মক্কায় আবার শুরু হচ্ছে রাসুলের যুগের ঐতিহাসিক ‘ওকাজ মেলা’!

ধর্ম ডেস্ক
ধর্ম ডেস্ক ধর্ম ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৬:১৫ পিএম, ২০ আগস্ট ২০১৯

রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের যুগের ঐতিহাসিক ওকাজ মেলা আজকের উদ্বোধনের মাধ্যমে আবার শুরু হতে যাচ্ছে। পবিত্র নগরী মক্কার হাজার হাজার বছরের পুরনো এ ঐতিহ্য ‘ওকাজ মেলা’ বাদশাহ সালমানের উদ্বোধন করার কথা থাকলেও এবার তা উদ্বোধন করবেন মক্কার গভর্নর প্রিন্স খালিদ আল-ফয়সাল। খবর আল আরাবিয়া ডটনেট।

আজ মঙ্গলবার ওকাজ মেলা শুরু হতে যাচ্ছে। এ মেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে দেশ-বিদেশের মন্ত্রী, কূটনীতিকগণসহ সৌদি আরবের জেনারেল অথরিটি ফর ট্যুরিজম এন্ড কালচারের পরিচালনা পর্ষদের চেয়ারম্যান এবং পর্যটন মৌসুমের জন্য গঠিত কমিটির চেয়ারম্যান আহমদ আল-খতিব উপস্থিত থাকবেন।

ওকাজ মেলা যদিও প্রাক ইসলামি যুগে নৈতিকতা ও সামাজিক কুসংস্কারের চরম সীমায় পৌঁছে গিয়েছিল। তথাপিও সে সময় ওকাজ মেলায় বশত কবি-সাহিত্যিকদের আসর। সে সাহিত্য পরিষদে প্রকাশ পেতো অনেক প্রশংসনীয় চারিত্রিক গুণ।

সে সময় সাহিত্য পাঠ, কবিতা আবৃত্তি, বাগমিতা এবং কাব্যপ্রেম ছিল অনত্যম। মূলত এ কবিতা আবৃত্তি ও বাগ্মিতাকে কেন্দ্র করেই মক্কার অদূরে অবস্থিত ওকাজ নামক স্থানে এ মেলার সূচনা হয়েছিল। পৃথিবীর ইতিহাসে তা ছিল ওকাজ মেলা নামে পরিচিত হয়েছিল।

সে সময় ওকাজ মেলায় কবিতা ও সাহিত্যের যে আসর বসত। তার ওপর কবি ও সাহিত্যিকদের বিজয়ী ঘোষণা করে সে জন্য পুরস্কার বিতরণ করা হতো। বিজয়ীদের কবিতা ও সাহিত্যগুলো বর্তমান সময়ের দেয়ালিকার মতো পবিত্র কাবা ঘরে দেয়ালে ঝুলিয়ে রাখা হতো।

সৌদি আরবের রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা (এসপিএ)-এর বরাতে জানা যায়, আজ মক্কার গভর্নর প্রিন্স খালিদ আল-ফয়সাল ওকাজ মেলার উদ্বোধন করবেন। হারিয়ে যাওয়া জাতীয় ঐতিহ্য রক্ষা এবং আরব সভ্যতা, কবিতা, সাহিত্য কলা, সংস্কৃতি এবং ইসলামের ইতিহাসের প্রতি প্রিন্স খালিদ আল-ফয়সালের গভীর নজর রয়েছে।

কালচারাল পরিচালনা পর্ষদের চেয়ারম্যান আল-খতিব বলেন, এবারের ওকাজ মেলা অতীতের মতো নয় বরং এবারের এ উৎসবের উপস্থিতি সংখ্যা নতুন রেকর্ড তৈরি করবে।

এবারের ওকাজ মেরায় বিভিন্ন শিল্পকলা প্রদর্শনের পাশাপাশি আরব বিশ্বের সংস্কৃতি ও সৌদি আরবের বৈশিষ্ট্যযুক্ত খাবারগুলিও সরবরাহ করা হবে। আজকে শুরু হওয়া এ মেলায় ১১টি আরব দেশের শিল্পীরা অংশগ্রহণ করবেন।

এ ছাড়াও ইয়ুথ অফ এক্সিলেন্স, ফারসান ওকাজ, ভাষা আর্ট গ্যালারী, সংগীত গ্যালারী, বাড়ি তৈরির প্রদর্শনী, হোটেল ক্যাফে ও ২৮০০ লোকের বসার ক্ষমতা সম্পন্ন একটি বিশাল থিয়েটারও থাকবে এ মেলায়।

এমএমএস/জেআইএম