ভিন্ন আঙ্গিকে ক্ষতিগ্রস্ত খামারিদের পাশে সরকার

ইসমাইল হোসাইন রাসেল
ইসমাইল হোসাইন রাসেল ইসমাইল হোসাইন রাসেল
প্রকাশিত: ০৫:০৫ পিএম, ২০ এপ্রিল ২০২১

চলমান করোনাভাইরাস মহামারি পরিস্থিতিতে দেশজুড়ে চলছে কঠোর লকডাউন। এতে দেশব্যাপী অচলাবস্থার কারণে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ। গত বছরের লকডাউনে বাজার ও যোগাযোগ ব্যবস্থা সীমিত থাকায় ক্ষতিগ্রস্ত মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ খাতের খামারিদের আর্থিক প্রণোদনা দেয় সরকার। তবে এ বছর প্রণোদনার বাইরে ভ্রম্যমাণভাবে মাছ, মাংস, দুধ ও ডিম বিক্রিতে সহায়তার মাধ্যমে ভিন্ন আঙ্গিকে খামারিদের পাশে দাঁড়িয়েছে সরকার।

জানা গেছে, গত বছর করোনা বিস্তার রোধে ২৬ মার্চ সরকার সারাদেশে ছুটির ঘোষণা দেয়। এ সময়ে বাজার ও যোগাযোগ ব্যবস্থা সীমিত থাকায় মাছ, মাংস, দুধ ও ডিম উৎপাদন এবং বিপণনে প্রতিবন্ধকতার সৃষ্টি হয়। সে সময় মৎস্য ও পশুখাদ্যের মূল্য বৃদ্ধি পায় এবং খামারিরা ক্ষতির মুখে পড়ে। এরই প্রেক্ষিতে গত ১৭ ফেব্রুয়ারি মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ খাতে করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত ৪ লাখ ৮৫ হাজার ৪৭৬ জন হাজার খামারিকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহার হিসেবে ৫৬৮ কোটি ৮৬ লাখ ৪১ হাজার ২৫০ টাকা নগদ প্রণোদনা দেয় মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়। মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন প্রাণিসম্পদ অধিদফতরের ‘প্রাণিসম্পদ ও ডেইরি উন্নয়ন’এবং মৎস্য অধিদফতরের ‘সাসটেইনেবল কোস্টাল অ্যান্ড মেরিন ফিশারিজ’ প্রকল্প দু’টির আওতায় এ প্রণোদনা দেওয়া হয়।

এর মধ্যে দেশের ৪৬৬টি উপজেলা থেকে যাচাইকৃত প্রাণিসম্পদ খাতের ৪ লাখ ৭ হাজার ৪০২ জন খামারিকে (ডেইরি, লেয়ার মুরগী, পোল্ট্রি মুরগি, সোনালি মুরগি, ব্রয়লার মুরগি ও হাঁস খামারি) ১৫টি ক্যাটাগরিতে বিভিন্ন হারে ৪৬৮ কোটি ৮৬ লাখ ৪১ হাজার ২৫০ টাকা এবং ৭৫টি উপজেলা হতে যাচাইকৃত মৎস্য খাতের ৭৮ হাজার ৭৪ জন খামারিকে (মৎস্য চাষি, চিংড়ি চাষি ও কাঁকড়া/কুঁচিয়া সংগ্রাহক) ৭টি ক্যাটাগরিতে বিভিন্ন হারে ১০০ কোটি টাকা প্রণোদনা দেওয়া হয়।

মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা জানান, বিগত বছর করোনায় খামারিরা উৎপাদন এবং বিপণনে প্রতিবন্ধকতার কারণে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছিলেন, যেটি এবারের লকডাউনে হচ্ছে না। ফলে এ বছর প্রণোদনার বদলে ভিন্ন আঙ্গিকে খামারিদের পাশে থাকছে সরকার। এরই অংশ হিসেবে খামারগুলোতে উৎপাদন, পরিবহন, সরবরাহ এবং বিপণন স্বাভাবিক রাখতে ইতোমধ্যে মাঠ পর্যায়ে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। একইসঙ্গে সারাদেশে ন্যায্যমূল্যে মাছ, মাংস, দুধ, ডিম ও বিভিন্ন প্রাণিজাত পণ্যের ভ্রাম্যমাণ বিক্রয় কার্যক্রম চালু করেছে মন্ত্রণালয়। ভ্রাম্যমাণ বিক্রয়কেন্দ্র থেকে সাধারণ মানুষ তাদের প্রয়োজনীয় পণ্য কিনতে পারছেন, এতে করে খামারিরাও উৎপাদিত পণ্য ন্যায্যমূল্যে ভোক্তাদের কাছে সরাসরি বিক্রি করছেন। এছাড়াও অনলাইনে এসব পণ্য বিক্রির বিষয়েও নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ খাতে সম্পৃক্ত খামারিদের সমস্যা সমাধান করতে মাঠ পর্যায়ে নির্দেশনা দিয়েছে মন্ত্রণালয়। আর সার্বিক বিষয় মনিটরিং করতে পৃথক কন্ট্রোল রুম চালু করেছে প্রাণিসম্পদ অধিদফতর এবং মৎস্য অধিদফতর। এক্ষেত্রে দায়িত্বরত স্থানীয় কর্মকর্তারা খামারিদের সমস্যা সমাধানে উদ্যোগ নিচ্ছেন, তবে কোনো ক্ষেত্রে তারা সমাধান করতে না পারলে বিষয়টি কন্ট্রোল রুমে জানালে সেটি কেন্দ্রীয়ভাবে সমাধানের উদ্যোগ নেয়া হচ্ছে। সার্বিক বিষয়ে প্রতিদিন মন্ত্রণালয়ে প্রতিবেদন দিচ্ছে দুই অধিদফতর।

করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত খামারিদের প্রণোদনার কোনো পরিকল্পনা আছে কিনা জানতে চাইলে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সচিব রওনক মাহমুদ জাগো নিউজকে বলেন, ‘এ বছর লকডাউন পরিস্থিতিতে আমরা খামারিদের জন্য ভিন্ন ব্যবস্থা করেছি, তাদের জিনিসপত্র বিক্রি করে দেয়ার ব্যবস্থা করছি। তারা উৎপাদিত পণ্য বিক্রি করতে পারলে কোনো সমস্যা থাকার কথা না। তাই এ বছর তাদের পণ্য বিক্রি করে দেয়ার জন্য উপজেলা থেকে শুরু করে ঢাকা শহর পর্যন্ত সব জায়গায় আমাদের অফিসাররা কাজ করছেন। যেখানে যেখানে যারা পণ্য বিক্রি করতে পারছেন না তাদের মালপত্র আমাদের গাড়ি দিয়ে আমরা শহরে বা বাজারে বিভিন্ন স্থানে নিয়ে বিক্রি করে দিচ্ছি। সেজন্য এ বছর আমরা প্রণোদনার বিষয়টি চিন্তা করছি না।’

তিনি বলেন, ‘আমরা চাই তাদের জিনিসটা যেন তারা ন্যায্য মূল্যে বিক্রি করতে পারেন। ভ্রাম্যামাণ বিক্রিতে ব্যাপক সাড়া মিলছে। খামারিদের পণ্যগুলো তাদের মাধ্যমেই আমরা কালেক্ট করাচ্ছি। উপজেলা পর্যায় পর্যন্তও একইভাবে তাদের মাল আমাদের গাড়ির মাধ্যমে এনে বিক্রি করে দিচ্ছি। গত বছর আমরা দেখেছিলাম দুধ, ডিম, মাছ ও মাংস বিক্রি হচ্ছে না, ফেলে দিচ্ছি। কিন্তু এ বছর এখনও এ ধরনের ঘটনা ঘটেনি এখনও, আশা করি ঘটবেও না। আর তাদের উৎপাদন, বিপণন, সরবরাহ সবকিছুই নিরবচ্ছিন্নভাবে চলছে, কোথাও কোনো বাধা নেই।’

সার্বিক বিষয়ে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ. ম. রেজাউল করিম বলেন, আমরা সবকিছু বন্ধ করে দিলে মানুষের মাছ, মাংস, দুধ ডিমের চাহিদা পূরণ করা সম্ভব হবে না। আবার উৎপাদক, খামারি, বিপণনকারীসহ এ খাত সংশ্লিষ্ট অন্যান্যরাও ক্ষতিগ্রস্ত হবে। তাই বিদ্যমান করোনা পরিস্থিতিতে সরকার ঘোষিত চলমান নিষেধাজ্ঞাকালে মাছ, মাংস, দুধ, ডিম সরবরাহে কোনো বাধা নেই। এ ব্যাপারে প্রশাসনসহ সংশ্লিষ্ট দফতর-সংস্থায় চিঠি দিয়ে মন্ত্রণালয় থেকে কার্যকর ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। আর ভ্রাম্যমাণভাবে খামারিদের উৎপাদিত পণ্য বিক্রি করার ব্যবস্থা আমরা করে দিয়েছি, এতে ব্যাপক সাড়া মিলেছে। যার ফলে খামারিদের উৎপাদিত পণ্য বিপণনে সমস্যায় পড়তে হচ্ছে না।

