দারফুর জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনে বঙ্গবন্ধু কর্নার উদ্বোধন

প্রবাস ডেস্ক প্রবাস ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৮:৪৫ এএম, ৩০ আগস্ট ২০২০

দারফুর জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনে আজ বাংলাদেশ ফর্মড পুলিশ ইউনিটের আফ্রিকান ইউনিয়ন ইউনাইটেড ন্যাশনস হাইব্রিড মিশন ইন ডরফুরের সার্ভিস ডেলিভারি সেকশন প্রধান ও সুদানে নবগঠিত মিশন ‘ইউএনআইটিএমএসে’র চিফ মিশন সাপোর্ট ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অবঃ) প্রেম জিত সিং ‘বঙ্গবন্ধু কর্নার’ উদ্বোধন করেন।

গত ২৭ জানুয়ারি ‘ইউএনএএমআডি’ মিশন প্রধান জয়েন্ট স্পেশাল রিপ্রেজন্টেটিভ জেরেমিয়া কিন্সলে মামাবলো ‘বঙ্গবন্ধু কর্নার’ এর কাজ উদ্বোধন করেন এবং আজ তা মিশন এরিয়ার দর্শকদের জন্য উন্মুক্ত করে দেয়া হয়।

sudan

বাংলাদেশ ফর্মড পুলিশ ইউনিটের নারী প্লাটুন ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অবঃ) প্রেম জিত সিংকে গার্ড অব অনার প্রদান করেন। তারপর তিনি ‘বঙ্গবন্ধু কর্নার’ এর সম্মুখভাগে একটি বৃক্ষ রোপণ করেন। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কর্মময় জীবনের দুর্লভ ১০৫টি ছবি, ১০টি ভিডিও এবং শতাধিক ইংরেজী ভাষায় অনূদিত বই এই কর্নারে স্থান পায়।

প্রেম সিং বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভূয়সী প্রশংসা করেন। তিনি এই কর্নারের নির্মাতা কমান্ডার মো. আব্দুল হালিমকে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, দারফুর মিশনে বাংলাদেশ ফর্মড পুলিশ ইউনিট রোল মডেল। ব্যানএফপিইউ দারফুরের নাগরিকদের নিরাপত্তা দেয়ার পাশাপাশি তাদের পরিবেশ ও আর্থ সামাজিক উন্নয়নে ব্যাপক ভূমিকা পালিন করার কথা কৃতজ্ঞচিত্তে স্মরণ করেন।

sudan-1

বাংলাদেশ ফর্মড পুলিশ ইউনিটের কমান্ডার মোহাম্মদ আব্দুল হালিম জানান, আমরা সর্বপ্রথম জাতির পিতা ও তার পরিবারের সদস্যদের নামে বিভিন্ন স্থাপনা এই মিশন এরিয়াতে প্রতিষ্ঠা করি। এর মাধ্যমে সুদানে অবস্থিত নানা দেশের কর্মরত জনগণ আমাদের জাতির পিতা ও তার পরিবার সম্পর্কে অবগত হতে পারছেন।

তিনি জানান, একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা ও শহীদ পরিবারের সন্তান হিসাবে আমার দায়িত্ব বিশ্বের বুকে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তার পরিবারের সদস্যদের পরিচয় করিয়ে দেয়া, তারই ধারাবাহিকতায় আজ ‘বঙ্গবন্ধু কর্নার’ উদ্বোধন করা হলো। এ কর্নার মার্চ মাসে জাতির পিতার জন্মদিনে উদ্বোধন করার কথা থাকলেও বিশ্বব্যাপী করোনা মহামারির কারণে পিছিয়ে তা আজকের দিনে দর্শানার্থীদের জন্য উন্মুক্ত করা হলো। প্রতিদিন স্বাস্থ্যবিধি মেনে সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত খোলা থাকবে।

এমআরএম/পিআর

প্রবাস জীবনের অভিজ্ঞতা, ভ্রমণ, গল্প-আড্ডা, আনন্দ-বেদনা, অনুভূতি, স্বদেশের স্মৃতিচারণ, রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক লেখা পাঠাতে পারেন। ছবিসহ লেখা পাঠানোর ঠিকানা - [email protected]