অমুসলিমদের সঙ্গে আচরণে কোরআনের নির্দেশনা

ফারুক ফেরদৌস
ফারুক ফেরদৌস ফারুক ফেরদৌস , সহ-সম্পাদক, জাগো নিউজ
প্রকাশিত: ০৭:৩৩ পিএম, ২১ অক্টোবর ২০২৩

মুসলিমপ্রধান বেশিরভাগ দেশের মতো আমাদের দেশেও ইসলাম ধর্মের অনুসারী ছাড়া অন্যান্য ধর্মের বহু মানুষ আছে, যাদের সাথে বিভিন্ন প্রয়োজনে আমাদের ওঠাবসা, লেনদেন ইত্যাদি করতে হয়। আমাদের সহকর্মী ও প্রতিবেশীদের অনেকে অমুসলিম। এছাড়া অমুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করা কেউ মুসলমান হলে তার আত্মীয়দের বেশিরভাগই অমুসলিম হওয়া স্বাভাবিক।

ইসলাম মুসলমানদের মতোই অমুসলিম আত্মীয়-স্বজন, প্রতিবেশী, সহকর্মীদের সাথে ন্যায় ও উত্তম আচরণ করার নির্দেশ দেয়। আত্মীয় ও প্রতিবেশী হিসেবে তাদের প্রতি দায়িত্ব পালন করার নির্দেশ দেয়। তবে তাদের প্রভাবে বা মন রক্ষার জন্য আল্লাহর নির্দেশের বিপরীত কাজ করতে নিষেধ করে। কোরআনে আল্লাহ অমুসলিম বাবা-মায়ের শিরক করার নির্দেশ পালন করতে নিষেধ করার পাশাপাশি দুনিয়াবি অন্যান্য ব্যাপারে তাদের সাথে উত্তম আচরণ করার নির্দেশ দিয়েছেন। আল্লাহ বলেন,

وَ وَصَّیۡنَا الۡاِنۡسَانَ بِوَالِدَیۡهِ حَمَلَتۡهُ اُمُّهٗ وَهۡنًا عَلٰی وَهۡنٍ وَّ فِصٰلُهٗ فِیۡ عَامَیۡنِ اَنِ اشۡکُرۡ لِیۡ وَ لِوَالِدَیۡکَ اِلَیَّ الۡمَصِیۡرُ وَإِنْ جَاهَدَاكَ عَلى أَنْ تُشْرِكَ بِي مَا لَيْسَ لَكَ بِهِ عِلْمٌ فَلَا تُطِعْهُمَا وَصَاحِبْهُمَا فِي الدُّنْيَا مَعْرُوفًا وَاتَّبِعْ سَبِيلَ مَنْ أَنَابَ إِلَيَّ ثُمَّ إِلَيَّ مَرْجِعُكُمْ فَأُنَبِّئُكُمْ بِمَا كُنْتُمْ تَعْمَلُونَ.

আর আমি মানুষকে তার বাবা-মায়ের সাথে সদাচরণের নির্দেশ দিয়েছি। তার মা কষ্টের পর কষ্ট ভোগ করে তাকে গর্ভে ধারণ করে, তার দুধ ছাড়ানো হয় দুবছরে; সুতরাং আমার ও তোমার বাবা-মায়ের শুকরিয়া আদায় করো। প্রত্যাবর্তন তো আমার কাছেই। তোমার বাবা-মা যদি তোমাকে পীড়াপীড়ি করে আমার সাথে শরীক করতে যে বিষয়ে তোমার কোন জ্ঞান নেই তাহলে তুমি তাদের কথা মানবেনা। তবে পৃথিবীতে তাদের সাথে বসবাস করবে সদ্ভাবে আর অনুসরণ করো তার পথ, যে আমার অভিমুখী হয়। তারপর তোমরা ফিরে আসবে আমার কাছে এবং তোমরা যা করতে সে বিষয়ে আমি তোমাদের অবহিত করবো। (সুরা লোকমান: ১৫)

কোরআনের আরেক জায়গায় আল্লাহ অমুসলিমদের দুটি দলে ভাগ করেছেন; একদল যারা জালিম, মুসলমানদের বিরুদ্ধে যুদ্ধরত, আরেকদল যারা মুসলমানদের ওপর জুলুম করেনি বা মুসলমানদের বিরুদ্ধে যুদ্ধরত নয়। মুসলমানদের ওপর জুলুম করেনি বা যুদ্ধরত নয় এমন অমুসলিমদের সাথে ন্যায় ও উত্তম আচরণের নির্দেশ দিয়ে আল্লাহ বলেন,

لَا يَنْهَاكُمُ اللَّهُ عَنِ الَّذِينَ لَمْ يُقَاتِلُوكُمْ فِي الدِّينِ وَلَمْ يُخْرِجُوكُمْ مِنْ دِيَارِكُمْ أَنْ تَبَرُّوهُمْ وَتُقْسِطُوا إِلَيْهِمْ إِنَّ اللَّهَ يُحِبُّ الْمُقْسِطِينَ إِنَّمَا يَنْهَاكُمُ اللَّهُ عَنِ الَّذِينَ قَاتَلُوكُمْ فِي الدِّينِ وَأَخْرَجُوكُمْ مِنْ دِيَارِكُمْ وَظَاهَرُوا عَلَى إِخْرَاجِكُمْ أَنْ تَوَلَّوْهُمْ وَمَنْ يَتَوَلَّهُمْ فَأُولَئِكَ هُمُ الظَّالِمُونَ

যারা দীনের ব্যাপারে তোমাদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করেনি এবং তোমাদের তোমাদের ঘর-বাড়ি থেকে বহিষ্কার করেনি, তাদের সঙ্গে সদাচরণ করতে ও তাদের প্রতি ইনসাফ করতে আল্লাহ তোমাদেরকে নিষেধ করেন না। নিশ্চয়ই আল্লাহ ইনসাফকারীদের ভালোবাসেন। আল্লাহ তো তোমাদের তাদের সাথে বন্ধুত্ব করতে নিষেধ করেছেন, যারা দীনের ব্যাপারে তোমাদের সাথে যুদ্ধ করেছে, তোমাদেরকে তোমাদের ঘর-বাড়ি থেকে বের করে দিয়েছে এবং তোমাদেরকে বের করার কাজে একে অন্যের সহযোগিতা করেছে। যারা তাদের সাথে বন্ধুত্ব করবে তারা জালিম। (সুরা মুমতাহিনা: ৮, ৯)

ওএফএফ/জেআইএম

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।