প্যাকেজ বরাদ্দ চায় ‘মা সংসদ’

জাগো নিউজ ডেস্ক
জাগো নিউজ ডেস্ক জাগো নিউজ ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৪:১১ পিএম, ৩০ মে ২০২০

সরকারের মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মাতৃত্বকালীন ভাতাকেন্দ্রিক ‘স্বপ্ন প্যাকেজ’ মডেল কর্মসূচি প্রাথমিকভাবে ১০০ উপজেলায় বাস্তবায়নের জন্য ২০২০-২১ অর্থবছরে ১০০ কোটি টাকা বাজেট বরাদ্দ দাবি করেছে ‘মা-স্বপ্ন ফাউন্ডেশন’র ‘মা সংসদ’ প্লাটফর্ম।

শনিবার (৩০ মে) গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে এ দাবি জানান প্লাটফর্মটির সদস্য নন্দিতা মন্ডল (টুঙ্গীপাড়া), ইতি আক্তার (কালীগঞ্জ), ফাতেমা বেগম (লক্ষ্মীপুর সদর), রাজিয়া বেগম (রামগতি), সালমা খাতুন (মজিবনগর), সন্ধ্যা রবি দাস (শ্রীমঙ্গল), মেরিনা বেগম (বদলগাছি), লিপি বেগম (উলীপুর), মিনারা বেগম (দৌলতখাঁন), সাবিনা ইয়াসমিন (চাটখিল), শ্যামলী আক্তার (সিংড়া), রাবেয়া বেগম (কমলনগর)।

বিবৃতিতে ‘মা সংসদ’র সদস্যরা বলেন, সরকার থেকে ‘স্বপ্ন প্যাকেজ’র স্বাস্থ্য পুষ্টি জন্মনিয়ন্ত্রণ কার্ড, শিক্ষা ও বিনোদন কার্ড, স্বাস্থ্যসম্মত স্যানিটেশনসহ আবাসন, কর্মসংস্থান জীবিকায়ন উপকরণ ও পরিবেশ প্রশিক্ষণ সঞ্চয় আমাদের হস্তান্তর করায় আমরা মালিকানা পেয়েছি। আমরা কেউ এখন আর গরিব নই। আমাদের মর্যাদা বেড়েছে। আমাদের পরিকল্পিত পরিবারে পুষ্টিহীন দুটি সন্তানের অধিক নেই, সবাই স্কুলে যায়, বাল্যবিবাহ নেই, জন্মনিবন্ধনহীন নেই। সমাজে ধনী-গরিবের আয় বৈষম্য কমে আসবে, ন্যায্যতা বাড়বে, অধিকার সংরক্ষণ হবে।

‘আমাদের মত দরিদ্র মায়ের জন্য ‘স্বপ্ন প্যাকেজ’ কার্যক্রম বাস্তবায়নে প্রয়োজন শুধু ‘এক মা এক লাখ টাকা’ বাজেট বরাদ্দ। সামাজিক নিরাপত্তা কর্মসূচির আওতায় ‘স্বপ্ন প্যাকেজ’ মডেল একশত উপজেলায় বাস্তবায়নের জন্য প্রাথমিকভাবে ২০২০-২১ অর্থবছরে একশ কোটি টাকা বাজেট বরাদ্দ প্রয়োজন।’

‘মা সংসদ’র সদস্যরা আরও বলেন, ‘মাতৃত্বকালীন ভাতা’ প্রাপ্তিতে প্রকৃত মা নির্বাচন, বাছাই শর্ত নিশ্চিত করে মেয়াদকাল তিন বছরের স্থলে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ভর্তি পর্যন্ত ৫ বছর করা ও ভাতার পরিমাণ মাসে ৮০০ টাকার স্থলে গার্মেন্টস শ্রমিক মজুরিসম ৮ হাজার টাকা দেয়ার জন্য মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রী ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা এমপি, পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান এমপি, অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল এমপির নিকট বাজেট বরাদ্দ দাবি করছি।

এইচএ/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]