এদিকে করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে গত ৫ এপ্রিল শুরু হয় ভ্রাম্যমাণভাবে মাছ, মাংস, দুধ ও ডিম বিক্রি। ৬৪ জেলায় ৭০৬টি ভ্রাম্যমাণ বিক্রয় কেন্দ্র পরিচালনা করা হয়। গত ৫ এপ্রিল থেকে ১৯ এপ্রিল পর্যন্ত ১২৬ কোটি ৯৭ লাখ ৮৫ হাজার টাকার মাছ, মাংস, দুধ, ডিম ও দুগ্ধজাত পণ্য ভ্রাম্যমাণ পদ্ধতিতে বিক্রি করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, গত বছর করোনায় ক্ষতিগ্রস্তদের জন্য দেয়া প্রণোদনার মধ্যে প্রাণিসম্পদ খাতের ক্ষতিগ্রস্ত একজন খামারিকে সর্বোচ্চ ২২ হাজার ৫০০ টাকা এবং সর্বনিম্ন ৩ হাজার ৩৭৫ টাকা দেয়া হয়। অপরদিকে মৎস্য খাতের ক্ষতিগ্রস্ত একজন খামারিকে সর্বোচ্চ ১৮ হাজার টাকা এবং সর্বনিম্ন ১০ হাজার টাকা প্রণোদনা হিসেবে দেয়া হয়। প্রণোদনার অর্থ খামারিদের তাৎক্ষণিকভাবে সরাসরি নগদ, বিকাশ ও ব্যাংক হিসাবে পাঠানো হয়।

আইএইচআর/এসএইচএস/এমএস

আমরা সবকিছু বন্ধ করে দিলে মানুষের মাছ, মাংস, দুধ ডিমের চাহিদা পূরণ করা সম্ভব হবে না। আবার উৎপাদক, খামারি, বিপণনকারীসহ এ খাত সংশ্লিষ্ট অন্যান্যরাও ক্ষতিগ্রস্ত হবে। তাই বিদ্যমান করোনা পরিস্থিতিতে সরকার ঘোষিত চলমান নিষেধাজ্ঞাকালে মাছ, মাংস, দুধ, ডিম সরবরাহে কোনো বাধা নেই।

গত বছর আমরা দেখেছিলাম দুধ, ডিম, মাছ ও মাংস বিক্রি হচ্ছে না, ফেলে দিচ্ছে। কিন্তু এ বছর এখনও এ ধরনের ঘটনা ঘটেনি এখনও, আশা করি ঘটবেও না। আর তাদের উৎপাদন, বিপণন, সরবরাহ সবকিছুই নিরবচ্ছিন্নভাবে চলছে, কোথাও কোনো বাধা নেই।

