গৃহকর্মীকে নির্যাতনের পর জঙ্গলে ফেলে আসে তারা

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৮:৫৮ এএম, ৩১ মে ২০২১

চট্টগ্রাম নগরের পাঁচলাইশ থানা এলাকায় গৃহকর্মী এক কিশোরীকে (১৫) নির্যাতনের অভিযোগে দম্পতি ও বাড়ির দারোয়ানকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

রোববার (৩০ মে) হামজারবাগের মোমিনবাগ আবাসিক এলাকা থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতাররা হলেন— মো. সেলিম ও তার স্ত্রী জেসমিন আকতার সুমি এবং ওই বাড়ির দারোয়ান মো. আলী আকবার।

পুলিশ জানায়, গত ২৭ মে রাঙ্গুনিয়ায় দুর্গম জঙ্গল থেকে ওই কিশোরীকে উদ্ধার করা হয়। তারপর তাকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। একটু সুস্থ হলেই ভুক্তভোগী কিশোরী তার সঙ্গে ঘটে যাওয়া নির্যাতনের বর্ণনা দেন।

ভুক্তভোগী কিশোরী জানায়, গত ৩ মাস ধরে সে পাঁচলাইশ থানা এলাকার বাসিন্দা মো. সেলিমের বাসায় কাজ করছিল। সেখানে ছোটখাটো ভুল হলে তার ওপর নির্যাতনের খড়গ নেমে আসত। কিছু হলেই চামচ গরম করে গায়ে ছ্যাঁকা দেয়া হতো। কথায় কথায় গায়ে ঢেলে দেয়া হতো গরম পানি। পরিবারের সবাই খাওয়ার সময় তাকে টয়লেটে বন্দি করে রাখত। সর্বশেষ গত ২৭ মে নির্যাতনের একপর্যায়ে সে অজ্ঞান হয়ে যায়।

পাঁচলাইশ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জাহিদুল কবির জাগো নিউজকে বলেন, গত ২৭ মে নির্যাতনের পর ওই কিশোরী অজ্ঞান হয়ে পড়লে তাকে রাঙ্গুনিয়ায় দুর্গম জঙ্গলে ফেলে আসেন বাড়ির মালিক। খবর পেয়ে কিশোরীকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সুস্থ হলেই তার কাছ থেকে বিস্তারিত জেনে বাড়ির মালিক দম্পতি ও এক দারোয়ানসহ মোট তিনজনকে গ্রেফতার করা হয়। তাদের বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট ধারায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

মিজানুর রহমান/এএএইচ/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]