এবারের হজ ব্যবস্থাপনা যেকোনো সময়ের চেয়ে উন্নত : প্রতিমন্ত্রী

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ১১:১৬ পিএম, ১৬ মে ২০১৯

ধর্ম প্রতিমন্ত্রী অ্যাডভোকেট শেখ মো. আব্দুল্লাহ বলেছেন, ২০১৯ সালের হজ ব্যবস্থাপনা হবে অতীতের যেকোনো সময়ের চেয়ে উন্নত এবং সুন্দর। সে লক্ষ্যে হজ এজেন্সিগুলোকে সরকার প্রদত্ত নিয়ম-নীতি অনুসরণ করে সঠিকভাবে হজযাত্রীদের সেবা প্রদান করতে হবে। এ ক্ষেত্রে ধর্ম মন্ত্রণালয় এজেন্সিগুলোকে সকল প্রকার আইনসঙ্গত সহযোগিতা প্রদান কর‌বে।

তি‌নি ব‌লেন, হজ এজেন্সিকে শাস্তি নয় বরং হজযাত্রীদের সঙ্গে যাতে কোনো প্রকার অপরাধ সংঘটিত না হয় সে বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করছে ধর্ম মন্ত্রণালয়।

বৃহস্প‌তিবার বাংলাদেশ ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে ধর্ম মন্ত্রণালয় আয়োজিত “হজ ব্যবস্থাপনা বিষয়ক প্রশিক্ষণ ও মতবিনময় সভায়” প্রধান অতিথির বক্তব্যে তি‌নি এসব কথা বলেন।

ধর্ম প্রতিমন্ত্রী বলেন, ধর্ম প্রতিমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণের পরপরই হজের খরচ কমানোর বিষয়ে সর্বাত্মক প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। সে কারণে এ বছর হজযাত্রীপ্রতি ১০ হাজার ৩২৪ টাকা বিমানভাড়া কমেছে।‌

তি‌নি ব‌লেন, এ বছরই প্রথম হজযাত্রীদের সৌদি আরবের পরিবর্তে বাংলাদেশেই প্রি-অ্যারাইভাল ইমিগ্রেশন হবে- যা হজ ব্যবস্থাপনায় এক যুগান্তকারী পদক্ষেপ। এর ফলে সৌদি আরবের বিমানবন্দরে বাংলাদেশি হজযাত্রীদের অপেক্ষার সময় ও কষ্ট কমিয়ে আনা সম্ভব হবে।

ধর্ম প্রতিমন্ত্রী বলেন, সৌদি আরবে জিলহজ মাসের চাঁদ দেখা সাপেক্ষ আগা‌মী ১০ আগস্ট পবিত্র হজ অনুষ্ঠিত হবে।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, এ বছর বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় প্রতিটি এজেন্সির সর্বনিম্ন হজযাত্রীর সংখ্যা ১৫০ থেকে ১০০ তে কমিয়ে আনা হয়েছ। এতে এজেন্সিগুলোর কার্যক্রম সহজ হয়েছে। এছাড়া চলতি বছর পবিত্র হজের দিনগুলোতে বাংলাদেশি হজযাত্রীদের জন্য মক্কা, মিনা, আরাফা, মুজদালেফা তথা মাশায়েরে মোকাদ্দসায় যাতায়াতের সুবিধার্থে পর্যাপ্ত ও উন্নত বাসসেবা নিশ্চিত করা হবে।

তিনি বলেন, ইতোমধ্যে আমরা হজের নিবন্ধন সম্পন্ন করেছি। সরকারি ব্যবস্থাপনায় বাড়িভাড়া সম্পন্ন হয়েছে। বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় বাড়িভাড়া চলছে। শিগগিরই ভিসা-লজমেন্টের কাজ শুরু হবে।

ধর্ম মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. আনিছুর রহমানের সভাপতিত্বে সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন- হাব সভাপতি এম শাহাদাত হোসাইন তসলিম, ধর্ম মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব (হজ) এ বি এম আমিন উল্লাহ নুরী প্রমুখ।

এমইউ/বিএ

আপনার মতামত লিখুন :