দিন-রাত গোনাহমুক্ত থাকার ছোট্ট জিকির

ধর্ম ডেস্ক
ধর্ম ডেস্ক ধর্ম ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৯:৫৬ এএম, ২৬ জুলাই ২০২০

- হজরত আবু হুরায়রা রাদিয়াল্লাহ আনহু বর্ণনা করেন, রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, যে ব্যক্তি সকাল-সন্ধ্যায় ১০০ বার এ দোয়া পড়বে, ওই ব্যক্তির সমুদ্রের ফেনা পরিমাণ গোনাহও ক্ষমা করা হবে। (বুখারি, মুসলিম, মিশকাত)

প্রতিদিনের ভুল-ভ্রান্তি ও গোনাহ থেকে মানুষকে মুক্ত রাখতে হাদিসে অনেক আমলের বর্ণনা এসেছে। রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উম্মতের শিক্ষাগ্রহণের জন্য অনেক আমল নিয়মিত নিজে করেছেন এবং তাঁর উম্মতকে করতে বলেছেন। যাতে মুমিন মুসলমান এ আমলের মাধ্যমে নিজেকে আল্লাহর একান্ত প্রিয় বান্দা হিসেবে তৈরি করতে পারেন। হাদিসের একাধিক বর্ণনায় এ ছোট্ট তাসবিহ-এর আমলের কথা তুলে ধরা হয়েছে। এ ছোট্ট তাসবিহ হলো-
سُبْحَانَ اللهِ وَ بِحَمْدِهِ
উচ্চারণ : সুবহানাল্লাহি ওয়া বিহামদিহি

- হজরত আবু হুরায়রা রাদিয়াল্লাহু আনহু আরও বর্ণনা করেন যে, বিশ্বনবি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, যে ব্যক্তি সকাল-সন্ধ্যায় ১০০ বার এ তাসবিহ বলবে (পড়বে); ওই ব্যক্তি কেয়ামাতের দিন সবচেয়ে বেশি নেকির অধিকারী হবে। (বুখারি, মুসলিম, মিশকাত)

হাদিসে বর্ণিত সকাল-সন্ধ্যার ছোট ছোট এসব তাসবিহ মানুষের জন্য উত্তম নসিহত। যা মানুষকে অন্যায় পথ থেকে ফিরিয়ে রাখে। গোনাহ থেকে হেফাজত করে। আল্লাহর স্মরণে এগিয়ে রাখে। পাশাপাশি এ আমলের বিনিময়ে মহান আল্লাহ মানুষকে দুনিয়াতে অনেক বেশি বেশি নেকি ও উপকারিতা দান করেন। পরকালের সফলতাও সুনিশ্চিত।

আল্লাহ তাআলা মুসলিম উম্মাহকে ছোট্ট এ তাসবিহ’র আমল করে সমুদ্রের ফেনা পরিমাণ গোনাহ মাফ পাওয়ার এবং কেয়ামাতের কঠিন সময়ে অধিক নেকির অধিকারী হওয়ার তাওফিক দান করুন। হাদিসের উপর যথাযথ আমল করার তাওফিক দান করুন। আমিন।

এমএমএস/পিআর

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]