গেলে চলাচলের অনুপযোগী। ফলে এ সড়কে থাকতো গাড়ির ধীর গতি। যে কারণে প্রতিদিন তীব্র যানজট হত। তবে এখন পিচ আর পাথর দিয়ে রাস্তা সংস্কারের কাজ চলছে। এখন হয়তো ভালোভাবে চলাচল করা যাবে। কিন্তু মেট্রোরেলের কাজ চলায় রাস্তা এমনিতেই সরু হয়ে গেছে। ফলে যতদিন এ পরিস্থিতি থাকবে ততদিন যানজট থাকবেই।‘

এদিকে চলাচলের সুবিধার্থে ঢাকার রাস্তাগুলো ঠিক করে দিতে দুই সিটি কর্পোরেশন ব্যাপক পদক্ষেপ নিয়েছে বলে জানা গেছে।

এএস/এএইচ/পিআর

আপনার মতামত লিখুন :