করোনা ভাইরাস - লাইভ আপডেট

১৫,৭৮,২৬,৩৭৯
আক্রান্ত

৩২,৮৮,১৫৪
মৃত

১৩,৬১,১০,৬০৫
সুস্থ

# দেশ আক্রান্ত মৃত সুস্থ
বাংলাদেশ ৭,৭২,১২৭ ১১,৮৭৮ ৭,০৬,৮৩৩
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ৩,৩৪,১৯,৭৯৭ ৫,৯৪,৯২২ ২,৬৩,২৪,৮৩৭
ভারত ২,২০,৬০,৯৬০ ২,৩৯,৬৬০ ১,৮০,৬৫,০৯৫
ব্রাজিল ১,৫০,৮৭,৩৬০ ৪,১৯,৩৯৩ ১,৩৬,৪০,৪৭৮
ফ্রান্স ৫৭,৪৭,২১৪ ১,০৬,১০১ ৪৮,১৭,৫২৩
তুরস্ক ৪৯,৯৮,০৮৯ ৪২,৪৬৫ ৪৬,৬২,৩২৮
রাশিয়া ৪৮,৭১,৮৪৩ ১,১২,৯৯২ ৪৪,৮৮,৬১৫
যুক্তরাজ্য ৪৪,৩১,০৪৩ ১,২৭,৫৯৮ ৪২,৪২,১৯২
ইতালি ৪০,৯২,৭৪৭ ১,২২,৪৭০ ৩৫,৭২,৭১৩
১০ স্পেন ৩৫,৬৭,৪০৮ ৭৮,৭৯২ ৩২,৪৮,০১০
১১ জার্মানি ৩৫,১০,৫০৬ ৮৫,১৮৪ ৩১,৪৭,১০০
১২ আর্জেন্টিনা ৩১,১৮,১৩৪ ৬৬,৮৭২ ২৭,৭৭,৯০২
১৩ কলম্বিয়া ২৯,৬৮,৬২৬ ৭৬,৮৬৭ ২৭,৮৮,৭৫১
১৪ পোল্যান্ড ২৮,২৯,১৯৬ ৬৯,৮৬৬ ২৫,৬৩,০৭৯
১৫ ইরান ২৬,৪০,৬৭০ ৭৪,৫২৪ ২০,৯২,৩৮১
১৬ মেক্সিকো ২৩,৬১,৮৭৪ ২,১৮,৬৫৭ ১৮,৮১,৮১৮
১৭ ইউক্রেন ২১,১৪,১৩৮ ৪৬,২০০ ১৭,৫০,৫৭০
১৮ পেরু ১৮,৩৯,৪৬৫ ৬৩,৫১৯ ১৭,২০,৬৬৫
১৯ ইন্দোনেশিয়া ১৭,০৯,৭৬২ ৪৬,৮৪২ ১৫,৬৩,৯১৭
২০ চেক প্রজাতন্ত্র ১৬,৪৪,৩৩৫ ২৯,৬৪৭ ১৫,৭৫,৩৯৯
২১ দক্ষিণ আফ্রিকা ১৫,৯২,৩২৬ ৫৪,৬৮৭ ১৫,১৩,২০২
২২ নেদারল্যান্ডস ১৫,৫৩,৪৬৯ ১৭,৩১৯ ১৩,০৯,৮৪৬
২৩ কানাডা ১২,৭৩,১৬৯ ২৪,৫২৯ ১১,৬৭,৪২২
২৪ চিলি ১২,৩৫,৭৭৮ ২৭,০০৪ ১১,৭০,৪৩৭
২৫ ইরাক ১১,০৩,৯৫০ ১৫,৭০২ ৯,৯২,৪২৩
২৬ ফিলিপাইন ১০,৯৪,৮৪৯ ১৮,২৬৯ ১০,১৩,২০৪
২৭ রোমানিয়া ১০,৬৫,২৫৪ ২৮,৯০৩ ১০,১১,৬৯৪
২৮ বেলজিয়াম ১০,১০,৯৮৭ ২৪,৪৮৩ ৮,৮০,২৬৭
২৯ সুইডেন ১০,০৭,৭৯২ ১৪,১৭৩ ৮,৩৫,৪৫৮
৩০ পাকিস্তান ৮,৫৪,২৪০ ১৮,৭৯৭ ৭,৫২,৭১২
৩১ পর্তুগাল ৮,৩৯,২৫৮ ১৬,৯৯১ ৮,০০,০০৭
৩২ ইসরায়েল ৮,৩৮,৮৫৮ ৬,৩৭৫ ৮,৩১,৪৩২
৩৩ হাঙ্গেরি ৭,৯০,৫৬৪ ২৮,৫০৪ ৫,৬১,১১৯
৩৪ জর্ডান ৭,১৮,৬৩২ ৯,০৪৭ ৬,৯৯,৪৬০
৩৫ সার্বিয়া ৬,৯৯,৫৭৪ ৬,৫৩৯ ৬,৫৮,৪৫৩
৩৬ সুইজারল্যান্ড ৬,৭০,৬১৩ ১০,৭০৪ ৬,০১,৯৫৮
