ফজল মাহমুদের পাসপোর্ট জটিলতা নিয়ে যা বললো বিমান

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৮:১০ পিএম, ০৭ জুন ২০১৯

দোহার হামাদ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে বাংলাদেশ বিমানের পাইলট ক্যাপ্টেন ফজল মাহমুদকে আটক বা গ্রেফতারের বিষয়ে বিভিন্ন গণমাধ্যমে যে খবর প্রকাশিত হয়েছে তা ‘সঠিক নয়’ বলে জানিয়েছে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স কর্তৃপক্ষ। শুক্রবার (৭ জুন) বিকেলে বিমানের মহাব্যবস্থাপক (জনসংযোগ) শাকিল মেরাজ স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

এতে বলা হয়, প্রধানমন্ত্রীকে ফিনল্যান্ড থেকে আনতে পাসপোর্ট ছাড়াই বিমানের একটি ফ্লাইট নিয়ে কাতারের দোহা আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে গিয়েছিলেন ক্যাপ্টেন ফজল মাহমুদ। বর্তমানে তিনি পাসপোর্টসহ দোহার ক্রাউন প্লাজা হোটেলে অবস্থান করছেন।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ‘দোহা ইমিগ্রেশনে বাংলাদেশ বিমানের পাইলট আটক বা গ্রেফতারের কোনো ঘটনা ঘটেনি। প্রকৃতপক্ষে সেখানে কোনো পাইলটকে আটক বা জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়নি।’

বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, ‘গত ৫ জুন অপারেটিং ক্যাপ্টেন হিসেবে বিমানের ঢাকা-চট্টগ্রাম-দোহা রুটে বিজি১২৫ ফ্লাইট পরিচালনা করেন ক্যাপ্টেন ফজল মাহমুদ। দোহায় অবতরণের পর তিনি লক্ষ্য করেন তার পাসপোর্ট সঙ্গে নেই।

এমতাবস্থায় তিনি ইমিগ্রেশনে না গিয়ে দোহা এয়ারপোর্টে বিমানের স্টেশন ম্যানেজার ও ঢাকা অফিসের সঙ্গে যোগাযোগ করেন এবং এয়ারপোর্টের ভেতরে হোটেলে ছিলেন। এরপর গতকাল সন্ধ্যায় তার পাসপোর্ট সেখানে পাঠানো হলে তিনি ইমিগ্রেশনের আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন করে দোহায় বাংলাদেশ বিমানের ক্রুদের নির্ধারিত হোটেল ‘ক্রাউন প্লাজায়’ চলে যান।

বর্তমানে পাইলট ফজল মাহমুদ ওই হোটেলেই অবস্থান করছেন এবং বিমান কর্তৃপক্ষের সিদ্ধান্ত মোতাবেক আগামী ১০ জুন ভোর রাতে দোহা থেকে বিজি ১২৬ ফ্লাইট অপারেট করে ঢাকা আসবেন।

বিবৃতিতে স্পষ্ট করে বলা হয়, ‘পাসপোর্টবিহীন বিমান পাইলটকে আটকে দিলো দোহা ইমিগ্রেশন পুলিশ’ শীর্ষক সংবাদসহ বিভিন্ন গণমাধ্যমে যে সংবাদ প্রচারিত হয়েছে তা সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন।

আরএম/এমএমজেড/এমকেএইচ

আপনার মতামত লিখুন :