‘গার্ডার সরানোর সময়ও সড়ক বন্ধ করেনি কেউ’

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১১:১০ পিএম, ১৫ আগস্ট ২০২২

রাজধানীর উত্তরায় নির্মাণাধীন বাস র‌্যাপিড ট্রানজিট (বিআরটি) প্রকল্পের ক্রেন থেকে গার্ডার সরানোর সময় সড়ক বন্ধ ছিল না। ওই সময়ও সড়ক দিয়ে চলছিল সব ধরনের যানবাহন। দুর্ঘটনার সময়ের একটি সিসিটিভি ফুটেজ জাগো নিউজের হাতে এসেছে।

সিসিটিভি ফুটেজ পর্যালোচনা করে দেখা গেছে, সোমবার (১৫ আগস্ট) বিকেল সোয়া ৪টার দিকে ক্রেন দিয়ে ১২০ টন ওজনের একটি গার্ডার সরানোর কাজ চলছিল। এসময় সড়ক দিয়ে যানবাহন চলছিল।

গার্ডার সরানোর আগে অনাবিল পরিবহনের একটি বাসের সামনে ছিল দুর্ঘটনাকবলিত প্রাইভেটকারটি (ঢাকা মেট্রো-গ ২২-৬০০৮)। হঠাৎ প্রায় ৯ থেকে ১০ ফুট ওপর থেকে ছিটকে গাড়ির ওপর পড়ে গার্ডারটি। ওই সময় কিংবা তার আগে বিআরটি প্রকল্পের দায়িত্বরত কাউকে সড়ক বন্ধ করে যান চলাচল বন্ধ করতে দেখা যায়নি।

jagonews24

ঘটনাস্থলে দায়িত্বে থাকা এ প্রকল্পের ইতালিয়ান থাই কোম্পানির একজনের সঙ্গে কথা বলতে চাইলেও তিনি রাজি হননি।

প্রকল্পের বাংলাদেশি একজনের সঙ্গে কথা বলতে চাইলে তিনি বলেন, ‘ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের নির্দেশ রয়েছে, এ বিষয়ে কেউ যেন কথা না বলেন।’

উত্তরা পশ্চিম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ মোহসীন জাগো নিউজকে বলেন, ‘গার্ডার সরানোর সময় সড়ক বন্ধ ছিল কি না, বিষয়টি সিসিটিভি ফুটেজ দেখে নিশ্চিত হওয়া যাবে।’

jagonews24

ঢাকা বাস র‍্যাপিড ট্রানজিট কোম্পানি লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিকল্পনা শফিকুল ইসলাম জাগো নিউজকে বলেন, ‘বিআরটি রাস্তা বন্ধ করতে পারে না। এ বিষয়ে পুলিশের ট্রাফিক বিভাগের সঙ্গে প্রকল্পের চুক্তি রয়েছে। এর বাইরে আপাতত কিছু বলতে পারবো না।’

এর আগে সোমবার বিকেল সোয়া ৪টার দিকে উত্তরা ৩ নম্বর সেক্টরের প্যারাডাইস টাওয়ারের সামনে এ দুর্ঘটনা ঘটে। হতাহতরা ঢাকায় একটি বৌভাতের অনুষ্ঠানে অংশ নিয়ে ফিরছিলেন।

রাতে ফায়ার সার্ভিসের পক্ষ থেকে জানানো হয়, গাড়িটিতে মোট সাতজন যাত্রী ছিলেন। এরমধ্যে দুই শিশু, দুই নারী ও একজন পুরুষ মারা গেছেন।

নিহতরা হলেন- রুবেল (৫০), ঝরণা (২৮), ফাহিমা, জান্নাত (৬) ও জাকারিয়া (২)। দুর্ঘটনায় হৃদয় (২৬) ও রিয়া মনি (২১) নামে নবদম্পতিও আহত হয়েছেন। তাদেরও হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

স্বজনরা জানান, ফাহিমা হলেন নববধূ রিয়া মনির মা। আর ঝরণা হলেন তার খালা। রুবেল সম্পর্কে ফাহিমা-ঝরণার বেয়াই। জান্নাত ও জাকারিয়া ঝরণার সন্তান। ফাহিমা-ঝরণাদের বাড়ি জামালপুরের ইসলামপুরে। আর রুবেলের বাড়ি মেহেরপুরে।

এদিকে, উত্তরায় ক্রেন দুর্ঘটনা তদন্তে পাঁচ সদস্যের কমিটি গঠন করেছে সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগ। সোমবার রাতে সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের সচিব এ বি এম আমিন উল্লাহ নুরী জাগো নিউজকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, কমিটিতে সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের অতিরিক্ত সচিব (আরবান ট্রান্সপোর্ট অনুবিভাগ) নীলিমা আখতারকে প্রধান করা হয়েছে। তদন্ত কমিটিকে একদিনের মধ্যে প্রাথমিক ও দুদিনের মধ্যে পূর্ণাঙ্গ প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে।

টিটি/এএএইচ

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।