৩৭ অস্ট্রিয়া ৬,৩০,০৫০ ১০,৩৭৪ ৬,০১,৯৫৮
৩৮ জাপান ৬,২৬,৫২২ ১০,৭০২ ৫,৫১,২৯৩
৩৯ সংযুক্ত আরব আমিরাত ৫,৩৪,৪৪৫ ১,৬১০ ৫,১৪,৭৬৯
৪০ লেবানন ৫,৩২,২৬৯ ৭,৪৬০ ৪,৮১,৯৬৮
৪১ মরক্কো ৫,১৩,৩১৪ ৯,০৫৭ ৫,০০,১৯২
৪২ মালয়েশিয়া ৪,৩৬,৯৪৪ ১,৬৫৭ ৩,৯৮,৭২৩
৪৩ সৌদি আরব ৪,২৫,৪৪২ ৭,০৫৯ ৪,০৮,৬৭৬
৪৪ বুলগেরিয়া ৪,০৯,৪৯৫ ১৬,৮৮৬ ৩,৪৭,৮৭০
৪৫ ইকুয়েডর ৩,৯৬,৮৮৮ ১৯,০৬১ ৩,২৯,৫৮২
৪৬ নেপাল ৩,৮৫,৮৯০ ৩,৬৩২ ২,৯৮,৭৬৫
৪৭ স্লোভাকিয়া ৩,৮৫,৩৯৫ ১১,৯৯০ ৩,৬৭,৫৩০
৪৮ বেলারুশ ৩,৬৭,৬৭৪ ২,৬২২ ৩,৫৮,২৬১
৪৯ পানামা ৩,৬৬,৭৬২ ৬,২৫৮ ৩,৫৬,৫২০
৫০ গ্রীস ৩,৫৮,১১৬ ১০,৯১০ ৩,২২,২৮২
৫১ ক্রোয়েশিয়া ৩,৪৩,৮২৯ ৭,৪২৪ ৩,২৫,৭০০
৫২ কাজাখস্তান ৩,৪০,২৩৯ ৩,৮৮৯ ২,৯৪,১৬২
৫৩ আজারবাইজান ৩,২৬,০৫৬ ৪,৬৬৬ ৩,০৪,৫৮০
৫৪ জর্জিয়া ৩,২০,৮৩০ ৪,২৬৩ ২,৯৯,৫০০
৫৫ তিউনিশিয়া ৩,১৮,২৩৬ ১১,২৭৭ ২,৭৪,২৭০
৫৬ বলিভিয়া ৩,১৪,১৯০ ১৩,১৫১ ২,৫৮,০৬৮
৫৭ ফিলিস্তিন ৩,০০,৯৪৬ ৩,৩৩৮ ২,৮৩,৫৭০
৫৮ প্যারাগুয়ে ২,৯৪,২৩৩ ৬,৯৭৪ ২,৪২,৯১৫
৫৯ কুয়েত ২,৮২,৯৮১ ১,৬২৮ ২,৬৬,৯১৭
৬০ ডোমিনিকান আইল্যান্ড ২,৬৯,৯৫৮ ৩,৫১৭ ২,৩০,৯৪৫
৬১ কোস্টারিকা ২,৬৫,৪৮৬ ৩,৩৬৫ ২,১২,৫২৫
৬২ ইথিওপিয়া ২,৬১,৫৮০ ৩,৮৪০ ২,০৬,৮৭০
৬৩ ডেনমার্ক ২,৫৮,১৮২ ২,৪৯৭ ২,৪৪,৯৯৮
৬৪ লিথুনিয়া ২,৫৬,৯০৬ ৪,০২৪ ২,৩১,৮৪১
৬৫ মলদোভা ২,৫২,৪১৩ ৫,৯২৯ ২,৪২,৭৯৬
৬৬ আয়ারল্যান্ড ২,৫১,৯০৪ ৪,৯২১ ২,৩৪,৮০২
৬৭ স্লোভেনিয়া ২,৪৫,৭৯৩ ৪,২৮৬ ২,৩২,৩৮৯
৬৮ মিসর ২,৩৫,১৪০ ১৩,৭৭৯ ১,৭৫,৯২৮
৬৯ গুয়াতেমালা ২,৩৩,৬৯৬ ৭,৬৯৫ ২,১১,৫৭২
৭০ আর্মেনিয়া ২,১৯,০৯২ ৪,২২৫ ২,০৪,১২১
৭১ হন্ডুরাস ২,১৮,৩৩০ ৫,৫৮৫ ৮১,১৬০
৭২ উরুগুয়ে ২,১৬,১৪৬ ৩,০৩২ ১,৮৭,১৫৩
৭৩ কাতার ২,১০,৬০৩ ৫০২ ২,০০,৪৬৭
৭৪ ভেনেজুয়েলা ২,০৫,১৮১ ২,২৬৩ ১,৮৭,৬৬৫
৭৫ বসনিয়া ও হার্জেগোভিনা ২,০০,৬৯৩ ৮,৭৯০ ১,৬৪,৭১৭
৭৬ ওমান ১,৯৯,৩৪৪ ২,০৮৩ ১,৮১,৬৯৬
