মুক্তাকে দেখতে ঢামেকে জাকির

মাহাবুর আলম সোহাগ
মাহাবুর আলম সোহাগ মাহাবুর আলম সোহাগ , সহকারী বার্তা সম্পাদক (কান্ট্রি ইনচার্জ) ঢামেক
প্রকাশিত: ০৩:২৮ পিএম, ১২ জুলাই ২০১৭

এই মুহূর্তে দেশের সবচেয়ে আলোচিত বিরল রোগে আক্রান্ত ১২ বছর বয়সী কিশোরী মুক্তাকে দেখতে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে যান কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক এসএম জাকির হোসেইন।

বুধবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় তিনি বার্ন ইউনিটের ৬০৮ নম্বর রুমে যান।

এসময় তিনি মুক্তার জমজ বোন হীরা, তার বাবা ইব্রাহিম ও আসমাকে সান্ত্বনা দিয়ে বলেন, মুক্তার পাশে রয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। মুক্তাকে সুস্থ করে তোলার জন্য তিনি সরাসরি কাজ করছেন।

তিনি বলেন, মুক্তার জন্য দেশবাসীর দোয়া রয়েছে। ইনশাআল্লাহ সে দ্রুত সুস্থ হয়ে উঠবে। আপনারাও প্রধানমন্ত্রীর জন্য দোয়া করবেন। তিনি সুস্থ থাকলে দেশের প্রতিটি মানুষ ভালো থাকবেন।

ছাত্রলীগের এই নেতা মুক্তা ও তার জমজ বোনের সঙ্গে লেখাপড়াসহ বিভিন্ন বিষয়ে কথা বলেন। একপর্যায়ে মুক্তার মুক্তা ঝড়ানো কথায় মুগ্ধ হয়ে পড়েন তিনি।

মুক্তাও ছাত্রলীগ নেতা জাকিরকে তার জন্য দোয়া করতে বলে।

তার কথা শুনে জাকির বলেন, তুমি দ্রুত সুস্থ হয়ে ওঠ। তোমাকে দেখতে সাতক্ষীরা যাব।

এ সময় জাকিরের সঙ্গে ঢাকা মেডিকেল কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকসহ ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা মুক্তাকে দেখতে যান।

প্রসঙ্গত, সাতক্ষীরা সদর উপজেলার ১২ বছর বয়সী মুক্তা বিরল এক রোগে আক্রান্ত। তার ডান হাতে গাছের বাকলের মতো জন্মেছে। এতে করে সম্পূর্ণ হাতটি মোটা হয়ে গেছে।

তার এ ঘটনাটি জাগো নিউজসহ বেশ কিছু মিডিয়া তুলে ধরে। এতে বিষয়টি দেশব্যাপী সাড়া পড়ে যায়। অবশেষে সরকারিভাবে তার চিকিৎসার উদ্যোগ নেয়া হয়।

এরপর গতকাল মঙ্গলবার সকালে মুক্তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে ভর্তি করা হয়। মুক্তা সেখানে বিভাগীয় প্রধান সামন্ত লালের তত্ত্বাবধানে রয়েছে।

এমএএস/জেআইএম

আপনার মতামত লিখুন :