শ্রীহীন সোহরাওয়ার্দী উদ্যান : লেকে নেই পানি, মাঠে খোঁড়াখুঁড়ি

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৫:১৭ পিএম, ০৬ মার্চ ২০২১

রাজধানীর চকবাজারের বাসিন্দা সাদেকুর রহমান। তিনি বেসরকারি একটি প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা। অবসর পেলেই স্ত্রী ও দুই ছেলে মেয়েকে নিয়ে ঐতিহাসিক শহীদ সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে ঘুরতে আসেন। উদ্যানের খোলা মাঠে শিশুরা মনের আনন্দে ছুটোছুটি ও খেলাধুলা করে। আর তিনি স্ত্রীকে নিয়ে স্বাধীনতা স্তম্ভ বা গ্লাস টাওয়ার সংলগ্ন লেকে বসে সময় কাটান। উদ্যানে এলে কখন যে দুই তিন ঘণ্টা পেরিয়ে যায় তা টেরও পান না।

শনিবার (৬ মার্চ) উদ্যানে এসে তিনি কিছুক্ষণ থেকেই সপরিবারে বাসায় ফিরে যাচ্ছিলেন। এ প্রতিবেদকের সঙ্গে আলাপকালে সাদেকুর রহমান বলেন, সোহরাওয়ার্দী উদ্যান একেবারেই শ্রীহীন হয়ে পড়েছে। আসন্ন অমর একুশে বইমেলাকে কেন্দ্র করে গোটা উদ্যান জুড়ে মাটি কাটাকাটি ও খোঁড়াখুঁড়ি করে স্টলের অবকাঠামো তৈরি হচ্ছে। আর উদ্যানের সবচেয়ে আকর্ষণীয় স্থান টলমলে পানির লেকেতো পানিই নেই। লেক জুড়ে পাথর আর পাথর। স্ত্রী ও সন্তানদের মধ্যে এখানে সময় কাটানোর বিন্দুমাত্র ইচ্ছে না থাকায় ফিরে যাচ্ছেন তিনি। সরেজমিনে সোহরাওয়ার্দী উদ্যান ঘুরে সাদেকুর রহমানের কথার সত্যতা মেলে।

jagonews24

বাংলা একাডেমি সূত্রে জানা গেছে, এবার অমর একুশের বইমেলার স্টলের ব্যাপ্তি বেড়েছে। বাংলা একাডেমি প্রাঙ্গণ ও সোহরাওয়ার্দী উদ্যান মিলে আটশতাধিক স্টল নির্মিত হচ্ছে। স্টলের অধিকাংশই সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে হওয়ায় উদ্যানের খোলা মাঠ বলতে এখন আর কিছুই অবশিষ্ট নেই। বিশাল মাঠ জুড়ে শুধু বাঁশের খুঁটি। ৯ মার্চের পর স্টল মালিকরা স্থাপনা নির্মাণ শুরু করবে। এছাড়া উদ্যানের ভেতর বেশ কয়েকটি রেস্টুরেন্ট স্থাপনের কাজ চলমান থাকায় এদিক সেদিক ছড়িয়ে ছিটিয়ে রয়েছে মাটির স্তূপ ও ধুলোবালি।

রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা থেকে ঐতিহাসিক এ উদ্যানে ঘুরতে এসে প্রতিদিন শত শত মানুষ যে লেকের পাড়ে বেঞ্চে বসে টলমলে পরিষ্কার পানিতে মাছের ছু্টে বেড়ানো ও পাখীদের ডুবসাতার দেখে সময় কাটাতো, সেই লেক এখন পানিশূন্য শুকনো পাথরের ধুধু মাঠ। লেকের উপরে চিলদের উড়ে বেড়াতে দেখা যায়।

jagonews24

নিরাপত্তারক্ষীদের সঙ্গে আলাপকালে জানা গেছে, লেকের পানিতে শ্যাওলার পরিমাণ বেশি হওয়ায় সংস্কার কাজের জন্য পানি ফেলে দেয়া হয়েছে। আগামী ২৬ মার্চের আগে আবার লেকে পানি ছাড়া হবে।

এদিকে রোববার ঐতিহাসিক ৭ মার্চ। ১৯৭১ সালের এ দিনটিতে তৎকালীন রেসকোর্স ময়দানে লাখো জনতার উদ্দেশে দেয়া জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঐতিহাসিক ভাষণ গোটা বাঙ্গালি জাতিকে স্বাধীনতা সংগ্রামে ঝাঁপিয়ে পড়ার অনুপ্রেরণা জুগিয়েছে। প্রতি বছরের মতো এ দিবসেও রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা থেকে শত শত মানুষ ছুটে আসবে। কিন্তু উদ্যানে এসে তারা আগের সৌন্দর্যরূপ আর দেখতে পাবেন না।

এমইউ/জেডএইচ/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]