দেওবন্দ মাদরাসার ৭৬ বছর বয়সী ছাত্রের ইন্তেকাল

ধর্ম ডেস্ক
ধর্ম ডেস্ক ধর্ম ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৩:০৬ পিএম, ০৫ এপ্রিল ২০২০

ভারতের দারুল উলুম দেওবন্দের সবচেয়ে বেশি বয়সী ছাত্র মাওলানা মাজহার আলি কাসেমি (৭৬) কিতাব পড়া অবস্থায় হৃদক্রিয়া বন্ধ হয়ে ইন্তেকাল করেছেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)।

মাজহার আলি কাসেমি ভারতের মহারাষ্ট্রের একটি কলেজে গণিত ও ফিজিক্স বিষয়ে ৩০ বছর শিক্ষকতা করেন। কলেজে শিক্ষকতা করার সময় তিনি এক মাদরাসায় পড়াশোনা অব্যাহত রাখেন। কলেজ থেকে অবসরের পর তিন বছর আগে দারুল উলুম দেওবন্দে এসে ভর্তি পরীক্ষা দেন।

করোনায় আক্রান্ত হওয়ার পর দারুল উলুম দেওবন্দ বন্ধ হয়ে যায়। ফলে মাদরাসা খোলার পরই তার দাওরায় চূড়ান্ত পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করার কথা ছিল। পরীক্ষার প্রস্তুতিতে সে পড়াশোনা চালিয়ে যাচ্ছিল। পড়ালেখা করার সময়ই তার মৃতু্ হয়।

তিন বছর আগে কলেজ থেকে অবসরে যাওয়ার পর তিনি দরুল উলুম দেওবন্দে জালালাইন জামাআতে ভর্তির জন্য লিখিত পরীক্ষা দিয়ে সফলভাবে উত্তীর্ণ হন। এ বছর তিনি দাওরায়ে হাদিসে পড়াশোনা করছিলেন।

মাওলানা মাজহার কাসেমি ছিলেন দারুল উলুম দেওবন্দের সবচেয়ে বেশি বয়স্ক ছাত্র। তার মৃত্যুতে দেওবন্দের ওস্তাদদের মাঝে শোকের ছায়া নেমে আসে। তিনি এহাতায়ে মসজিদে কাদিমের একটি রুমে থাকতেন। সেখানেই পরীক্ষার প্রস্তুতি গ্রহণে কিতাব পড়ছিলেন। কিতাব সামনে রেখেই দারুল উলুম দেওবন্দের ৭৬ বছর বয়সী ছাত্র মাওলানা আজহার ইন্তেকাল করেন।

দারুল উলুম দেওবন্দের মুহতামিম মুফতি আবুল কাসেম নোমানী তার জানাজায় ইমামতি করেন।

এমএমএস/এমকেএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]