ওয়াটারফ্রন্ট স্মার্টসিটি হবে কেরানীগঞ্জে

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০২:২৫ এএম, ২১ নভেম্বর ২০১৯

কেরানীগঞ্জের ঝিলমিল আবাসিক প্রকল্পের পাশে ‘ওয়াটারফ্রন্ট স্মার্টসিটি’ গড়ে তোলার উদ্যোগ নিয়েছে রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (রাজউক)। এটি একটি স্বনির্ভর স্মার্টসিটি হিসেবে বিকশিত হবে যাতে স্বল্প-আয়ের জনগোষ্ঠীর জন্য ছোট আকারের অ্যাপার্টমেন্টের পাশাপাশি জনসাধারণের সকল সুবিধাসহ পর্যাপ্ত জলাশয় থাকবে- এমন লক্ষ্য নিয়েই এগুচ্ছে রাজউক।

প্রকল্পটির সম্ভাব্যতা যাচাই ও পরিবেশগত সমীক্ষার জন্য চায়না রোড অ্যান্ড ব্রিজ কর্পোরেশনের (সিআরবিসি) সঙ্গে সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর করেছে রাজউক। পাশাপাশি তুরাগ নদের বন্যাপ্রবাহ অঞ্চল প্রকল্পেরও সম্ভাব্যতা যাচাই ও পরিবেশগত সমীক্ষার জন্য চুক্তি স্বাক্ষরও হয়েছে।

বুধবার (২০ নভেম্বর) রাজধানীর একটি হোটেলে এ সমঝোতা স্মারকে স্বাক্ষর করেন রাজউকের চেয়ারম্যান ড. সুলতান আহমেদ এবং সিআরবিসির প্রধান প্রকৌশলী সুন ইয়োগুও।

সমঝোতা স্মারকের আওতায় চায়না রোড অ্যান্ড ব্রিজ কর্পোরেশন নিজস্ব অর্থায়নে এক বছরের মধ্যে উল্লিখিত প্রকল্পের সম্ভাব্যতা যাচাই ও পরিবেশগত সমীক্ষা কাজ সম্পাদন করবে।

এ বিষয়ে গৃহায়ন ও গণপূর্তমন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার লক্ষ্য টেকসই উন্নয়ন নিশ্চিত করা। আমরা একশ বছর পরের ডেল্টা প্ল্যান গ্রহণ করেছি। শুধু আজকের জন্যই নয়, আমরা একশ বছর পরের স্বপ্ন দেখছি। প্রত্যেকটি নাগরিকের জন্য, এমনকি যাদের জমি নেই তাদের জন্য বাসস্থান নিশ্চিত করতে প্রধানমন্ত্রী নির্দেশনা দিয়েছেন।

তিনি বলেন, সরকার তৃণমূল গ্রামীণ জনপদ থেকে রাজধানী পর্যন্ত সকলের আবাসন নিশ্চিত করতে কাজ করছে। স্মার্টসিটিতে প্রযুক্তি ব্যবহার করে পরিবেশ রক্ষার মাধ্যমে বাসযোগ্য শহর গড়ে তোলা হবে। এ কাজে সিআরবিসিকে আমাদের পক্ষ থেকে সকল সহযোগিতা প্রদান করা হবে। আশা করি তারা সবটুকু আন্তরিকতা নিয়ে নির্ধারিত সময়ের মধ্যে কাজ সম্পন্ন করবে।

গৃহায়ন ও গণপূর্ত সচিব মো. শহীদ উল্লা খন্দকার বলেন, কেরানীগঞ্জে প্রস্তাবিত স্মার্টসিটিতে নিম্নআয়ের মানুষের জন্য ছোট ছোট অ্যাপার্টমেন্টের সংস্থান থাকবে। এখানে পর্যাপ্ত জলাশয় সংরক্ষণ করা হবে। প্রধানমন্ত্রীর শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আমরা এসডিজি ও ভিশন-২০৪১ বাস্তবায়নে কাজ করছি। আশা করি আলোচ্য প্রকল্প দুটি এসডিজি ও ভিশন-২০৪১ বাস্তবায়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে এবং ঢাকাকে বিশ্বমানের শহর হিসেবে গড়ে তুলবে।

এএস/বিএ