৭৭ বাহরাইন ১,৮৬,৪০৩ ৬৭৪ ১,৭৩,০৩৬
৭৮ লিবিয়া ১,৭৯,৬৯৭ ৩,০৬৩ ১,৬৫,৯৩১
৭৯ নাইজেরিয়া ১,৬৫,৩৪০ ২,০৬৫ ১,৫৫,৪৫৪
৮০ কেনিয়া ১,৬২,৬৬৬ ২,৮৬৫ ১,১০,৬৫৩
৮১ উত্তর ম্যাসেডোনিয়া ১,৫৩,৬৯৪ ৫,০৬৭ ১,৩৭,৩৩১
৮২ মায়ানমার ১,৪২,৯৩৪ ৩,২১০ ১,৩২,০০৪
৮৩ আলবেনিয়া ১,৩১,৫৭৭ ২,৪০৮ ১,১৫,২৫৩
৮৪ দক্ষিণ কোরিয়া ১,২৬,৭৪৫ ১,৮৬৫ ১,১৬,৮৮১
৮৫ এস্তোনিয়া ১,২৪,৯০১ ১,১৯৫ ১,১৫,৬৯৯
৮৬ আলজেরিয়া ১,২৩,৬৯২ ৩,৩১৫ ৮৬,১৪৯
৮৭ লাটভিয়া ১,২৩,৩৩১ ২,২০৮ ১,১২,১৫০
৮৮ শ্রীলংকা ১,২১,৩৩৮ ৭৬৪ ১,০৩,০৯৮
৮৯ নরওয়ে ১,১৫,৯৮৮ ৭৬৭ ৮৮,৯৫২
৯০ কিউবা ১,১৪,৯১২ ৭২২ ১,০৮,৪৪৮
৯১ মন্টিনিগ্রো ৯৮,১৪২ ১,৫৩৩ ৯৪,৬৫৫
৯২ কিরগিজস্তান ৯৮,০৭৯ ১,৬৪৯ ৯১,২৬৭
৯৩ উজবেকিস্তান ৯৩,৯৭৮ ৬৬২ ৮৯,৭০৩
৯৪ ঘানা ৯২,৮৫৬ ৭৮৩ ৯০,৪৮০
৯৫ জাম্বিয়া ৯২,০৫৭ ১,২৫৭ ৯০,৩৬৩
৯৬ চীন ৯০,৭৪৬ ৪,৬৩৬ ৮৫,৮১০
৯৭ ফিনল্যাণ্ড ৮৮,৫৬১ ৯২২ ৪৬,০০০
৯৮ থাইল্যান্ড ৮১,২৭৪ ৩৮২ ৫১,৪১৯
৯৯ ক্যামেরুন ৭৪,৯৪৬ ১,১৫২ ৭০,৪৯৭
১০০ এল সালভাদর ৭০,২৫৫ ২,১৪৬ ৬৫,৭৭৮
১০১ মোজাম্বিক ৭০,১৩৮ ৮২০ ৬৭,৭০৬
১০২ সাইপ্রাস ৬৮,৭৬৬ ৩৩২ ৩৯,০৬১
১০৩ লুক্সেমবার্গ ৬৮,১৫৩ ৮০১ ৬৪,৯৪৩
১০৪ আফগানিস্তান ৬১,৮৪২ ২,৬৮৬ ৫৪,০৪০
১০৫ সিঙ্গাপুর ৬১,৩৩১ ৩১ ৬০,৯০৬
১০৬ নামিবিয়া ৪৯,৫৫২ ৬৮২ ৪৭,১৪৬
১০৭ বতসোয়ানা ৪৮,৪১৭ ৭৩৪ ৪৬,২২৬
১০৮ জ্যামাইকা ৪৬,৪২৮ ৮০১ ২২,০১৮
১০৯ আইভরি কোস্ট ৪৬,৩৪৪ ২৯১ ৪৫,৭৯০
১১০ মঙ্গোলিয়া ৪৪,০১৬ ১৬০ ২৯,৯৮৪
১১১ উগান্ডা ৪২,২২৪ ৩৪৬ ৪১,৬৫২
১১২ সেনেগাল ৪০,৬২১ ১,১১৬ ৩৯,৩১৬
১১৩ মাদাগাস্কার ৩৮,৮৭৪ ৭১৬ ৩৫,৭৩২
১১৪ জিম্বাবুয়ে ৩৮,৪০৩ ১,৫৭৬ ৩৬,০৪১
১১৫ মালাউই ৩৪,১৫৮ ১,১৫২ ৩২,১৪৫
১১৬ মালদ্বীপ ৩৪,১৩৪ ৮২ ২৫,৭৮২
১১৭ সুদান ৩৩,৬৪৮ ২,৩৬৫ ২৭,২৪৭
১১৮ মালটা ৩০,৪৩৮ ৪১৭ ২৯,৭৭৪
১১৯ ড্যানিশ রিফিউজি কাউন্সিল ৩০,২৪০ ৭৭২ ২৬,৩২৪
১২০ অস্ট্রেলিয়া ২৯,৯০৬ ৯১০ ২৮,৭৫৮
১২১ অ্যাঙ্গোলা ২৮,২০১ ৬২৮ ২৪,৬৯৮
