বাজার তদারকিতে দক্ষিণ সিটির অভিযান, লাখ টাকা জরিমানা

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৯:০৪ পিএম, ১৪ অক্টোবর ২০২১

ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) আওতাধীন এলাকার বাজার তদারকি কার্যক্রম শুরু করেছে সংস্থাটির বাজারমূল্য পর্যবেক্ষণ, মনিটরিং ও নিয়ন্ত্রণ-বিষয়ক স্থায়ী কমিটি।

বৃহস্পতিবার (১৪ অক্টোবর) দুপুরে নগরীর বাবুবাজার এলাকার নওয়াব ইউসুফ মার্কেটে এই তদারকি কার্যক্রম চালানো হয়। এসময় ক্রেতা সাধারণের চলাচলের পথ সীমিত করে দোকান স্থাপন, বাড়ানোসহ বিভিন্ন অপরাধে অবৈধভাবে পরিচালিত ২০টি দোকান মালিককে এক লাখ তিন হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

কমিটির সভাপতি ও ৪৬ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর শহীদ উল্লাহ মিনুর নেতৃত্বে তদারকি কার্যক্রম পরিচালনা করা হয়। স্থায়ী কমিটির আট সদস্যের সঙ্গে এসময় করপোরেশনের প্রধান সম্পত্তি কর্মকর্তা রাসেল সাবরিন ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট তানজিলা কবির ত্রপাসহ করপোরেশনের বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা অংশ নেন।

তদারকি কার্যক্রমে নেতৃত্ব দেওয়া কমিটির সভাপতি কাউন্সিলর শহীদ উল্লাহ মিনু বলেন, আমরা নবাব ইউসুফ মার্কেটের কাঁচাবাজার পরিচালনায় চরম অব্যবস্থাপনা লক্ষ্য করেছি। মার্কেটের কলাপসিবল গেট বন্ধ ও দোকানের মধ্যবর্তী রাস্তা বন্ধ করে চলাচলের পথ সরু করে অবৈধভাবে দোকান বানানো হয়েছে। পাশাপাশি কেউ কেউ দোকান বাড়ানোর কারণে বাজার ব্যবস্থাপনায় সমস্যা হচ্ছে। আজকের তদারকিতে আমরা অনেককে জরিমানা, অনেক অবৈধ দোকানিকে উচ্ছেদ ও সতর্ক করেছি। বাজার ব্যবস্থাপনায় শৃঙ্খলা ফেরাতে আমরা এই কার্যক্রম অব্যাহত রাখবো এবং করপোরেশন এলাকাজুড়ে আমাদের এ কার্যক্রম চালানো হবে।

jagonews24

নওয়াব ইউসুফ মার্কেটে তদারকি ও অভিযান প্রসঙ্গে প্রধান সম্পত্তি কর্মকর্তা রাসেল সাবরিন বলেন, বাজার ব্যবস্থাপনায় অনিয়ম দূর করা ও ক্রেতা সাধারণের সুবিধা নিশ্চিত করতে দক্ষিণ সিটি মেয়রের নির্দেশনার আলোকে বাজার মূল্য পর্যবেক্ষণ, মনিটরিং ও নিয়ন্ত্রণ-বিষয়ক স্থায়ী কমিটির সভাপতির নেতৃত্বে আজ আমরা নওয়াব ইউসুফ মার্কেটে তদারকি কার্যক্রমে অংশ নিয়েছি।

তিনি বলেন, এসময় বিভিন্ন ধরনের অনিয়মের জন্য আমি ৫৫ হাজার টাকা অর্থদণ্ড আরোপ করেছি। আমাদের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ত্রপা ৪৮ হাজার টাকা অর্থদণ্ড আরোপ করেছেন। সবমিলিয়ে আজকের কার্যক্রমে এক লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। এসময় অবৈধভাবে স্থাপিত ও বর্ধিত ২০ দোকানিকে উচ্ছেদ করা হয় বলে জানান তিনি।

এমএমএ/এআরএ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]