বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্ক অনুকরণীয় : পররাষ্ট্রমন্ত্রী

কূটনৈতিক প্রতিবেদক কূটনৈতিক প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৭:৫৮ পিএম, ২৩ জুন ২০১৯

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন বলেছেন, পররাষ্ট্রনীতির ক্ষেত্রে বাংলাদেশ একটি আদর্শ। বাংলাদেশ ও ভারতের রাজনৈতিক নেতাদের পরিপক্কতা এবং দুই দেশের সম্পর্ক অন্য দেশের জন্য অনুকরণীয়।

তিনি বলেন, ভারত-বাংলাদেশ স্থল সীমানা, সমুদ্রসীমা এমনকি গঙ্গার পানি চুক্তি - এগুলো আলাপ-আলোচনার মাধ্যমে সমাধান হয়েছে। এ ধরনের অর্জনের জন্য যে পরিপক্কতা ও ধী-শক্তি দরকার সেগুলো দুই দেশের রাজনৈতিক নেতাদের আছে বলেই এ অর্জন সম্ভব হয়েছে।

রোববর (২৩ জুন) ঢাকায় বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেল একুশে টেলিভিশনের জেলা প্রতিনিধি সম্মেলনে এসব কথা বলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

মন্ত্রী বলেন, দেশকে উন্নয়নশীল থেকে উন্নত দেশে রূপান্তরের ক্ষেত্রে আমাদের সামনে বহু চ্যালেঞ্জ আছে। যে দেশ উন্নয়ন করে তাদের বহুদিক থেকে বাধা আসে। আমাদের দেশেও আসতে পারে। সেই সমস্যা মোকাবিলার জন্য গণমাধ্যমকে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে হবে।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনা বাংলাদেশে প্রথম বেসরকারি টেলিভিশন চালু করেন। এতে দেশের মানুষের গণসচেতনতা বহুগুণ বেড়ে গেছে। বেসরকারি টেলিভিশন আমাদের উন্নয়নের বড় হাতিয়ার। এ জন্য প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানাতে হবে।

তিনি বলেন, আগামী দুই বছর বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী এবং স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী পালনের সঙ্গে সঙ্গে আমরা প্রত্যেক ক্ষেত্রে এ দেশের বহুবিধ অর্জন তুলে ধরতে চাই। অর্থনৈতিক কিংবা পররাষ্ট্রনীতি- প্রত্যেক ক্ষেত্রে অর্জন অনেক, এক একটি ক্ষেত্রে আমরা দিকপাল।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বাংলাদেশের অর্জন এবং আগের অবস্থা থেকে যে পরিবর্তন হয়েছে তা বস্তনিষ্ঠ সংবাদ পরিবেশনের মাধ্যমে তুলে ধরতে গণমাধ্যমকে অনুরোধ করেন।

একুশে টেলিভিশনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মেজর জেনারেল (অব.) মোহম্মদ আলী শিকদারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তৃতা করেন সংস্কৃতি বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী কে. এম. খালিদ।

জেপি/এএইচ/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]