রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের জন্মমাস ও তারিখ


প্রকাশিত: ০৯:০৩ এএম, ১৭ ডিসেম্বর ২০১৫

রবিউল আউয়াল মাস মর্যাদা লাভ করেছে রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের শুভাগমন এবং ওফাতের মাস হিসেবে। রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের জন্মবার ও জন্ম বৎসর নিয়ে হাদিসে সুস্পষ্ট বক্তব্য থাকলেও রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের সুনির্দিষ্ট জন্মমাস ও তারিখ সম্পর্কে হাদিসে কোনো তথ্য পাওয়া যায় না। এ কারণে পরবর্তী যুগের আলেম এবং ঐতিহাসিকগণ এ সম্পর্কে মতভেদ করেছেন। তাই আলেম এবং ঐতিহাসিকগণের সংক্ষিপ্ত মতামত তুলে ধরা হলো-

আত-তানবির ফি মাওলিদিল বাশির আন নাযির, ইবনে সাদ : আত-তাবাকাতুল কুবরা, ইবনে কাসির : আল বিদায়া ওয়ান নিহায়া, ইবনে ইসহাক : সীরাতে ইবনে হিশাম, কাস্তালানিসহ ঐতিহাসিক সীরাত ও মিলাদ গ্রন্থ প্রনেতাগণের বিবৃতি থেকে যা জানা যায়-

০১. ২য় হিজরির ঐতিহাসিক মুহাদ্দিস আবু মা’শার নাজিহ এর মতে, তিনি রবিউল আউয়াল মাসের ২ তারিখ পৃথিবীতে শুভাগমন করেন।

০২. হজরত ইবনে আব্বাস এবং যুবাইর ইবনে মুতইম রাদিয়াল্লাহু আনহুমা সাহাবাদ্বয় বলেন, রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম রবিউল আউয়াল মাসের ৮ তারিখ জন্মগ্রহণ করেন। মুহাম্মদ ইবনে যুবাইর ইবনে মুতইম, আল্লাম কাস্তালানি ও যারকানির বর্ণনার এ মতটি অধিকাংশ মুহাদ্দিস ও ঐতিহাসিকগণ গ্রহণ করেছেন। মিলাদের ওপর প্রথম গ্রন্থ রচনাকারী আল্লামা আবুল খাত্তাব ইবনে দেহিয়া (৬৩৩হি.) তার রচিত ‘আত-তানবির ফি মাওলিদিল বাশির আন নাযির’ গ্রন্থেও এ মতটিকে গ্রহণ করেছেন।

০৩. তারিখে খুযরী ও রাহমাতুল্লিল আলামীন গ্রন্থদ্বয়ে ৯ রবিউল আউয়াল (ফিলের বছর) সোমবার দিবস-রজনীর মহাসন্ধিক্ষণে সুবহে সাকের সময় জন্মলাভ করেন।

০৪. হজরত ইমাম হুসাইন রাদিয়াল্লাহু আনহুর পৌত্র মুহাম্মদ ইবনে আলি আল বাকের (১১৪হি.) ও মুহাদ্দিস আমির ইবনে শারাহিল আশশাবি (১০৪হি.) বর্ণনায় তিনি ১০ রবিউল আউয়াল জন্মগ্রহণ করেন।

০৫. হিজরি ২য় শতাব্দির প্রখ্যাত ঐতিহাসিক মুহাম্মদ ইবনে ইসহাক-এর (১৫১হি.) বণনায় রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম রবিউল আউয়াল মাসের ১২ তারিখ শুভাগমন করেন।

উল্লেখ্য যে, ইবনে ইসহাক রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের জীবনের সকল বিষয়গুলো সাধারণত সনদসহ বর্ণনা করেছেন। কিন্তু এ তথ্যটির  কোনো সনদ উল্লেখ করেননি।

০৬. হিজরি ৩য় শতকের ঐতিহাসিক যুবাইর ইবনে বাক্কার (২৫৬হি.) তিনি রমজান মাসে জন্ম গ্রহণ করেছেন। তিনি বলেন, যেহেতু রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম ৪০ বৎসর বয়সে রমজান মাসে নবুয়্যতপ্রাপ্ত হন, সেহেতু তিনি অবশ্যই রমজান মাসে জন্মগ্রহণ করেছেন।

০৭. কারো কারো মতে রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম, মহররম, সফর, রবিউস সানী, রজব মাসে ভিন্ন ভিন্ন মত প্রকাশ করেছেন।

সর্বোপরি, যেহেতু রবিউল আউয়াল মাস এবং তারিখের ব্যাপারে অনেক মতভেদ প্রকাশ পেয়েছে, তথাপিও এদেশের আপামর জনসাধরণ রবিউল আউয়াল মাস এবং ১২ তারিখকে রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের জন্মমাস হিসেবে জানে এবং সর্বাধিক সনদে রচিত রাসুলের জীবনীগ্রন্থ প্রণেতা ইবনে ইসহাক ১২ রবিউল আউয়ালকে মাস এবং তারিখ হিসেবে উল্লেখ করেছেন, সে হিসেবে আমরা ১২ তারিখকে রাসুলের জন্ম তারিখ হিসেবে জানি।

এ মাস ও তারিখ নিয়ে মতভেদ ছিল, আছে, থাকবে। তা সত্বেও আমরা রাসুল সাল্লাল্লামের শুভাগমন থেকে শুরু করে ইন্তেকাল পর্যন্ত সমগ্র জীবনকে আমাদের জন্য আদর্শ হিসেবে গ্রহণ করি। আল্লাহ তাআলা সকল উম্মাতে মুহাম্মাদীকে তাঁর উপর নাজিলকৃত বিধানের আনুগত্য, অনুসরণ ও অনুকরণ করার মাধ্যমে সঠিক আশেকে রাসুল এবং আল্লাহর প্রিয় বান্দা হওয়ার তাওফিক দান করুন। আমিন।

এমএমএস/এমএস

আপনার মতামত লিখুন :