১২২ কেপ ভার্দে ২৫,৮৩৭ ২৩১ ২২,৩২৩
১২৩ রুয়ান্ডা ২৫,৫৩৯ ৩৩৮ ২৪,০৫০
১২৪ গ্যাবন ২৩,৩১১ ১৪২ ১৯,৮৩৮
১২৫ সিরিয়া ২৩,২৫৬ ১,৬৩৯ ১৮,১৬৬
১২৬ গিনি ২২,৬০২ ১৫০ ২০,১৮৬
১২৭ রিইউনিয়ন ২১,৬০১ ১৫০ ১৯,৮৪৮
১২৮ ফ্রেঞ্চ গায়ানা ২০,৩৬৬ ১০৪ ৯,৯৯৫
১২৯ মায়োত্তে ২০,১৩৪ ১৭০ ২,৯৬৪
১৩০ ফ্রেঞ্চ পলিনেশিয়া ১৮,৭৯০ ১৪১ ১৮,৬১৭
১৩১ কম্বোডিয়া ১৮,৭১৭ ১১৪ ৭,৩৪০
১৩২ মৌরিতানিয়া ১৮,৬১৩ ৪৫৬ ১৭,৮৪৭
১৩৩ ইসওয়াতিনি ১৮,৪৭৪ ৬৭১ ১৭,৭৭৩
১৩৪ গুয়াদেলৌপ ১৫,৩৬০ ২১০ ২,২৪২
১৩৫ সোমালিয়া ১৪,৩৬৮ ৭৪৫ ৬,১৫২
১৩৬ গায়ানা ১৪,০৭৩ ৩১৪ ১১,৯২৮
১৩৭ মালি ১৪,০৫৯ ৪৯৭ ৮,৯৩৭
১৩৮ এনডোরা ১৩,৩৯০ ১২৭ ১২,৯৩৬
১৩৯ বুর্কিনা ফাঁসো ১৩,৩৬৮ ১৬২ ১৩,১৩১
১৪০ তাজিকিস্তান ১৩,৩০৮ ৯০ ১৩,২১৮
১৪১ হাইতি ১৩,১৬৪ ২৬৩ ১২,১৫৪
১৪২ টোগো ১৩,১০৬ ১২৪ ১১,৫৮০
১৪৩ ত্রিনিদাদ ও টোবাগো ১২,৭২০ ১৯৬ ৯,০৪৪
১৪৪ বেলিজ ১২,৬৮৬ ৩২৩ ১২,২৮৮
১৪৫ কিউরাসাও ১২,২২৮ ১১৩ ১১,৯২০
১৪৬ হংকং ১১,৮০৭ ২১০ ১১,৪৮৬
১৪৭ পাপুয়া নিউ গিনি ১১,৬৩০ ১২১ ১০,৩১২
১৪৮ মার্টিনিক ১১,৫৫৮ ৮৩ ৯৮
১৪৯ জিবুতি ১১,৩১৯ ১৪৮ ১১,০৪১
১৫০ কঙ্গো ১১,১৪৭ ১৪৮ ৮,২০৮
১৫১ সুরিনাম ১০,৯৩৩ ২১৪ ৯,৬৯৪
১৫২ বাহামা ১০,৭৭৩ ২১২ ৯,৭৮১
১৫৩ লেসোথো ১০,৭৬১ ৩১৯ ৬,৪২৭
১৫৪ আরুবা ১০,৭৪৭ ১০০ ১০,৫৪৫
১৫৫ দক্ষিণ সুদান ১০,৬৩৭ ১১৫ ১০,৩১২
১৫৬ বেনিন ৭,৮৮৪ ১০০ ৭,৬৫২
১৫৭ ইকোয়েটরিয়াল গিনি ৭,৬৯৪ ১১২ ৭,২৭৯
১৫৮ নিকারাগুয়া ৬,৯৮৯ ১৮৩ ৪,২২৫
১৫৯ সেন্ট্রাল আফ্রিকান রিপাবলিক ৬,৬৭৪ ৯৩ ৫,১১২
১৬০ আইসল্যান্ড ৬,৫০৬ ২৯ ৬,৩৪৭
১৬১ ইয়েমেন ৬,৪৪৬ ১,২৬৯ ২,৯৭৮
১৬২ সিসিলি ৬,৩৭৩ ২৮ ৫,২৭৭
১৬৩ গাম্বিয়া ৫,৯২৫ ১৭৫ ৫,৫৪৭
১৬৪ নাইজার ৫,৩১৩ ১৯২ ৪,৮৮২
১৬৫ সান ম্যারিনো ৫,০৬৭ ৯০ ৪,৯৩৫
১৬৬ চাদ ৪,৮৬২ ১৭০ ৪,৬২২
১৬৭ সেন্ট লুসিয়া ৪,৬৫৪ ৭৫ ৪,৪৩৯
১৬৮ জিব্রাল্টার ৪,২৯১ ৯৪ ৪,১৮৯
১৬৯ বুরুন্ডি ৪,১৩২ ৭৭৩
১৭০ চ্যানেল আইল্যান্ড ৪,১১১ ৮৬ ৩,৯৬৫
