‘আকাশ মুন্সি ভাই’ সূত্রে গৃহবধূ হত্যার রহস্য উন্মোচন, গ্রেফতার ৩

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৯:৫৩ এএম, ০৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৩

ভোরে গোয়াল ঘর থেকে গরু বের করে পিকআপভ্যানে তুলে নিয়ে যাচ্ছিল ডাকাত দল। টের পেয়ে ছেলেকে সঙ্গে নিয়ে পিকআপের সামনে গিয়ে ঢাল হয়ে দাঁড়িয়েছিলেন গৃহবধূ সেলিনা খাতুন (৪৫)। পালাতে গিয়ে ডাকাত দল শেষ পর্যন্ত মা-ছেলের ওপর পিকআপভ্যান তুলে দেন। এতে ঘটনাস্থলে নিহত হন সেলিনা। আহত ছেলে জুবায়ের হোসেনকে (২২) ভর্তি করা হয় হাসপাতালে।

ঘটনার সাতদিন পর পিকআপভ্যানে চাপা দিয়ে গৃহবধূকে হত্যার ঘটনায় জড়িত ডাকাত দলের তিন সদস্যকে গ্রেফতার করেছে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। গ্রেফতাররা হলেন- মো. লিটন ফকির (৪৫), মো. জিল্লুর আকন্দ (৪৮) ও মোহাম্মদ আলী (৫৫)। গাজীপুর ও নাটোর থেকে এ তিনজনকে গ্রেফতার করা হয়।

ডিবি বলছে, গত ৩১ জানুয়ারি ভোরে সিরাজগঞ্জ সদরে গৃহবধূ সেলিনা খাতুনকে চাপা দিয়ে পিকআপ রেখে পালিয়ে যান ডাকাত দলের সদস্যরা। পিকআপ থেকে ‘আকাশ মুন্সি ভাই’ লেখা একটি কার্ড পাওয়া যায়। এ কার্ডের সূত্র ধরে ডাকাত দলটির সন্ধান মেলে।

আরও পড়ুন: চোর ধরতে গিয়ে পিকআপের চাকায় পিষ্ট গৃহবধূ

বুধবার (৮ ফেব্রুয়ারি) গোয়েন্দা মতিঝিল বিভাগের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (এডিসি) শাহিদুর রহমান রিপন জাগো নিউজকে এসব তথ্য জানান।

তিনি বলেন, যে কার্ডটি পাওয়া যায় সেই কার্ডে ‘আকাশ মুন্সি ভাই’ লেখা ছিল। এই প্রতিষ্ঠান দেশের বিভিন্ন এলাকায় ট্রাক ও পিকআপভ্যান ভাড়া দিয়ে থাকে। তাদের নিজেদের কয়েকটি ট্রাক ও পিকআপ ভ্যান রয়েছে। পাশাপাশি নির্দিষ্ট কমিশনের বিনিময়ে ট্রাক ও পিকআপভ্যান ভাড়া দেওয়ার ক্ষেত্রে মধ্যস্থতাও করে তারা। গৃহবধূকে চাপা দেওয়া পিকআপটিও ওই ব্যানারে চলে।

আরও পড়ুন: সিরাজগঞ্জে পিকআপ চাপায় গৃহবধূ হত্যায় গ্রেফতার ৪

উদ্ধার করা কার্ডটিতে উল্লিখিত আকাশ মুন্সি ভাইয়ের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে এক ব্যক্তি বলেন, এই পিকআপভ্যানের মালিক অন্য একজন। পরে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, পিকআপটির আরও তিন দফা মালিকানা পরিবর্তন হয়েছে। সবশেষ মালিক লিটন ফকির ডাকাতির কাজে এটি ব্যবহার করতেন।

এডিসি শাহিদুর রহমান আরও বলেন, পিকআপভ্যানের মালিক লিটন ফকিরের বিষয়ে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, তার বিরুদ্ধে ডাকাতিসহ ৯টি মামলা রয়েছে। তদন্তে ঘটনাস্থলে লিটন ছিলেন, এমন তথ্য পাওয়া গেছে। লিটনসহ তিনজনকে গ্রেফতারের পর গৃহবধূ হত্যার রহস্যও উদ্ঘাটন হয়েছে। এ ঘটনায় আমিরুল ইসলাম ওরফে আমিরের (৪৮) বিরুদ্ধে মামলা হলেও তিনি ঘটনার সঙ্গে জড়িত নন।

টিটি/এমকেআর/এমএস

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।