১৭১ সিয়েরা লিওন ৪,০৬৮ ৭৯ ৩,০৭৮
১৭২ বার্বাডোস ৩,৯৩১ ৪৫ ৩,৮৪৭
১৭৩ কমোরস ৩,৮৫৪ ১৪৬ ৩,৬৮২
১৭৪ ইরিত্রিয়া ৩,৭৪২ ১২ ৩,৬০২
১৭৫ গিনি বিসাউ ৩,৭৩৯ ৬৭ ৩,৩৮৭
১৭৬ ভিয়েতনাম ৩,২৩০ ৩৫ ২,৬০২
১৭৭ লিচেনস্টেইন ২,৯৬৭ ৫৮ ২,৮৫৮
১৭৮ পূর্ব তিমুর ২,৯৬৫ ১,৫৯৬
১৭৯ নিউজিল্যান্ড ২,৬৪০ ২৬ ২,৫৮৯
১৮০ মোনাকো ২,৪৭৭ ৩২ ২,৪০২
১৮১ বারমুডা ২,৪৩৪ ৩০ ২,০৯৫
১৮২ টার্কস্ ও কেইকোস আইল্যান্ড ২,৪০২ ১৭ ২,৩৫৮
১৮৩ সিন্ট মার্টেন ২,২৫৯ ২৭ ২,১৯৯
১৮৪ লাইবেরিয়া ২,১১৪ ৮৫ ১,৯৬২
১৮৫ সেন্ট ভিনসেন্ট ও গ্রেনাডাইন আইল্যান্ড ১,৯১২ ১২ ১,৭৪১
১৮৬ সেন্ট মার্টিন ১,৭৭৩ ১২ ১,৩৯৯
১৮৭ আইল অফ ম্যান ১,৫৯০ ২৯ ১,৫৫০
১৮৮ ক্যারিবিয়ান নেদারল্যান্ডস ১,৫৭৭ ১৭ ৬,৪৪৫
১৮৯ মরিশাস ১,২৪০ ১৭ ১,১২১
১৯০ লাওস ১,২৩৩ ১৫০
১৯১ অ্যান্টিগুয়া ও বার্বুডা ১,২৩২ ৩২ ১,০১৪
১৯২ ভুটান ১,২০২ ১,০৬৫
১৯৩ তাইওয়ান ১,১৮৩ ১২ ১,০৮২
১৯৪ সেন্ট বারথেলিমি ৯৭৪ ৪৬২
১৯৫ ডায়মন্ড প্রিন্সেস (প্রমোদ তরী) ৭১২ ১৩ ৬৯৯
১৯৬ ফারে আইল্যান্ড ৬৬৮ ৬৬২
১৯৭ কেম্যান আইল্যান্ড ৫৪৮ ৫৩৭
১৯৮ তানজানিয়া ৫০৯ ২১ ১৮৩
১৯৯ ওয়ালিস ও ফুটুনা ৪৪৫ ৪৪
২০০ ব্রুনাই ২৩০ ২১৮
২০১ ব্রিটিশ ভার্জিন দ্বীপপুঞ্জ ২১৬ ১৯১
২০২ ডোমিনিকা ১৭৫ ১৭৫
২০৩ গ্রেনাডা ১৬০ ১৫৮
২০৪ ফিজি ১৩৬ ৯৬
২০৫ নিউ ক্যালেডোনিয়া ১২৪ ৫৮
২০৬ এ্যাঙ্গুইলা ৯৯ ৪৯
২০৭ ফকল্যান্ড আইল্যান্ড ৬৩ ৬৩
২০৮ ম্যাকাও ৪৯ ৪৯
২০৯ সেন্ট কিটস ও নেভিস ৪৫ ৪৪
২১০ গ্রীনল্যাণ্ড ৩১ ৩১
২১১ ভ্যাটিকান সিটি ২৭ ১৫
২১২ সেন্ট পিয়ের এন্ড মিকেলন ২৫ ২৫
২১৩ মন্টসেরাট ২০ ১৯
২১৪ সলোমান আইল্যান্ড ২০ ২০
২১৫ পশ্চিম সাহারা ১০
২১৬ জান্ডাম (জাহাজ)
২১৭ মার্শাল আইল্যান্ড
২১৮ ভানুয়াতু
২১৯ সামোয়া
২২০ সেন্ট হেলেনা
তথ্যসূত্র: চীনের জাতীয় স্বাস্থ্য কমিশন (সিএনএইচসি) ও অন্যান্য।
করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]